• ৭ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, দুপুর ২:৩৭
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

ইবিতে বঙ্গবন্ধু ফিজিক্যালি চ্যালেঞ্জড ক্রিকেট টুর্নামেন্ট উদ্বোধন

বার্তাকন্ঠ
প্রকাশিত নভেম্বর ১৩, ২০২১, ২৩:৪৬ অপরাহ্ণ
ইবিতে বঙ্গবন্ধু ফিজিক্যালি চ্যালেঞ্জড ক্রিকেট টুর্নামেন্ট উদ্বোধন

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি।। 

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষ্যে কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) ‘বঙ্গবন্ধু ফিজিক্যালি চ্যালেঞ্জড ক্রিকেট টুর্নামেন্ট-২০২১’ শুরু হয়েছে। শনিবার (১৩ নভেম্বর) বেলা ১১টায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত  থেকে বিশ্ববিদ্যালয় কেদ্রীয় ক্রিকেট মাঠ টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম।

উদ্বোধনী ম্যাচে চট্রগ্রাম ও লালমনিরহাট ফিজিক্যালি চ্যালেঞ্জড ক্রিকেট দল প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন। তবে সংবাদ লেখা পর্যন্ত বৃষ্টিজনিত কারণে ম্যাচটি স্থগিত ছিলো।

ন্যাশনাল প্যারালিম্পিকর মহাসচিব প্রকৌশলী মাকসুদুর রহমানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন উপ-উপচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভুঁইয়া, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সাবেক যুগ্ম সচিব ও বিসিএপিসি’র সহ-সভাপতি ডাঃ আমিনুল ইসলাম।

সহকারী পরিচালক মোবিলা রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠান আরও উপস্থিত ছিলেন ইবি’র শারীরিক শিক্ষা বিভাগের পরিচালক ও টুর্নামেন্ট সমন্বয়কারী ড. মোহাম্মদ সোহেল, উপ পরিচালক শাহ আলম, আসাদুর রহমান, সহকারী পরিচালক সিদ্দিকুর রহমান প্রমুখ।

উল্লখ্য, এবারর টুর্নামেন্ট গাজীপুর ফিজিক্যালি চ্যালেঞ্জড ক্রিকেট দল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ফিজিক্যালি চ্যালেঞ্জড ক্রিকেট দল, চট্টগ্রাম ফিজিক্যালি চ্যালেঞ্জড ক্রিকেট দল, সাতক্ষীরা তুফান ফিজিক্যালি চ্যালেঞ্জড ক্রিকেট দল এবং দুরন্ত লালমনিরহাট ফিজিক্যালি চ্যালেঞ্জড ক্রিকট দল অংশগ্রহণ করন। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগিতায় টুর্নামেন্টটির আয়োজন করেন বাংলাদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন ফর দি ফিজিক্যালি চ্যালেঞ্জড (বিসিএসপিসি) এবং ন্যাশনাল প্যালিম্পিক কমিটি অব বাংলাদেশ (এনপিসিবি)।

অতিথিবৃন্দ তাদের বক্তব্যে বলেন, প্রতিবন্ধীরাও আমাদের সমাজের একটি অংশ। তারা আমাদের বোঝা নয়। কি আমরা তাদের প্রতিনিয়ত ঠোকাচ্ছি এবং বঞ্চিত করছি। এই টুর্ণামেন্টটের উদ্দেশ্যে হলো খেলাধুলার মাধ্যমে তাদের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে মুলস্রোতের সাথে একিভূত করা। ইতিমধ্যেই তারা যা করে দেখিয়েছে আমরা তা করতে পারিনি। সঠিক পরিচর্যা করলে একদিন এরাও দেশের জন্যে সম্মান বয়ে আনবে।

 বার্তাকণ্ঠ /এন

Sharing is caring!