• ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, রাত ৪:৪১
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

পুলিশকে ফোন করার অভিনয় করতে গিয়ে …

বার্তাকন্ঠ
প্রকাশিত নভেম্বর ৭, ২০২১, ১৭:০৮ অপরাহ্ণ
পুলিশকে ফোন করার অভিনয় করতে গিয়ে …

যশোর প্রতিনিধি ।।

নিরামপুরের হাবিবুর রহমান মিন্টু (২৮) নামে এক যুবককে অভয়নগর থেকে আটক করেছে র‌্যাব। শনিবার (৬ নভেম্বর) দুপুরে আটকের পর সন্ধ্যায় মিন্টুকে মনিরামপুর থানায় সোপর্দ করেছে র‌্যাব যশোর-৬ এর একটি দল।

মিন্টু মনিরামপুর উপজেলার ঢাকুরিয়া ইউনিয়নের ব্রক্ষ্মপুর গ্রামের আব্দুস সবুরের ছেলে।তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, স্ত্রীকে মারপিটের প্রতিবাদ করায় সে তার বাবা আব্দুস সবুরকে করাত দিয়ে হাত ও পায়ের রগ কেটে দেন। এ সময় তিনি বাবাকে শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা করেন। এ ঘটনায় মিন্টুর মা ফরিদা বেগম বাদী হয়ে ছেলের বিরুদ্ধে মনিরামপুর থানায় মামলা করেন। সেই থেকে মিন্টু বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে অভয়নগরের নওয়াপাড়ায় মাজার এলাকায় কাজ করতেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, দুই সন্তানের জনক মিন্টু পেশায় নির্মাণ শ্রমিক। প্রায়ই তিনি স্ত্রী আসমা খাতুনকে মারপিট করতেন। গত জুনের মাঝামাঝি একদিন স্ত্রীকে মারপিট করার প্রতিবাদ করেন আব্দুস সবুর। তখন তিনি ছেলেকে শাসন করার জন্য ঘরের পিছনে গিয়ে পুলিশকে ফোন করার অভিনয় করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মিন্টু করাত দিয়ে তার বাবার হাত ও পায়ের রগ কেটে দেন। একই সাথে গলায় গামছা পেঁচিয়ে তিনি বাবাকে হত্যার চেষ্টা করেন। খবর পেয়ে স্থানীয়রা আব্দুস সবুরকে উদ্ধার করে মনিরামপুর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

মিন্টুর স্বজনরা জানান, থানায় মামলা হওয়ার পর থেকে মিন্টুর স্ত্রী ও সন্তানদের ফেলে অভয়নগরের নওয়াপাড়া এলাকায় পালিয়ে যান। সেখানে নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করতেন মিন্টু। সে কারণে পুলিশ মিন্টুকে ধরতে পারেনি। অবশেষে র‌্যাব মিন্টুকে নওয়াপাড়া থেকে আটক করেন।

মনিরামপুর থানার ডিউটি অফিসার এএসআই আব্দুর রহমান বলেন, অনেক আগেই মিন্টুর নামে দায়ের করা মামলায় আদালতে চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ। রবিবার(৭ নভেম্বর) সকালে আটক মিন্টুকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। পরে আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

 বার্তাকণ্ঠ/এন

Sharing is caring!