• ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, রাত ৪:০৬
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

মঘাইছড়িতে ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষে আজিমুশশান ও মিলাদ মাহফিল

বার্তাকন্ঠ
প্রকাশিত অক্টোবর ২৩, ২০২১, ২৩:০৩ অপরাহ্ণ
মঘাইছড়িতে ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষে আজিমুশশান ও মিলাদ মাহফিল
এম. মতিন, চট্টগ্রাম ব্যুরো।। 
রাঙ্গুনিয়া উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের হাজী রহম আলী জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটি ও মঘাছড়ি এলাকাবাসীর উদ্যোগে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষে মিলাদুন্নবী (দঃ) কি? মৃত্যু যন্ত্রণা ও হাশরের মাঠ শীর্ষক আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শনিবার (২৩অক্টোবর) বাদ এশা মঘাছড়ি হাজী রহম আলী জামে মসজিদ প্রাঙ্গণেে এ মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
মাহফিলে প্রধান ওয়ায়েজিন হিসেবে উপস্থিত হয়ে পবিত্র ঈদে -এ মিলাদুন্নবী (সঃ) সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন ফরিদপুর বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের খাদেম আল্লামা মুফতি জহুরুল ইসলাম ফরিদী।
তিনি বলেন, ১২ ই রবিউল আউয়াল বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মাদ (সঃ) এর একই সঙ্গে জন্ম এবং মৃত্যু দিবস। আজ থেকে প্রায় ১৪ শ বছর আগে ৫৭০ খ্রিস্টাব্দের ২০ শে এপ্রিল মানুষের মুক্তির দিশারী হিসেবে এই ধরায় আগমন করেন। তার জন্মদিন ছিল আরবি হিজরী রবিউল আউয়াল মাসের ১২ তারিখ। তিনি যখন এই ধরায় আগমন করেন তখন পুরো আরববাসী ছিল অজ্ঞানতার অন্ধকারে নিমজ্জিত। মূর্খতা দুর্নীতি কুসংস্কার ও পাপাচারে লিপ্ত ছিল আরবের এই উপদ্বীপের মানুষেরা। মাত্র ১৩ বছরে তিনি আরব সমাজের অন্ধকার দূর করেন। এই দিনে তিনি পৃথিবী থেকে বিদায় নেন। নবী করিম (সঃ) এর জন্ম ও ওফাত দিবস ১২ রবিউল আউয়াল মুসলমানদের কাছে পবিত্র দিন। মুসলমানরা দিনটিকে পরম শ্রদ্ধা ও সম্মানের সাথে স্মরণ করে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) হিসেবে পালন করে আসছেন।
মসজিদের মাতোয়ালী কমিটির সভাপতি ও ইউপি সদস্য মহিউদ্দিন তালুকদারের সভাপতিত্বে ও  হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ হাছানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আবদুল মান্নান।
বিশেষ বক্তা ছিলেন, হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ নবী হোসাইন নঈমী।
বিশেষ অতিথি ছিলেন আলহাজ্ব আমিনুর রহমান কোম্পানি, মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, মোঃ মাহবুব আলম, মোঃ নুরুল ইসলাম, মাহফুজুর রহমান কোম্পানি, মোঃ নুরুল আলম সওদাগর, মোঃ ফজল কাদের, বশির আহমদ, নাছির উদ্দীন ও মোঃ নঈম উদ্দিন সহ অত্র এলাকার মুসুল্লিগন।
সমগ্র অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন মুফিজুুর রহমান, মোঃ হারুন, মোঃ কায়সার, মোঃ বাবুল, মোঃ সেলিম, মহিউদ্দিন ও মোঃ ইছাহাক।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে আবদুল মান্নান বলেন, বলেন, মানবতার মুক্তির দূত রাসূল (সা.)’র আদর্শ অনুসরণের মাধ্যমেই মানবজাতির একমাত্র শান্তি নিহিত। পৃথিবীর অশান্ত পরিবেশকে শান্ত করে আলোকিত করতে রাসূলের জীবনাদর্শ প্রতিষ্ঠার বিকল্প নেই। মানুষগুলোকে সত্যিকার মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে মানুষকে রাসূলের আদর্শের দিকে ফিরে যেতে হবে।
পরে মহানবী (সা.) এর শুভাগমনের তাৎপর্য, তাঁর জীবনাদর্শ অনুসরণ ও  মিলাদ-কিয়াম শেষে, দেশ, জাতি এবং মুসলিম উম্মাহ’র কল্যাণ কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।
  বার্তাকণ্ঠ /এন

Sharing is caring!