• ১৯শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৫ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সকাল ৯:০৯
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

নির্দেশের অপেক্ষা নয়, রাস্তায় নামুন: নেতাকর্মীদের গয়েশ্বর

bmahedi
প্রকাশিত নভেম্বর ৮, ২০১৯, ২১:৪১ অপরাহ্ণ
নুরুল ইসলাম :=

দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে কোনো নির্দেশের অপেক্ষা না করে রাস্তায় নামতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। আদালতে ঘুরে খালেদা জিয়ার জামিন হবে না বলেও মনে করেন তিনি।শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিচ্ছিলেন বিএনপির এই শীর্ষ নেতা। তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হল রুমে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে তারেক পরিষদ ঢাকা মহানগর উত্তর এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে গয়েশ্বর বলেন, ‘অনেক সময় নেতারা নির্দেশ দিতে পারেন না। তাই বলে কর্মীদের বসে থাকলে চলবে না। একাত্তরে নেতারা নির্দেশ দিতে পারেননি। তখন অখ্যাত একজন মেজর স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন। কেউ প্রশ্ন করেনি, তুমি কে হে ঘোষণা দেয়ার? সবাই ঘোষণার সাথে সাথে যুদ্ধে নেমেছিল। সুতরাং আর প্রেসক্লাবে নয়, যা হবার রাস্তায় হবে।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, ‘আমাদের এখন সময় হয়েছে রাস্তায় নামার। আদালতের মাধ্যমে নেত্রীর মুক্তি হবে না। এটা বুঝে গেছি। সুতরাং আপনাদের যদি প্রাণের দাবি তীব্র হয় খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই, তাহলে আপনারা প্রস্তুত হন। নেতা ডাকলো কী ডাকলো না সেটা দেখার দরকার নেই। আমার অধিকার আছে খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য পথে নামার।’

গয়েশ্বর বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি আমাদের নেতৃবৃন্দ কিংবা দল নিশ্চয়ই বিষয়টা বিবেচনায় রাখবেন। বিষয়টা আর দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করার নয়, এখনই সিদ্ধান্ত নেয়ার সময়।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কথা রাখেননি মন্তব্য করে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও কৃষক দলের আহ্বায়ক শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘শেখ হাসিনা বলেছিলেন, উন্নত গণতন্ত্র দেবেন, দশ টাকা সের চাল খাওয়াবেন, ঘরে ঘরে চাকরি দেবেন, কৃষকদের ফ্রি সার দেবেন। সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের কবিতা আছে না- কেউ কথা রাখেনি। আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও কথা রাখেননি।’

দুদু বলেন, ‘আমাদের আন্দোলনের কৌশল ঠিক করতে হবে। রাস্তার আন্দোলন হবে কৌশলগত কারণে। আমরা কীভাবে রাস্তায় নামবো এবং কীভাবে আন্দোলন করে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনবো এই পথটি আমরা বের করতে পারলেই সরকারের পতন হবে। আজকে বের করতে পারলে কালকেই সরকারের পতন হবে। কালকে বের করতে পারলে পরশুদিন তাদের পতন হবে।’

তারেক পরিষদ ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি সাহেদুল ইসলাম লরেনের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য মেজর (অব.) মো. হানিফ, যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন হাসান, কৃষক দলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য লায়ন মিয়া মোহাম্মদ আনোয়ার, কে এম রফিকুল ইসলাম রিপন প্রমুখ।

Sharing is caring!