• ২০শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সন্ধ্যা ৬:২৬
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানকে স্বাগত জানালেন সেনাপ্রধান

bmahedi
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৯, ১৯:৫২ অপরাহ্ণ
ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানকে স্বাগত জানালেন সেনাপ্রধান
মো: নজরুল ইসলাম ।। 
ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানসহ চলমান দুর্নীতি ও অপকর্মের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেওয়া কঠোর অবস্থানকে স্বাগত জানিয়েছেন সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ।

মঙ্গলবার সকালে সাভার সেনানিবাসের মিলিটারি ফার্মে আধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন দেশের প্রথম ‘মিল্কিং পার্লার’ উদ্বোধনের সময় তিনি একথা বলেন। চলমান ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান নিয়ে সেনাপ্রধান বলেন, ‘যে নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন, এটা অত্যন্ত ইতিবাচক। দুর্নীতি বা অপকর্মের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর যে শক্তিশালী অবস্থান, এর মাধ্যমে তার বহিঃপ্রকাশ হয়েছে। তাই এটাকে আমি স্বাগত জানাই। এতে করে অনেক অপরাধ কমে যাবে।’

তিনি বলেন, ‘সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্তদের সৈনিক ক্লাব কিংবা এ ধরনের দু-একটার বিরুদ্ধে যে নোটিশ হয়েছে, আমাদের নিজস্ব গোয়েন্দা সংস্থাকে সেগুলোর ব্যাপারে খোঁজ নিতে বলেছি। অবশ্যই এগুলোর ব্যাপারে যা করণীয় তা আমরা করব।’এসময় আধুনিক ‘মিল্কিং পার্লার’ সম্পর্কে জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেন, ‘দেশের বিভিন্ন জায়গায় দুধের গুণগত মান নিয়ে অনেক কথা হয়। এজন্য গুণগতমান ঠিক রাখা অনেক জরুরি যা ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে সম্ভব নয়।’

তিনি বলেন, ‘এজন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে সাশ্রয়ী, জীবাণুমুক্ত ও সময় বাঁচিয়ে এই ফার্মে অটো প্রসেসিংয়ের মাধ্যমে দুধ দোহন পদ্ধতি চালু করা হয়েছে। এই পদ্ধতি পরবর্তীতে দেশের অন্য সেনানিবাসগুলোতেও চালুর পরিকল্পনা রয়েছে।’সেনাপ্রধান আরও বলেন, কোনো এক সময় শুধু সাভারেই ডেইরি ফার্ম ছিল। এখন অনেক জায়গায় হয়েছে। এখন সেনাবাহিনী নিজেদের দুগ্ধ চাহিদা পূরণের পাশাপাশি নৌ ও বিমান বাহিনীর কাছে সরবরাহ করছে।

তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রচুর পরিমাণে গুঁড়ো দুধ আমদানি করতে হয়। তাই চাহিদার কথা চিন্তা করে সাভার, ঈশ্বরদী ও অন্য আরও জায়গায় নিজস্ব গুঁড়ো দুধের কারখানা তৈরির পরিকল্পনা করছেন তারা। এতে করে নিজেদের চাহিদা পূরণের পাশাপাশি তা বাজারেও সরবরাহ করা যাবে। ইতোমধ্যে এটার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।’এর আগে সেনা প্রধান সাভার মিলিটারি ফার্মের নতুন ‘মিল্কিং পার্লারের’ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। পরে তিনি সেখানে একটি বৃক্ষরোপণ করেন।

এসময় সেনাবাহিনীর কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল লে. জেনারেল সামছুল হক, এরিয়া কমান্ডার (সাভার) ও ৯ পদাতিক ডিভিশনের জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) মেজর জেনারেল আকবর হোসেন, মাস্টার জেনারেল অব অর্ডন্যান্স মেজর জেনারেল আবু সাঈদ সিদ্দিকসহ ঊর্ধ্বতন সেনা কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।প্রসঙ্গত, একটি অত্যাধুনিক ‘মিল্কিং পার্লারে’ জীবাণুমুক্ত ও স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে প্রতি ১৫ মিনিটে একসঙ্গে ২০টি গাভির দুধ দোহনে সম্ভব। এই প্রকল্পে ব্যয় হচ্ছে ২ কোটি ৫৭ লাখ ৫ হাজার ৯৫৩ টাকা।

Sharing is caring!