হোয়াইট হাউসে বাইডেন, ১৫ নির্বাহী আদেশে সই

54

তানজীর মহসিন অংকন ## প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার পর জো বাইডেন অবশেষে হোয়াইট হাউজে প্রবেশ করেছেন। তবে তার কাছে হোয়াইট হাউজ নতুন কিছু নয়। এর আগেও তিনি ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে এই ভবনে চার বছর কাটিয়েছেন।

শপথ নেয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ১৫টি নির্বাহী আদেশে সই করেছেন বাইডেন। এর মাধ্যমে ট্রাম্পের নেয়া কয়েটি নীতি বদলে দিয়েছেন তিনি। পরে এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, ‘সংকট মোকাবেলার ক্ষেত্রে অপচয় করার মতো কোনো সময় নেই’।

প্রেসিডেন্ট বাইডেন যে পনেরটি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেছেন তার প্রথমটিই ছিলো করোনাভাইরাস মোকাবেলা বিষয়ে। এছাড়া প্যারিস জলবায়ু চুক্তিতে ফেরা, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থায় ফিরে আসা, মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণ বন্ধ করা এবং মুসলিমদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়াসহ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় রয়েছে।

২০১৭ সালে প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে আমেরিকাকে প্রত্যাহার করে নেন সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।এরপর ২০২০ সালে করোনা মাহামারির সময় বেরিয়ে আসেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকেও। বাইডেন শপথ নেয়ার কয়েক ঘণ্টার মাঝেই আবারও এই দুই জায়গায় যোগদান করার আদেশে স্বাক্ষর করেছেন। এর ফলে আগামী ৩০ দিনের মাঝেই আমেরিকা আবার জলবায়ু চুক্তিতে ফিরে যাবে। বৃহস্পতিবারই দেশটির শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ অ্যান্থনি ফাউশি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্বাহী পরিষদের বৈঠকে যোগ দেবেন।

বাইডেন ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞাও তুলে নিয়েছেন। ট্রাম্পের দেয়া এই নিষেধাজ্ঞা মূলত মুসলিম নিষেধাজ্ঞা নামেই পরিচিত ছিল। এর ফলে নিষিদ্ধ হয়ে পড়া মুসলিম দেশগুলোর নাগরিকরা এখন আমেরিকার ভিসার জন্য আবারও আবেদন করতে পারবেন।

হোয়াইট হাউজে তার পূর্বসূরী ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রথম দু সপ্তাহে আটটি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেছিলেন আর প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা করেছিলেন নয়টি আদেশে।

বুধবার বাংলাদেশ সময় রাত পৌনে ১১টার দিকে (যুক্তরাষ্ট্র সময় দুপুর পৌনে ১২টা) শপথ নেন বাইডেন। তার আগে শপথ নেন ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথম নারী ভাইস প্রেসিডেন্ট।

ওয়াশিংটনে মার্কিন কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ের ওয়েস্ট ফ্রন্টে আয়োজন করা হয় শপথ অনুষ্ঠানের। নিজের পরিবারের ১২৭ বছরের পুরোনো বাইবেলের একটি কপি হাতে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে শপথ পড়ান সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি জন রবার্ট। কমলা হ্যারিসকে শপথ পড়ান দেশটির সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি সোনিয়া সোটোমায়র।

অভিষেক অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মিনেসোটা সেনেটর অ্যামি ক্লোবাকার। অনুষ্ঠানে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করেন লেডি গাগা।

যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে বয়স্ক প্রেসিডেন্ট বাইডেন (৭৮) ১৯৪২ সালের ২০ নভেম্বর প্যানসিলভ্যানিয়া রাজ্যে জন্মগ্রহণ করেন। দ্বিতীয় স্ত্রী জিলের সঙ্গে ১৯৭৭ সালে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন বাইডেন। বাইডেনের অভিষেকের সঙ্গে সঙ্গে জিল বাইডেন হতে যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রে ৪৬তম ফার্স্টলেডি।