• ২৬শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১০ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সকাল ১০:২৪
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

টিংকু দাশের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী অনুষ্ঠানে ডা.শাহাদাত হোসেন

বার্তাকন্ঠ
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১, ১১:১৬ পূর্বাহ্ণ
টিংকু দাশের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী অনুষ্ঠানে ডা.শাহাদাত হোসেন
প্রেস বিজ্ঞপ্তি ।।
জাতীয় সংসদ নির্বাচন আসার আগেই বিএনপি নির্বাচন কমিশনকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করছে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহবায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, নির্বাচন আসার আগে নয়, এই নির্বাচন কমিশন শুরু থেকেই সমালোচিত ও আওয়ামী লীগের আজ্ঞাবহ কমিশন হিসেবে কাজ করেছে। কাজেই নতুন করে এ নির্বাচন কমিশনকে বিতর্কিত করার প্রশ্নই আসে না। তাঁর অধীনে বিগত দিনে যতগুলো নির্বাচন হয়েছে সবগুলো ছিল একদলীয় এবং সরকারের প্রেসক্রিপশনে যাদের নাম ছিল তাদের বিজয়ী ঘোষণা করেছে এই নির্বাচশন কমিশন। বাংলাদেশের সাধারণ মানুষ থেকে বিশ্বের মানুষ দেখেছে দিনের ভোট রাতে হয়েছে, ব্যালট বাক্সে আগে থেকেই নৌকার সীল মারা ছিল। যা বিবিসি বাংলাসহ আন্তর্জাতিক মিডিয়াতে প্রকাশ হয়েছে। এই নির্বাচন কমিশন আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠনের মতো পরিচালিত হয়েছে। এই নির্বাচন কমিশন ,এই সরকারের একটি আজ্ঞাবহ কমিশন। আগামীতে এই ধরণের নির্বাচন কমিশনের বাংলাদেশের জনগণ চাই না।
তিনি আজ ১৮ সেপ্টেম্বর শনিবার বিকালে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র সাবেক দপ্তর সম্পাদক পিংকু দাস এর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।
ডা. শাহাদাত হোসেন আরো বলেন, টিংকুদাশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের দুরন্ত মেধাবী ছাত্র সংগঠন অনবদ্য একটি সৃষ্টি। অসীম দূর সাহসিকতার সহিত জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নেতৃত্ব দিয়েছেন। তার মেধা, মনন, কথা বলার ভাষা জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কর্মীদেরকে আকৃষ্ট করত। অতি সহজে ছাত্রদের মন জয় করে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের পতাকা তলে নিয়ে আসার কারিশমাটিক গুণাবলী তার কাছে ছিল। তার মত সাহসী নেতৃত্ব দেওয়ার যোগ্য ছাত্রনেতা পাওয়া খুব কঠিন।
প্রধান বক্তা চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর বলেন, টিংকুদাশ শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শ আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে জাতীয়তাবাদী দলের কর্মকা-কে ভালোবেসে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল করেছিলেন। তার নেতৃত্বে ও কর্মের গুণাবলীতে আমরা জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি চট্টগ্রাম মহানগর শাখায় যুগ্মসম্পাদক পদমর্যাদায় দপ্তর সম্পাদক করেছিলাম কিন্তু তার অকালমৃত্যুতে আমরা একজন মেধাবী যোগ্য সংগঠক কে হারিয়েছি।
সভাপতির বক্তব্যে চাকসুর ভিপি নাজিম উদ্দীন বলেন, টিংকু দাশের মতো আদর্শবান তরুণ ও মেধাবী ছাত্রনেতার এ সময়ে বড় প্রয়োজন। আমাদের ছাত্রনেতারা যারা আছেন, তাদেরকে টিংকু দাশের যে আদর্শ, যে আপোষহীন নেতৃত্ব গুণাবলী ছিল তা ধারণ করে ছাত্রদলকে রাজপথে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে।
নগর ছাত্রদলের সাবেক সহ সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন শাহীনের সঞ্চলনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সি. যুগ্ম আহবায়ক আলহাজ্ব এম এ আজিজ, নাজিমুর রহমান, এস কে খোদা তোতন, কাজী বেলাল উদ্দিন, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, আবদুল মান্নান, আহবায়ক কমিটির সদস্য হারুন জামান, আহমেদুল আলম চৌধুরী রাসেল, কামরুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাব্কে সহসভাপতি এম এ হাশেম রাজু, থানা বিএনপির সভাপতি মন্জুর রহমান চৌধুরী, মহিলা দলের সভানেত্রী মনোয়ারা বেগম মনি, বাকলিয়া থানা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি এম আই চৌধুরী মামুন, কোতোয়ালী থানার সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জাকির হোসেন, সাবেক ছাত্রনেতা তানভীর আহমদ, স্বেচ্ছাসেবকদল নেতা জিয়াউর রহমান জিয়া, ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক সামিয়াত আমিন জিসান, জিএম সালাউদ্দীন কাদের আসাদ, আরিফুর রহমান মিঠ, টিংকু দাশ স্মৃতি সংসদের পলাশ চৌধুরী, আনন্দ বৌদি ভিক্ষু, রাজীব দাশ তমাল, রাশেদুল ইসলাম রাশুদ, অপু চৌধুরী আকাশ, আরমান চৌধুরী সুমন, এ সময় টিংকুর সহ ধর্মিনী পলি দত্ত সহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!