• ২৫শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১০ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, রাত ১:৪০
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

নিজেদের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে আটটি অভিযোগ আমলে নিল দুদক

bmahedi
প্রকাশিত অক্টোবর ২২, ২০১৯, ১৯:৫৪ অপরাহ্ণ
নিজেদের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে আটটি অভিযোগ আমলে নিল দুদক
মো: ইদ্রিস আলী :=

কমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে উত্থাপিত আটটি অভিযোগ আমলে নিয়েছে দুদকের ‘অভ্যন্তরীণ দুর্নীতি দমন কমিটি’।দুদকের প্রধান কার্যালয়ে কমিশনের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ-এর সভাপতিত্বে মঙ্গলবার ‘অভ্যন্তরীণ দুর্নীতি দমন কমিটির’ এক সভায় এসব অভিযোগ আমলে নেওয়া হয়।

সভায় কমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ কর্তৃক আইনি ক্ষমতা প্রয়োগের ক্ষেত্রে কেউ কোনো প্রকার দুর্নীতি বা অনিয়মের আশ্রয় গ্রহণ করেছেন কিনা কিংবা কোন ব্যক্তিকে অযথা হয়রানি করেছেন কিনা অথবা ক্ষমতার অপব্যবহারসহ অন্য কোনো অপরাধ করছেন কিনা এজাতীয় কয়েকটি অভিযোগ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। পরে এ জাতীয় আটটি অভিযোগের বিষয়ে প্রশাসনিক অনুসন্ধান/তদন্ত / বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

সভায় দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেন, কমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ কমিশন প্রদত্ত আইন ও বিধিমালার আওতায় ক্ষমতা প্রয়োগ করে থাকেন। তাদের কেউ যদি এই ক্ষমতা প্রয়োগের ক্ষেত্রে অনিয়ম, দুর্নীতি, নির্ধারিত সময়ে অনুসন্ধান বা তদন্ত কার্য সম্পন্ন না করে কিংবা ক্ষমতার অপব্যবহার করে কাউকে হয়রানি করেন- তাহলে অভ্যন্তরীণ দুর্নীতি দমন কমিটি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ অব্যাহত রাখবে। যারা কমিশন প্রদত্ত ক্ষমতা প্রয়োগ করবেন, তাদেরকে অবশ্যই জবাবদিহি করতে হবে।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কমিশনের অভ্যন্তরীণ দুর্নীতি দমন কমিটির সদস্য দুদক সচিব মুহাম্মদ দিলওয়ার বখ্ত, সদস্য মহাপরিচালক (লিগ্যাল) মো. মফিজুর রহমান ভূঞা, মহাপরিচালক (প্রশাসন) মো. জহির রায়হান, পরিচালক (প্রশাসন ও মানবসম্পদ) জালাল সাইফুর রহমান প্রমুখ।

এদিকে দুদকের প্রধান কার্যালয়ে কমিশনের পরিচালক, উপপরিচালক, সহকারী পরিচালক পদমর্যাদার কর্মকর্তাদের এক প্রশিক্ষণ কোর্সে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেন, দুদক হচ্ছে দুর্নীতি প্রতিরোধ ও দমনের জন্য গঠিত প্রতিষ্ঠান। দেশের উন্নয়নে সবাই প্রতিষ্ঠানটিকে শক্তিশালী হিসেবে দেখতে চায়। আর এ জাতীয় প্রতিষ্ঠান তখনই শক্তিশালী হয়, যখন ওই প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা -কর্মচারীদের স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও সর্বোচ্চ চারিত্রিক দৃঢ়তা থাকে।

তিনি কর্মকর্তাদের সর্বোচ্চ সততা ও স্বচ্ছতার দায়িত্ব পালনের অনুরোধ জানিয়ে বলেন, অভিযোগের অনুসন্ধান ও তদন্তের গোপনীয় তথ্যের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা কর্মকর্তাদের দায়িত্ব। তথ্য পাচারের মতো অনৈতিক কাজে কেউ জড়িত হলে তাদের বিরুদ্ধেও প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ।

তিনি আরও বলেন, দুদকের কাজ-কর্ম যথাযথভাবে সময়মতো সম্পন্ন করার জন্য যে সকল পদ্ধতিগত সংস্কার করা হয়েছে বা হবে সেগুলো আমলে নিয়ে আপনারা সব কাজ সম্পন্ন করবেন মর্মে আমি বিশ্বাস করি।

Sharing is caring!