• ৫ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ২১শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সকাল ১১:১৫
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

বাংলাদেশ-ভারত টেস্ট: ইডেনে, শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি আমন্ত্রিত

bmahedi
প্রকাশিত অক্টোবর ১৮, ২০১৯, ০৭:৫৫ পূর্বাহ্ণ
নুরুজ্জামান লিটন :=

কলকাতার ইডেন গার্ডেনস মাঠে অনুষ্ঠেয় বাংলাদেশ-ভারত টেস্টে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নতুন সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী।

ইডেনে আগামী ২২ নভেম্বর থেকে ভারত-বাংলাদেশ টেস্ট শুরু হবে। ইডেনে বাংলাদেশ প্রথম টেস্ট খেলতে আসছে। এ ঐতিহাসিক মুহূর্তকে স্মরণীয় করে রাখতে বেশকিছু কর্মসূচি নেয়া হচ্ছে।

এজন্য দুই প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। ২০১১ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে মোহালিতে ভারত-পাকিস্তান সেমিফাইনাল ম্যাচে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের সঙ্গে পাকিস্তানের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রাজা গিলানি উপস্থিত ছিলেন। পশ্চিমবঙ্গে সিএবি প্রেসিডেন্ট হিসেবে তিন বছর আগে ইডেনে ভারত-পাকিস্তান টি ২০ বিশ্বকাপ ম্যাচে অমিতাভ বচ্চনকে দিয়ে জাতীয় সঙ্গীত গাইয়েছিলেন সৌরভ। এ সময় পাকিস্তানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান উপস্থিত ছিলেন।

এবার ভারতীয় বোর্ড প্রেসিডেন্ট (সভাপতি) হিসেবে সৌরভ ইডেনে ভারত-বাংলাদেশ টেস্ট উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনাকে হাজির করে আরও বড় চমকের উদ্যোগ নিচ্ছেন।ভারতীয় ক্রিকেটের বোর্ড সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর সৌরভকে দেশ-বিদেশের নানা প্রান্ত থেকে শুভেচ্ছা জানানো হচ্ছে। তাকে রোহিত শর্মা, অজিঙ্ক রাহানে, রবিচন্দ্রন অশ্বিনরা মেসেজ পাঠিয়েছেন।

হরভজন সিং, বীরেন্দ্র শেহবাগ, জহির খানের মতো ক্রিকেটারও তাকে শুভেচ্ছাবার্তা পাঠিয়েছেন। মেসেজ এসেছে ব্রায়ান লারা থেকে শেন ওয়ার্ন ও কেভিন পিটারসেন থেকে নাসের হুসেনের।আগামী ২৪ অক্টোবর টেস্ট দল নির্বাচনী বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। যেখানে ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলির সঙ্গে প্রথম দেখা হবে নতুন বোর্ড প্রেসিডেন্ট সৌরভের। সেখানে জাতীয় নির্বাচকদের সঙ্গে ধোনিকে নিয়েও তার কথা হবে।

এদিকে কলকাতার গুরুত্বপূর্ণ ১০ জায়গাসহ বাংলার বিভিন্ন স্থানে সৌরভকে নিয়ে হোর্ডিং পড়ছে! এতে সৌরভের বিশাল ছবিসহ লেখা হচ্ছে- ‘দ্য প্রেসিডেন্ট প্রিন্স। দ্য নিউ প্রেসিডেন্ট অব বিসিসিআই।’ সৌরভের প্রতি স্বতঃস্ফূর্ত ভালোবাসা আর শ্রদ্ধা দেখিয়ে তার কিছু শুভানুধ্যায়ী এগুলো করছেন। এর আগে রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ছাড়া কাউকে নিয়ে এ রকম হোর্ডিং পড়েনি। সৌরভকে নিয়ে হোর্ডিং পড়ছে। কারণ তিনি মহারাজ, তিনি দাদা, তাই তিনি চিরকালীন ব্যতিক্রম!

Sharing is caring!