শুল্ক কমানোর খবরে কমতে শুরু করছে চালের দাম, নাগালের মধ্যে পেঁয়াজ

25

নুরুজ্জামান লিটন # #  চাল আমদানিতে শুল্ক কমানোর খবরে খুলনার বাজারে কিছুটা হলেও প্রভাব পড়েছে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে উর্ধ্বমুখী চালের দাম এ সপ্তাহে আর বাড়েনি, বরং কেজিতে দেড় থেকে ২ টাকা কমেছে। আমদানিকৃত চাল বাজারে আসলে এ দাম আরও কমবে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। অন্যদিকে দেশি পেঁয়াজের সরবরাহ বাড়ায় বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় এ পণ্যটি এখন ক্রেতাদের নাগালের মধ্যেই।

রবিবার (১০ জানুয়ারি) খুলনা নগরীর চাল ও পেঁয়াজের পাইকারি আড়তে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ক্রেতাদের চাহিদা কম থাকায় আমদানিতে ১০ শতাংশ শুল্ক আরোপ করা হলেও ভারতীয় পেঁয়াজের দাম আগের চেয়ে কেজিতে ২ থেকে ৩ টাকা কমেছে। তবে দেশি পেঁয়াজের দাম রয়েছে একই। অপরদিকে চাল আমদানিতে ১০ শতাংশ শুল্ক কমানোর খবরে চালের দর কমতে শুরু করেছে। গত সপ্তাহের চেয়ে চিকন ও মাঝারি প্রায় সব ধরনের চালে কেজিতে দেড় থেকে ২ টাকা কমেছে।

ব্যবসায়ীরা জানান , খুব শীঘ্রই “৮/১০ দিনের মধ্যে আমদানিকৃত চাল বাজারে আসবে বলে আশা করছি। এর প্রভাব ইতিমধ্যে বাজারে পড়েছে। চাল বাজারে আসার পরে আরও দাম কমবে বলে আমরা আশাবাদি।”

অন্য পাইকারি ব্যবসায়ীরা জানান, ৪/৫ দিনের ব্যবধানে চিকন ও মাঝারি প্রায় সব ধরনের চালের দাম কেজিতে দেড় থেকে ২ টাকা কমেছে। বর্তমানে গাজি আতপ প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩৮ থেকে ৩৯ টাকা। মিনিকেট (জোড়া কবুতর) বিক্রি করছে সাড়ে ৪৮/৪৯ টাকা, যা আগে বিক্রি হয়েছে ৫০/৫১ টাকা। ভালো মিনিকেট এখন ৫২/৫৩ টাকা, বাসমতি ৫৮/৫৯ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আামদানি করা চাল বাজারে আসলে এ দাম আরও কমবে বলে আশাবাদি তারা। ব্যবসায়ীরা আরও বলেন, এখন বাজারে ক্রেতা খুবই কম।

বেনাপোল বাজারের মোশারফ ট্রেডার্সের মালিক বলেন, “ক্রেতাদের আগ্রহ কম থাকায় ভারতীয় পেঁয়াজ ৩০ থেকে ৩২ টাকায় বিক্রি করছি। নতুন কোন ভারতীয় পেঁয়াজ বেনাপোলে আসেনি।”

উল্লেখ্য, সরকার বাজার নিয়ন্ত্রণে চাল আমদানিতে শুল্ক ২৫ শতাংশ থেকে ১০ শতাংশ কমিয়েছে। একই সঙ্গে কৃষকের স্বার্থে পেঁয়াজ আমদানিতে ১০ শতাংশ শুল্ক আরোপ করেছে। গত বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) রাতে এ সংক্রান্ত দুটি পৃথক আদেশ জারি করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। পরে শনিবার বিকেলে ১১২ মেট্রিকটন চাল বোঝাই ভারতীয় ৩টি ট্রাক দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার হিলি স্থলবন্দরে প্রবেশের মাধ্যমে দেশে চাল আমদানির আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়।