• ২০শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সন্ধ্যা ৭:৩৮
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

চাঁদা না পেয়ে জেলেদের মাছ ছিনিয়ে নিলেন ছাত্রলীগ নেতা

bmahedi
প্রকাশিত এপ্রিল ২১, ২০২১, ১৪:৩৫ অপরাহ্ণ
চাঁদা না পেয়ে জেলেদের মাছ ছিনিয়ে নিলেন ছাত্রলীগ নেতা
মোস্তাফিজুর রহমান,লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় চাঁদা না পেয়ে জেলেদের মাছ ছিনতাইয়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে এক ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে। ছিনতাইয়ে বাধা দিতে এলে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা জিয়াউর রহমান জিয়া ইউপি মেম্বার মতিয়ার রহমানকে (৪৮) মারধর করেন। গুরতর আহত ওই ইউপি সদস্য বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন।এ ঘটনায় গতকাল সোমবার রাতে ভুক্তভোগী জেলে রহমত আলী বাদী হয়ে জিয়াকে প্রধান আসামি করে দুজনের নাম উল্লেখ করে হাতীবান্ধা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। এর আগে সোমবার দুপুরে হাতীবান্ধা উপজেলার তিস্তা ব্যারাজের এলাকায় মাছ ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত জিয়াউর রহমান হাতীবান্ধা উপজেলার দোয়ানী পিত্তিফাটা এলাকার মৃত লিয়াকত আলীর ছেলে। এ ছাড়া সে দোয়ানী ইউনিট ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি। গুরুতর আহত ইউপি সদস্য মতিয়ার রহমান একই এলাকার দবির উদ্দিনের ছেলে এবং গড্ডিমারী ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য।
আর অভিযোগকারী ভুক্তভোগী রহমত আলী একই এলাকার পাহালি পরামানিকের ছেলে এবং তিস্তা ব্যারাজ মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির সভাপতি।জানা গেছে, দেশের সর্ববৃহৎ সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারাজ এলাকায় অসহায় ২২ জন জেলেকে নিয়ে গঠিত দোয়ানী তিস্তা ব্যারাজ মৎস্যজীবী সমবায় সমিতি। সেই সমিতির সভাপতি জেলে রহমত আলীর নেতৃত্বে ব্যারাজের পেছনের তিস্তা নদী থেকে জাল দিয়ে মাছ ধরে বিক্রি করেই জীবিকা নির্বাহ করেন জেলেরা। প্রায় দুই বছর ধরে চাঁদার জন্য জেলেদের নদী থেকে মাছ ধরতে বাধা দিয়ে আসতেছে জিয়া গং।এমতাবস্তায় গত ১৯ এপ্রিল সোমবার জেলেরা তিস্তা ব্যারাজ এলাকার ৩নম্বর ওয়ার্ডের তিস্তা নদীতে জাল দিয়ে মাছ ধরছিলো। এ সময় জিয়াসহ কয়েকজন সেখানে গিয়ে মাছ ধরতে বাধা দেন। যদি ১০ হাজার টাকা চাঁদা না দেওয়া হয় তাহলে মাছ ধরা যাবে না। এ সময় রহমত আলীসহ অন্যান্যরা চাঁদা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে জিয়া জেলেদের ধরা বৈরালী মাছ জোর পূর্বক নিয়ে চলে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় উভয়ের মধ্যে বাগবতিণ্ডা শুরু হলে ইউপি সদস্য মতিয়ার রহমান তাদেরকে থামানোর চেষ্টা করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে জিয়া এবং দল মেম্বারের ওপর হামলা চালায়।
ইউপি সদস্য মতিয়ার রহমান বলেন, জিয়া প্রায় জেলেদের ওপর অবিচার করে। আমি বাধা দিতে গিলে জিয়া ও তার লোকজন আমার ওপর হামলা চালায়।তিস্তা ব্যারাজ মৎসজীবী সমবায় সমিতির সভাপতি জেলে রহমত আলী বলেন, জিয়া প্রায় সময় চাঁদা দাবি করে। চাঁদার টাকা না পেয়ে মাছ নিয়ে গেছে। তাই বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।হাতীবান্ধা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফাহিম শাহরিয়ার জিহান বলেন, জিয়া বর্তমান ছাত্রলীগের কেউ না। দোয়ানী শাখা ছাত্রলীগের কমিটির সাবেক সভাপতি। এখন ছাত্রলীগের কোনো পদে বা কমিটিতেই নেই। সে সম্ভবত যুবলীগের রাজনীতি করে। হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এরশাদুল আলম বলেন, অভিযোগ পাওয়া গেছে, তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Sharing is caring!