• ২২শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৮ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, রাত ১২:২৩
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

দুর্নীতি নির্মূলে ০১৭৬৬৬৯৯৯৯ নাম্বারে কল দিতে বললেন পলক

bmahedi
প্রকাশিত আগস্ট ৩১, ২০১৯, ২০:০৬ অপরাহ্ণ
মো: হাফিজুর রহমান ।। 

সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজি বন্ধে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের ঘোষণার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সিংড়ার পরিবহন সেক্টরের সব চাঁদাবাজি বন্ধ করেছে উপজেলা প্রশাসন। আজ ৫টায় নাটোরের সিংড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সুশান্ত কুমার মাহাতোর নেতৃত্বে সিংড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে শ্রমিক কল্যাণ মালিক শ্রমিকের অবৈধ চাঁদা বন্ধ করে দেয়া হয়।

সিংড়া বাস টার্মিনাল এলাকায় অটোরিকশা চালকদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের সময় নোয়ার হোসেন নামের একজনকে আটক করা হয়।

ইউএনও সুশান্ত কুমার মাহাতো বলেন, শনিবার বিকেলে সিংড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত নাগরিক সমাবেশে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক সিংড়ার সব চাঁদাবাজি, সন্ত্রাস, মাদক এবং জঙ্গিবাদ নির্মূলে কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। প্রতিমন্ত্রীর সেই হুঁশিয়ারির ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সব সেক্টরে চাঁদাবাজি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। চাঁদা তোলার বেশকিছু রশিদ জব্দ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, দীর্ঘ দিন ধরে বিভিন্ন সংগঠনের নাম দিয়ে বাস-ট্রাক, রিকশা, সিএনজি এবং অটোরিকশার চালক-মালিকদের কাছ থেকে চাঁদা তুলে আসছিল একটি গোষ্ঠী। প্রভাবশালী চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব হচ্ছিল না। কিন্তু প্রতিমন্ত্রী পলক দ্বিতীয় মেয়াদে শপথ গ্রহণের পর থেকে চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

সুশান্ত কুমার মাহাতো বলেন, সিংড়া উপজেলাতে আর কেউ অবৈধভাবে যেন পরিবহন খাত থেকে টাকা আদায় করতে না পারে সেজন্য সব ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। সিংড়া উপজেলা থাকবে চাঁদাবাজিমুক্ত।

এদিকে, পরিবহন সেক্টরে সব ধরনের চাঁদাবাজি বন্ধ হওয়ায় প্রতিমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন সিংড়া মোটর মালিক শ্রমিক নেতারা। মোটর মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাসান ইমাম বলেন, সিংড়ায় সব ধরনের চাঁদাবাজি বন্ধ করতে প্রতিমন্ত্রীকে সহযোগিতা করা হচ্ছে। কোনও গরিব মানুষ যাতে চাঁদার কবলে না পড়ে। সেজন্য সবাইকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সিংড়া কোট মাঠে উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগ আয়োজিত নাগরিক সমাবেশে প্রতিমন্ত্রী পলক সিংড়ার সাব-রেজিস্ট্রার অফিস ও পরিবহন সেক্টরে চাঁদা আদায় বন্ধ এবং সিংড়া থেকে চাঁদাবাজদের উৎখাত করা হবে বলে ঘোষণা দিয়ে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

তখন চলনবিলের কৃষক আর সাধারণ মানুষকে যে কোনও অনিয়ম ও দুর্নীতির তথ্য জানিয়ে দুর্নীতি নির্মূলে সহায়তা করার জন্য নিজের মোবাইল ফোনের নস্বর (০১৭৬৬৬৯৯৯৯) দেন জুনাইদ আহমেদ পলক।

Sharing is caring!