কোন সময়ের ব্যায়াম বেশি কার্যকরী, সকাল নাকি সন্ধ্যা

64

 

হাবিবুর রহমান নাছির ## সুস্থ থাকার জণ্য নিয়মিত ব্যায়াম করা জরুরি। তবে কখন করতে হবে আর কখন করা যাবে না, অনেকেই জানেন না। স্বাস্থ্যের পক্ষে ব্যায়াম অত্যন্ত উপকারী। প্রতিদিন নিয়ম করে ব্যায়াম করতে পারলে শরীর তো ভালো থাকবেই, সঙ্গে ওজনও কমবে। যারা জিমে যেতে পারেন না বা খুব হেভি ওয়ার্কআউট যাদের পক্ষে করা সম্ভব নয়, শরীর ফিট রাখার জন্য ব্যায়াম অত্যন্ত উপকারী।

সন্ধ্যার পরও ব্যায়াম করতে পারেন৷ কিন্তু জার্নাল অফ ফিজিওলজি’র গবেষণা বলছে, এই সময় ব্যায়াম করলে কারও কারও ঘুমের সমস্যা হয়৷ বিশেষ করে ভারী ব্যায়াম করলে৷ তবে বিজ্ঞানীদের মত, যদি ব্যায়াম করার পরেই গোসল করে, খেয়েদেয়ে শুয়ে না পড়েন, বিপদ তত নেই।

তবে, সকালে ঘুম থেকে উঠেই ব্যায়াম সেরে ফেলতে পারলে সারাদিন ভাবনা থাকে না। একটা নিয়ম তৈরি হয়ে যায়। দুপুরে–বিকালে–রাত্রে ব্যায়াম করলে, মাঝে মধ্যেই ছেদ পড়তে পারে যদিও।

* প্রথমে ভেবে নিন, দিনের কোন সময় আপনি সবচেয়ে তরতাজা থাকেন। কখন সময় পাবেন, সেটাও ঠিক করে নিন।

* সময় নিয়ে টানাটানি না থাকলে, বিভিন্ন সময়ে ব্যায়াম করে দেখে নিন, কোন রুটিন মেনে চললে আপনি সবচেয়ে বেশি তরতাজা থাকছেন।

* সকালে ঘুম থেকে উঠেই ব্যায়াম করা যেতে পারে। দীর্ঘ সময় ঘুমের পর সকালে ব্যায়াম সারা দিন ফুরফুরে রাখতে পারে। এছাড়া সন্ধ্যার আগে বিকালটাও ব্যায়াম করার জন্য উপযুক্ত সময়। যেহেতু ব্যায়াম করলে শরীরের ঘাম ঝরে, তাই নরম আবহাওয়াতেই ব্যায়াম করা ভালো।

* দুপুরবেলা বা বেশি গরমে ব্যায়াম করলে সহজেই ক্লান্ত মনে হতে পারে। তাই এ সময়ে ব্যায়াম না করাই ভালো। অনেকে ব্যস্ততার জন্য সারা দিন সময় করে উঠতে পারেন না, তারা রাতে ব্যায়াম করেন। এতে কোনো সমস্যা নেই।

* যাদের সারা দিন ঘরেই কাটাতে হয়, তারা চাইলে যেকোনোও সময় ব্যায়াম করতে পারেন। ব্যায়ামের সময় অনেক বেশি খাবার খাওয়া ঠিক নয়। হালকা খাবার যেমন, একটা কলা বা বিস্কুট খেয়ে ব্যায়াম করলে উপকার পাওয়া যাবে।

* সকালে ব্যায়াম করতে গিয়ে অনেকে ব্যায়াম শেষে ভরপেট খেয়ে বাড়ি ফেরেন। এতে ব্যায়ামের কোনো উপকারিতা থাকে না।

* যারা নিয়মিত ব্যায়াম করেন, তারা বেশি দিনের অবসর কাটালে বা কোথাও ঘুরতে গেলে খাবারের দিকে নজর রাখা উচিত। ঘুরতে গিয়ে বেশি দিন থাকার পরিকল্পনা করলে সুযোগ থাকলে টুকটাক ব্যায়াম করা যেতে পারে।

* ব্যায়াম করার আগে বা পরপরই বেশি পরিমাণে পানি পান করা ঠিক নয়। ব্যায়ামের পর একটু বিশ্রাম নিয়ে তারপর পানি পান করুন।

ব্যায়ামের আদর্শ সময় বলে কিছু হয় না। যখন সময় বার করতে পারবেন, আপনার শরীর, পেশি সবচেয়ে বেশি সাড়া দেবে ও আপনার কাজে ব্যাঘাত আসবে না- সেটাই আপনার সময়।