আ.লীগ জিতেছে, পরাজিত হয়েছে গণতন্ত্র-জনগণ: ফখরুল

534

মতিয়ার রহমান :–

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘নির্বাচনকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করতে নির্বাচনে গিয়েছিলাম। কিন্তু সেই অস্ত্র লুণ্ঠন করে আওয়ামী লীগ বন্দুকের জোরে ক্ষমতা দখল করেছে। এই নির্বাচনে জনগণ পরাজিত হয়েছে, বিএনপি পরাজিত হয়নি।  এই বারের কারচুপির নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জিতেছে কিন্তু গণতন্ত্র পরাজিত হয়েছে। এজন্য আন্দোলন সৃষ্টি করে সরকারকে বাধ্য করতে হবে নতুন নির্বাচন দিতে।’

সোমবার (১৭ জুন) সকালে ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ে আয়োজিত এক কর্মীসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘এ সরকার রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করে রেখেছে। কিন্তু আমরা ব্যালটে বিশ্বাস করি। অবস্থা বিচার করে আমরা ভোটে অংশ নিয়েছিলাম। এই নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের ভোট ডাকাতি করা হয়েছে। দুর্ভাগ্য আমাদের যে আমরা জনগণের অধিকার রক্ষা করতে পারিনি। একাদশ নির্বাচনের মাধ্যমে গঠিত বর্তমান সংসদ একটি অবৈধ সংসদ। এই সংসদের সদস্যরা জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়নি।’
দেশের মানুষের মুখে হাসি নেই, হাসি লুটেরাদের মুখে। হাজার হাজার কোটি টাকা ঋণ নিয়ে বাজেট হয়েছে। এই টাকা লুটেরাদের পকেটে। এই তালিকায় মন্ত্রী ও সচিবরাও রয়েছেন বলে অভিযোগ করেন বিএনপির এ মহাসচিব মির্জা ফখরুল।

ফখরুল বলেন, ‘এবার হাজার হাজার কোটি টাকা ঋণ নিয়ে বাজেট প্রণয়ন করা হয়েছে। এসব টাকা লুটেরাদের পকেটে যাবে। ধনিরা আরো ধনি হবে। গরীবরা আরো গরীব হবে। এবারের বাজেটের আয়ের বেশিরভাগ অর্থ যাচ্ছে সরকারের কর্মকর্তা-কর্মচারিদের বেতন ভাতায়। তাদের গাড়ি, অনুদানসহ সুযোগ সুবিধা বাড়ানো হয়েছে। কিন্তু কৃষকদের কথা ভাবা হয়নি। তাই সাধারণ মানুষের মুখে হাসি নেই। কারণ বড়লোকদের জন্য যে বাজেট, তাতে তারা ঋণ করে আরো বড়লোক হবে। এ থেকে মানুষকে মুক্ত করতে হবে। মানুষকে সকল অন্যায়-অবিচার থেকে রক্ষা করতে হবে।’

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘হতাশ হলে চলবে না। আন্দোলনে জিতবার জন্য মাঝে মাঝে পিছিয়ে আসতে হয়। ইনশাল্লাহ্ আমরা তৃণমূলের রাজনীতি আরো জোরদার করবো। আমাদের ছাত্রদল, যুবদল, কৃষকদলসহ সকল অঙ্গসংগঠনের কর্মীদের নিয়ে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে আইনের মাধ্যমে মুক্ত করে আনবো। ভোট, ব্যালট ছাড়া আমাদের কোন অস্ত্র নেই। আমরা নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলনে বিশ্বাসী। তাই অবিলম্বে নিরোপেক্ষ নির্বাচন দিতে হবে। আমাদের দাবী নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে।’

যৌথ কর্মী সভায় ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপি’র সভাপতি তৈমুর রহমান, জেলা বিএনপি নেতা মো. আসগর আলী, আব্দুল্লা আল মামুন, সুলতানুল ফেরদৌস নম্র, আনছারুল ইসলাম, শরিফ আহমেদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন- জেলা যুবদল সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান তুহিন, জেলা ছাত্রদল সভাপতি কায়েসসহ হরিপুর উপজেলা ছাত্রদল, যুবদল, কৃষকদলের বিভিন্ন স্তরের শত শত নেতাকর্মীরা।