• ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১১ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সকাল ১০:০৪
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

ভারতের উপহারের শেষ ৯ অ্যাম্বুলেন্স বাংলাদেশে পৌঁছেছে

বার্তাকন্ঠ
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২১, ২৩:৩২ অপরাহ্ণ
ভারতের উপহারের শেষ ৯ অ্যাম্বুলেন্স বাংলাদেশে পৌঁছেছে
বেনাপোল প্রতিনিধি ।।
ভারত সরকারের দেওয়া উপহারের পঞ্চম তথা শেষ চালানের আরেও ৯টি লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুলেন্স  ভারতের পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে বেনাপোল স্থলবন্দরে প্রবেশ করেছে। পাঁচটি চালানে ভারত থেকে এলো ১০৯টি অ্যাম্বুল্যান্স।
মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরের ছাড়পত্র পাওয়ার পর অ্যাম্বুল্যান্সগুলো বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করে।
জানা যায়, চলতি বছরের ২৬-২৭ মার্চ বাংলাদেশ সফরকালে কভিড-১৯ মোকাবেলায় যৌথ প্রচেষ্টায় লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুল্যান্স উপহারের ঘোষণা দিয়েছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।
বেনাপোল বন্দরের উপ-পরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবীর তরফদার জানান, চলতি বছরের ২৬-২৭ মার্চ বাংলাদেশ সফরকালে করোনা মহামারি মোকাবেলায় বাংলাদেশ সরকারকে ১০৯টি লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুল্যান্স উপহার দেওয়ার ঘোষণা দেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এরই অংশ হিসেবে মঙ্গলবার বিকেলে শেষ চালানের ৯টি অ্যাম্বুল্যান্স পেট্রাপোল বন্দর থেকে বেনাপোল বন্দরে এসেছে।
এর আগে ভারত সরকারের উপহারের প্রথম চালানের একটি অ্যাম্বুল্যান্স গত ২১ মার্চ, ৭ আগস্ট ৩০টি, ২৬ আগস্ট ৪০টি ও ১২ সেপ্টেম্বর ২৯ টি অ্যাম্বুল্যান্স দেশে আসে। এ নিয়ে দেশে এলো মোদি সরকারের উপহারের ১০৯টি অ্যাম্বুল্যান্স। উপহার হিসেবে আসা প্রত্যেকটি অ্যাম্বুল্যান্সে ভেন্টিলেশন সুবিধা রয়েছে।
বেনাপোল চেকপোস্ট কার্গো শাখার রাজস্ব কর্মকর্তা সাইফুর রহমান মামুন জানান, ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশনের নামে এসব অক্সিজেন সংবলিত অ্যাম্বুল্যান্স এসেছে। উত্তরা মোটরস নামে একটি সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট আজ সকালে বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমস কার্গো শাখায় এগুলোর গেটপাস (আইজিএম) জমা দিয়েছিলেন।
সিএন্ডএফ উত্তরা মোটরসের প্রতিনিধি মেহেদী হাসান জানান, ভারত সরকারের উপহারের ৯টি অ্যাম্বুল্যান্সের কাগজপত্র কাস্টমসে দেওয়া হয়েছে।
অ্যাম্বুল্যান্সগুলো কাস্টমস ও বন্দরের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে আগামীকাল ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবে।
এদিকে ভারতীয় হাইকমিশনের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বেনাপোল শুল্ক হাউস থেকে ছাড়পত্র পাওয়ার পর এগুলো বুধবার ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবে।এতে আরো বলা হয়, এ অ্যাম্বুল্যান্সগুলো কোভিড-১৯ মহামারি মোকাবেলায় বাংলাদেশ সরকারের ব্যাপক প্রচেষ্টাকে সমর্থন করার উদ্দেশ্যে প্রদান করা হয়েছে। এ উপহার বাংলাদেশের ভ্রাতৃত্বপূর্ণ জনগণের সহায়তার জন্য ভারতের অব্যাহত ও দীর্ঘমেয়াদি অঙ্গীকারের প্রতিফলন।

Sharing is caring!