কর্মসংস্থান হবে ১৫ লাখের ॥ বিপুল সম্ভাবনা বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরে

29

ইদ্রিস আলী ##  করোনাভাইরাসের কারণে গত বছর বিদেশি বিনিয়োগ কমলেও ৪ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ প্রস্তাব পেয়েছে দেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলো। দেশীয় বিনিয়োগের পাশাপাশি এসব অঞ্চলে গত বছর সবচেয়ে বেশি বিদেশি বিনিয়োগ প্রস্তাব এসেছে চীন, ভারত, অস্ট্রেলিয়া, নেদারল্যান্ডস, সিঙ্গাপুর এবং যুক্তরাজ্য থেকে।

এর মধ্যে বিনিয়োগ প্রস্তাবনায় শীর্ষে রয়েছে সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক জোনখ্যাত ‘মীরসরাইয়ের বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর’।

সরকার আশা করছে, আগামী ১০ বছরের মধ্যেই পুরোপুরি তৈরি হবে দেশের ১০০ অর্থনৈতিক অঞ্চল। এ পর্যন্ত তিনটি সরকারি ও ১০টি বেসরকারি অর্থনৈতিক অঞ্চলে মোট এক হাজার ৭৮৫ কোটি মার্কিন ডলারের বিদেশি বিনিয়োগ প্রস্তাব এসেছে। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় দেড় লাখ কোটি টাকারও বেশি। ওয়ান স্টপ সার্ভিসের মাধ্যমে ৪১ ধরনের বিনিয়োগ সুবিধা দিচ্ছে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা)।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বিনিয়োগকারীদের উৎসাহিত করতে সেবাসমূহ আরো সহজ করতে হবে। স্থিতিশীল করতে হবে কর-নীতি। সেই সঙ্গে শুধু বড় বিনিয়োগকারীই নয়, গুরুত্ব দিতে হবে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের ওপরও। এসএমই বিনিয়োগ বাড়াতে অর্থায়ন সমস্যা দূর করারও পরামর্শ দেন তারা।

জানা যায়, করোনাভাইরাসের সংক্রমণে অন্যান্য খাতের মতো গত বছর বিনিয়োগেও ব্যাপক প্রভাব পড়েছে। শুধু বাংলাদেশ নয়, মহামারীতে গত বছর সব দেশেই বিনিয়োগে খরা গেছে। বিশ্বজুড়ে বদলে গেছে বিনিয়োগের চিত্র। এক দেশের বিনিয়োগ ছুটে গেছে আরেক দেশে। গত বছর বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) ১ হাজার ৫২৯ বিনিয়োগকারীর নিবন্ধন দিয়েছে।