• ১৮ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ২রা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সকাল ১১:১৫
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

বেনাপোল-ঢাকা সরাসরি এক্সপ্রেস ট্রেন চালু : কৃতঞতা কাস্টমস কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরী ও অর্থ উপদেস্টা ড. মশিউর রহামানের প্রতি

bmahedi
প্রকাশিত জুলাই ৭, ২০১৯, ০৭:৫৩ পূর্বাহ্ণ

মহসিন মিলন ।। 

আগামী ২৫ জুলাই চালু হচ্ছে বেনাপোল ঢাকা সরাসরি বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেন। ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে দাবি উঠেছে বুলেট ট্রেন সার্ভিস চালুর। গতকাল বেনাপোল কাস্টমস ও বন্দর কতৃপক্ষের সাথে ব্যবসায়ীদের দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে এ দাবি করা হয়।বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে গড়ে প্রতিদিন ১০/১২ হাজার পাসপোর্ট যাত্রী যাতায়াত করে ভারতে।

যাত্রীদের দুর্ভোগ ও দু দেশের বানিজ্যিক  সম্প্রসারনের কথা ভেবে গত বছর বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরীর নেতৃত্বে বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস এসোসিয়েশনের উদ্যোগে বেনাপোল-ঢাকা রেল সার্ভিস চালুর জন্য আবেদন করা হয় মন্ত্রনালয়ের কাছে।

বেনাপোল বাসীর দাবির আবেদনটি মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেস্টা ড. মশিউর রহমানের কাছে তদবির করেন বেনাপোল কাস্টস কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরী। দীর্ঘ এক বছর চেস্টার পর অবশেষে চালূ হচ্ছে বেনাপোল- ঢাকা সরাসির ট্রেন সার্ভিস। আগামী ২৫ জুলাই মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই ট্রেনের শুভ উদ্বোধন করবেন বলে আশা করা হচেছ।

গতকাল রাতে কশিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরীর সাথে ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের বৈঠক চালাকালিন ট্রেন সার্ভিসকে বেনাপোল এক্সপ্রেস নাম করনের জন্য রেলের অতিরিক্ত প্রকৌশলী, প্রধান মন্ত্রীর দফতরের ডিজি ও সর্ব শেষ প্রধান মন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেস্টা ড. মশিউর রহমানের সাথে ট্রেলিফোনে অনুরোধ করেন বেনাপোল এক্সপ্রেস নাম করনের জন্য।

বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরী বলেন , বর্তমানে নিরাপদ যাতায়াতের জনপ্রিয় বাহন ট্রেন । নিরাপদ, আরামদায়ক ও প্রাকৃতিক দৃশ্য কেবল ট্রেনেই উপভোগ্য। গতবছরও আমরা বলেছি, আহ্, যদি কেবল বোনপোলের জন্য দ্রুত গতির একটা ট্রেন হতো! কেবল বোনপোলের ট্রেন। স্বপ্ন বলে কথা! ঠিক এমন একটা স্বপ্ন ঘণীভূত খুঁজে পায় বুলেট ট্রেন। চল্লিশ মিনিটে বেনাপোল আগমন। স্বপ্ন থেকে আলো! আলো থেকে আলোচনা।

জুলাইয়ে ২০১৮ সিএন্ডএফ নেতৃবৃন্দের সাথে কমিশনারের কক্ষে এ নিয়ে কথা বলি; । ১০ জুলাই উড়াল রেলের (বুলেট ট্রেন) স্বপ্ন নিয়ে ফেসবুকে পোস্টও দেয়া হয়। পরদিন এটি বেনাপোলের অনলাইন নিউজ পোর্টাল বার্তা কন্ঠে  প্রকাশ হয়।  সিদ্ধান্ত হয়, বেনাপোলে বুলেট ট্রেন দেয়ার জন্য আবেদন জানানো হবে; ।

মাননীয় অর্থউপদেষ্টার প্রতি অনুরোধপত্রের খসড়া চুড়ান্ত করে দেয়া হয়।পরে ৭ আগস্ট সিএন্ডএফ সভাপতি মফিজুর রহমান সজন মাননীয় উপদেষ্টাকে পত্র দেন;
জবাবে ৩ সেপ্টেম্বর মাননীয় উপদেষ্টা সিএন্ডএফ সভাপতিকে পত্র দিয়ে প্রস্তাব বিবেচনার আশ্বাস দেন (সংযুক্ত)
বুলেট ট্রেন ব্যয় ও সময় সাপেক্ষ বিধায় চলমান থাকে বেনাপোলে সরাসরি ট্রেন সার্ভিস চালুর চেষ্টা; । ১০ এপ্রিল প্রধান মন্ত্রীর দফতরে মাননীয় অর্থ উপদেষ্টা কাস্টমস কমিশনার ও ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদের ডেকে নেন। রেলের ডিজি মহোদয়ও ছিলেন;।

সভায় বন্ধন ট্রেনের সংখ্যা ও বিরতি বাড়ানোর আলোচনার সাথে বেনাপোলে নতুন এক্সপ্রেস ট্রেন দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়;।   এপ্রিল মাসেই ঘোষণা আসে জুলাইয়ে ঢাকা-বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেন যাত্রা করবে। সর্বশেষ গত ৩ জুলাই মাননীয় রেল মন্ত্রীর বেনাপোল রেলস্টেশন পরিদর্শন করেন।
প্রত্যাশা, ২৫ জুলাই ঢাকা-বেনাপোল-ঢাকা এক্সপ্রেস ট্রেন যাত্রা শুরু করবেন। আমাদের ও সমগ্র বেনাপোলবাসীর সশ্রদ্ধ কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, মাননীয় রেলমন্ত্রী প্রতি। বিশেষভাবে কৃতজ্ঞতা ও শ্রদ্ধা মাননীয় অর্থ উপদেষ্টার প্রতি, যাঁর ব্যক্তিগত আগ্রহ ও হস্তক্ষেপে এ ট্রেন প্রাপ্তি ত্বরান্বিত হয়েছে।

ধন্যবাদার্হ বেনাপোল সিএন্ডএফ এসোসিয়শন নেতৃবৃন্দ, যাদের ত্যাগ ও পরিশ্রম দৃশ্যমান ছিল। ধন্যবাদ সর্বস্তরের বেনাপোলবাসী।

আজ সবে এক্সপ্রেস ট্রেন এলো! একদিন বুলেট ট্রেনও আসবে। এই বেনাপোলে। বেনাপোল সিএন্ডএফ ও কমিশনারের এ যজ্ঞ বিস্মৃত হোক, এ সালতামামি এখানে থাক। স্বপ্নসারথিরা কালেকালে দূরের স্বপ্ন নিয়ে জেগে থাকুক। বেনাপোল এগিয়ে যাক, বাংলাদেশ উন্নত দেশ হোক। অনুরোধ একটাই, শুরু কোথাও থেকে করতে হবে। কাউকে করতে হবে। গতকাল হয়নিতো কী হয়েছে! আগামিকাল হতে হবে, প্রত্যয়টা এমন হোক।

গর্বের বেনাপোলীয়দের মননে এ প্রত্যয়টা তৈরির চেষ্টা করছি। সেই ২০১৯’র নভেম্বর থেকে। যতদিন আছি করে যাব, দেয়ার আছে, দিয়ে যাব। ব্যতিক্রমী বেনাপোল নির্মাণে কাজ করে যাব। এমনটি বললেন বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরী।

বেনাপোলবাসীর দাবি এক্সপ্রেস ট্রেনের পরই বেনাপোল ঢাকা সরাসরি বুলেট ট্রেন চালু করার।

Sharing is caring!