• ৩০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৩:৫৯
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

রাজানগরের ৭নং ওয়ার্ডে প্রবীণের সাথে ভোট যুদ্ধে নবীন ছাত্রলীগ নেতা এরশাদ

বার্তাকন্ঠ
প্রকাশিত নভেম্বর ২১, ২০২১, ১৮:৪০ অপরাহ্ণ
রাজানগরের ৭নং ওয়ার্ডে প্রবীণের সাথে ভোট যুদ্ধে নবীন ছাত্রলীগ নেতা এরশাদ
এম. মতিন, চট্টগ্রাম ব্যুরো।।
সন্ন আগামী ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য রাঙ্গুনিয়ার ১নং রাজানগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৭নং ওয়ার্ডে দুই প্রবীণ আ.লীগ নেতার সাথে ভোট যুদ্ধে মেম্বার প্রার্থী হয়ে চমক দেখাতে চান নবীন ছাত্রলীগ নেতা এরশাদ।
দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে আগামী ইউপি নির্বাচনে তরুণ প্রজন্মের প্রতিনিধি হিসেবে মেম্বার পদে এরশাদ প্রতিদ্বিন্দ্বতা করছেন। ৭নং ওয়ার্ড জুরেরকুল এলাকা জুড়ে তাঁর ব্যাপক পরিচিতি ও নিজস্ব ভোট ব্যাংক রয়েছে। ভদ্র, নম্র, বন্ধুবৎসল ও বিনয়ী এ ছাত্রলীগ নেতা এরশাদুর রহমানকে কাছে পেয়ে সাধারণ মানুষও আবেগ আপ্লুত হচ্ছেন। তিনিও ভোটারদের কাছে টানতে ও সাধারণ মানুষের দোয়া চাইতে দিন-রাত নির্বাচনী এলাকা চষে বেড়াচ্ছেন।
সবকিছু মিলিয়ে আসন্ন ইউপি নির্বাচনে ৭নং ওয়ার্ডে (জুরেরকুল) মেম্বার পদপ্রার্থী হিসেবে এবার চমক দেখাতে পারেন এরশাদুর রহমান। তিনি ১৯৯০ সালে রাঙ্গুনিয়া উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নের মধ্য ঘাগড়ার জুরেরকুল এলাকার মৃত মাওলানা আবদুর রবের ঘরে জন্ম গ্রহণ করেন।
এরশাদুর রহমান বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে স্কুলের গন্ডি ফেরনোর আগেই ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সাথে জড়িয়ে পড়েন। ২০০৪ সালে রানীর হাট ডিগ্রী কলেজের সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০০৪ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত সফলতার সাথে কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন শেষে ২০১২ সালে রাজানগর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০১২ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত  ইউনিয়ন ছাত্রলীগের দায়িত্ব পালন করে ২০১৮ সালের দ্বি-বার্ষিক কাউন্সিলের মাধ্যমে রাঙ্গুনিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বভার গ্রহন করেন। বর্তমানে উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক  হিসাবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। এরই মধ্যে ১/১১-এর সময়ও বিএনপি জামায়াতের জ্বালাও পোড়াও আন্দোলনের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের প্রতিরোধ- সংগ্রামে রাজপথে সামনের সারিতে থেকে সোচ্চার ও অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন।
এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, এরশাদ ৭নং ওয়ার্ড তথা ইউনিয়নের বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের পৃষ্টপোষাকতা করে আসছেন। এতে করে এলাকায় তাঁর একটি স্বক্রীয় অবস্থান তৈরী হয়েছে। তরুণ প্রজন্মের কাছে তার গ্রহণযোগ্যতা বাড়ছে। গরীব-দুঃখী মানুষের বিপদে তিনি এগিয়ে আসেন। এলাকার বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের বিভিন্ন কর্মকান্ডে সহযোগিতা করেন। আসন্ন নির্বাচনে মেম্বার পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলে তিনি চমক দেখাতে পারে বলে মনে করেন স্থানীয় অনেকেই। স্পষ্টতঃ তরুণদের মধ্যে ছাত্রলীগ নেতা এরশাদের ব্যাপক গ্রহণ যোগ্যতা রয়েছে।
মেম্বার প্রার্থী এরশাদুর রহমান বলেন, ২০০৪ সাল থেকে  ছাত্র রাজনীতিতে যুক্ত হয়ে, ছাত্রলীগের একজন সক্রিয় কর্মী হিসাবে বিভিন্ন আন্দোলনে-সংগ্রামে দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট ছিলাম। এবার আসন্ন ইউপি নির্বাচনে রাজানগর ইউনিয়নে ৭নং ওয়ার্ড থেকে মেম্বার প্রার্থী হয়ে এলাকার অবেহেলিত ও অসহায় মানুষের পাশে থেকে কাজ করতে চাই। এলাকার  মানুষের মধ্যে নিজেকে সর্বদাই সেবার ব্রত নিয়ে তাদের পাশে আছি থাকবো এবং এলাকার উন্নয়নে নিজেকে উৎসর্গ করতে চাই- ইনশাআল্লাহ।
তিনি আরও বলেন, এলাকার সাধারণ মানুষ আমাকে ভালোবাসে। তাই আমি নির্বাচিত হলে প্রতিশ্রুতি নয়, এর বাস্তবায়নে কাজ করে যাব। আমি ৭নং ওয়ার্ডকে সন্ত্রাস, দখলবাজ, চাঁদাবাজ ও মাদকমুক্ত করে একটি মডেল ওয়ার্ড হিসেবে গড়ে তুলবো। এজন্য আমি ৭নং ওয়ার্ডবাসীর সকলের কাছে আগামী ২৮ তারিখ আমার মোরগ প্রতিকে ভোট ও দোয়া চাই।
 বার্তাকণ্ঠ/এন

Sharing is caring!