• ৭ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৩:১৭
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

বিশ্বচ্যাম্পিয়ন উইন্ডিজকে গুঁড়িয়ে ইংল্যান্ডের বিশাল জয়

বার্তাকন্ঠ
প্রকাশিত অক্টোবর ২৪, ২০২১, ০৮:৫০ পূর্বাহ্ণ
বিশ্বচ্যাম্পিয়ন উইন্ডিজকে গুঁড়িয়ে ইংল্যান্ডের বিশাল জয়

স্পোর্টস ডেস্ক।। অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকার লো স্কোরিং ম্যাচের রেশ কাটাতে যেন ঝাঁকুনি হয়ে এল ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচ। আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সপ্তম আসরে সুপার টুয়েলভের প্রথম দিনে ক্যারিবীয়দের ৫৫ রানের লজ্জায় ডুবিয়েছে ইয়ন মরগানের দল।

টি-টোয়েন্টিতে এবারই প্রথম ১০০ রানের নিচে অলআউট হয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। যদিও জয়ের বন্দরে পৌঁছাতে ইংল্যান্ড হারায় ৪ উইকেট। দুবাইয়ে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৮ রানে এভিন লুইসকে হারিয়ে ফেলে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ৯ রানে ফেরেন লেন্ডল সিমন্স। এরপর প্রতিরোধের আভাস দেন ক্রিস গেইল।

তবে দলের একমাত্র ব্যাটার হিসেবে দুই অঙ্কের রানের দেখা পাওয়া গেইল ১৩ বলে ১৩ রান করে বিদায় নিলে তাসের ঘরের মত ভেঙে পড়ে ক্যারিবীয়দের ব্যাটিং অর্ডার। মঈন আলী, টিমাল মিলসদের সৃষ্টি করা চাপে খেই হারিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অলআউট হয় ১৪.২ ওভারে, মাত্র ৫৫ রানে। বিশ্বকাপের ইতিহাসে এটি তৃতীয় সর্বনিম্ন দলীয় স্কোর।

বল হাতে এদিন বিধ্বংসী রূপ নেন একাদশ ওভারে বল হাতে তুলে নেওয়া আদিল রশিদ। এই লেগ স্পিনার মাত্র ২ রানের খরচায় ৪ উইকেট শিকার করে গড়েন টি-টোয়েন্টিতে ইংল্যান্ডের হয়ে সেরা বোলিং ফিগার। এতদিন সেরা বোলিং ফিগার ছিল ক্রিস জর্ডানের, যিনি ক্যারিবীয়দের বিপক্ষেই ৪ উইকেট শিকার করেছিলেন ৬ রানের খরচায়।

অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকার লো স্কোরিং ম্যাচের রেশ কাটাতে যেন ঝাঁকুনি হয়ে এল ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচ। আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সপ্তম আসরে সুপার টুয়েলভের প্রথম দিনে ক্যারিবীয়দের ৫৫ রানের লজ্জায় ডুবিয়েছে ইয়ন মরগানের দল।
বল হাতে বিধ্বংসী ছিলেন আদিল রশিদ।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ইংল্যান্ডও ব্যাট হাতে ধুঁকেছে। স্বল্প পুঁজি নিয়ে অবশ্য ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচ জিততে পারেনি। জস বাটলারের ২২ বলে ২৪ রানের ইনিংসে ইংল্যান্ড জয় তুলে নেয় ৬ উইকেট ও ৭০ বল হাতে রেখে।

ফাবিয়ান অ্যালেনের চোটে বিশ্বকাপ দলে ডাকা পাওয়া আকিল হোসেন পাওয়ারপ্লেতে বল করে শিকার করেন দুটি উইকেট, ২৪ রানের খরচায়। একটি উইকেট শিকার করেন রবি রামপাল।

Sharing is caring!