• ৮ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১২:৫৬
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

আজও জেল থেকে ছাড়া পায়নি আরিয়ান খান !

বার্তাকন্ঠ
প্রকাশিত অক্টোবর ২৯, ২০২১, ২০:৫২ অপরাহ্ণ
আজও জেল থেকে ছাড়া পায়নি আরিয়ান খান !

বিনোদন ডেস্ক।।বোম্বে হাই কোর্ট গতকাল (বৃহস্পতিবার) বিকেলে জামিন দিয়েছে বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খানকে। মাদক মামলায় প্রায় এক মাস কারাবাসের পর জামিন পেলেন তিনি। আজ (শুক্রবার) বিকেল নাগাদ কারামুক্ত হয়ে বাসায় ফেরার কথা ছিল আরিয়ানের।

কিন্তু না। এদিনও শাহরুখের সবচেয়ে বড় রিলিজ আটকে গেল। এদিন আরিয়ান খান ছাড়া পাচ্ছেন না মুম্বাইয়ের আর্থার রোড জেল থেকে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার আরিয়ান খানের জামিন মঞ্জুর করলেও জামিনের বিস্তারিত রায়ের প্রতিলিপি জারি করেনি বম্বে হাইকোর্ট। এদিন দুপুর গড়িয়ে যাওয়ার পর সামনে আসে আরিয়ানের জামিনের শর্ত। সেই বেল কনডিশন পূরণ করতে সব ব্যবস্থা আগেই সাজিয়ে রেখেছিলেন আরিয়ানের আইনজীবীরা। তৈরি ছিল নগদ এক লাখ টাকা। সিউরিটি সার্টিফিকেট থেকে সিউরিটি হিসাবে জুহি চাওলার উপস্থিতি, কোনও খামতি ছিল না কিন্তু তা সত্ত্বেও সময়মতো সমস্ত আইনি প্রক্রিয়া সারতে পারেননি সতীশ মানেশিন্ডে।

কারাগারের নিয়ম, বিকেল সাড়ে ৫টার পর কোনও অভিযুক্তের জামিনের কাগজ গ্রহণ করে না তারা। কারণ সূর্যাস্তের পর বন্দিদের মুক্তি দেওয়ার নিয়ম নেই। এদিন সময়ের বিরুদ্ধে দৌঁড়েছেন আরিয়ানের আইনজীবীরা। তবে আর্থার রোড জেলের জমানত বক্স নিয়মমাফিক বন্ধ করে দেওয়া হল বিকাল সাড়ে ৫টায়। পরবর্তী সময়ে ইন্ডিয়া টুডে-কে জেল কর্তৃপক্ষ জানায়, আজ ছাড়া পাবেন না আরিয়ান। মুক্তির জন্য আগামীকাল শনিবার সকালের অপেক্ষা করতে হবে তাকে।

শনিবার সকাল ৬টায় ফের খুলবে আর্থার রোড জেলের জমানত বক্স। এরপর জেলের ভেতর জামিনের নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া রয়েছে। সেগুলো মেটনোর পর শনিবার বেলায় জেল থেকে মান্নতের উদ্দেশে রওনা দেবেন আরিয়ান। ২৮ দিন পর ছেলেকে দু-চোখ ভরে দেখবার অপেক্ষায় শাহরুখ-গৌরী দম্পতি।

উল্লেখ্য, গত ২ অক্টোবর রাতে মুম্বাই উপকূলের একটি প্রমোদতরী থেকে সমীরের টিম আটক করে আরিয়ান খানকে। এরপর জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ৩ অক্টোবর তাকে মাদক মামলায় গ্রেফতার করা হয়। এ পর্যন্ত বেশ কয়েকবার আরিয়ানের জামিন আবেদন ও শুনানি হয়েছে। কিন্তু জামিন মেলেনি। অবশেষে ২৮ অক্টোবর জামিন পান তিনি। এবার কারামুক্ত হয়ে ঘরে ফেরার অপেক্ষা।

Sharing is caring!