• ১৬ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ২রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, দুপুর ২:১৫
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

‘জয় হিন্দ’ বলায় রাবি ভিসির অপসারণ দাবি কাদের সিদ্দিকীর

bmahedi
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৯, ২২:২২ অপরাহ্ণ
রোকনুজ্জামান রিপন ।। 

জয় হিন্দ স্লোগান দেয়ায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানের অপসারণ দাবি করেছেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর আবদুল কাদের সিদ্দিকী।

সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের আব্দুস সালাম হলে চলমান দুর্নীতি বিরোধী অভিযান ও বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট সম্পর্কে দলীয় বক্তব্য তুলে ধরতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, টানা ৯ মাস লড়ে দেশ স্বাধীন করেছি ‘জয় হিন্দ’ স্লোগান শোনার জন্য নয়। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসি এই স্লোগান দিয়ে ৩০ লক্ষ শহীদদের আত্মত্যাগকে অসম্মান করেছেন। মুক্তিযোদ্ধাদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ ঘটিয়েছেন। এটি চরম ঔদ্ধত্য ও রাষ্ট্রদ্রোহিতা। এই মুহূর্তে তার বহিষ্কার দাবি করছি।

উল্লেখ্য, গত ২৬ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ সিনেট ভবনে এক অনুষ্ঠানে রাবি ভিসি ‘জয় হিন্দ’ স্লোগান দেন। একজন স্বাধীন দেশের নাগরিক হয়ে অন্য দেশের স্লোগান কীভাবে দেন প্রশ্ন তুলে ভিসি অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানকে ক্ষমা চাওয়ার দাবি তুলেছেন অনেকেই।

সংবাদ সম্মেলনে সরকারকে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়ে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেছেন, জাতি এখন এক দু:সময় অতিক্রম করছে। এ অবস্থায় একটি আন্তরিক জাতীয় সংলাপ ছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে বাঁচাতে পারবেন না।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, আওয়ামী লীগে যদি এত দুর্নীতি থাকে তাহলে তো এদের ক্ষমতায় থাকারই অধিকার নেই। সত্যিকার অর্থে এ সরকার গণতান্ত্রিক সরকার না। জনগণের ভোটে নির্বাচিত সরকার না।

তিনি বলেন, অবস্থাদৃষ্টে মনে হয়, সমস্ত অপরাধের দায়ভার যেন কেবল যারা রাজনীতি করে তাদেরই, বাকি সবাই ধোয়া তুলসী পাতা। প্রশাসনের মধ্যে সুবিধাভোগীদেরও চিহ্নিত করে গ্রেপ্তার করতে হবে। প্রশাসনের ছত্রচ্ছায়ায় ও পৃষ্ঠপোষকতা ছাড়া রাজধানীর কেন্দ্রস্থলে মদ, জুয়া ও ক্যাসিনো সংস্কৃতির বিকাশের সুযোগ নেই। এখনো সুবিধাভোগীরা পর্দার আড়ালে রয়ে গেছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের নেতা নাসরিন কাদের সিদ্দিকী, প্রিন্সিপাল ইকবাল সিদ্দিকী। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন দলের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান তালুকদার বীর প্রতীক।

Sharing is caring!