• ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১১ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সকাল ৯:৪৪
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

‘মানিকে মাগে হিথে’ শিরোনামে গান গেয়ে হিরো আলম হাসির খোরাক হলেন সোস্যাল মিডিয়ায়

বার্তাকন্ঠ
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ১২, ২০২১, ২২:০২ অপরাহ্ণ
‘মানিকে মাগে হিথে’ শিরোনামে গান গেয়ে হিরো আলম হাসির খোরাক হলেন সোস্যাল মিডিয়ায়
মীর দুলাল, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি।। 
সিংহলী ভাষার গান ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।
 এটি বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারতেও ভাইরাল হয়েছে।
গানটি গেয়েছেন শ্রীংলকার ইয়োহানি ডি সিলভা; তিনি দেশটির তরুণ শিল্পী, গীতিকার ও সংগীত প্রযোজক।
গানটিতে বুঁদ সংগীতপ্রেমীরা যে যখন পারছেন নিজের মতো করে গেয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করছেন।
সিংহলী ভাষা না বোঝার কারণে ভারত-বাংলাদেশিদের অনেকেই ভুলভাল উচ্চারণ করছেন। একেকজনের অদ্ভুত উচ্চারণে ‘মানিকে মাগে হিথে’ কখনও কখনও অদ্ভুত রূপ নিচ্ছে, যা নেটদুনিয়া হাসির খোরাকে পরিণত হচ্ছে।
এই গানটি বাংলাদেশের অনেকেই গেয়েছেন।
তবে সবচেয়ে হাসির খোরাক জুগিয়েছে হিরো আলমের ‘মানিকে মাগে হিথে’ গাওয়ার ধরন। ভুলভাল উচ্চারণ আর বেসুরা গান নিয়ে রীতিমতো ট্রলের বন্যা বয়ে গেছে। তবে এই গানটি গাওয়ার দুদিনের মাথায় হিরো আলমকে হাসপাতালে দেখা গেল।
ফেসবুকে লাইভে এসে তিনি জানালেন, একটা সমস্যার কারণে তার অস্ত্রোপচার হবে।  পূবাইলের নিকট একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়ে ফেসবুক লাইভে বিষয়টি জানান। তিনি এরপরে হিরো আলম আরেকটি লাইভে জানান অস্ত্রোপচারের পর তিনি এখন বিশ্রামে রয়েছেন।
হিরো আলম রোববার সোস্যাল মিডিয়া  জানান দশ দিন তাকে বিশ্রাম নিতে হবে।
তিনি বলেন, ‘মানিকে মাগে হিতে গানটি গাওয়ার সময় টের পাই আমার পায়ের ব্যাথা। এরপরে দেখি সেটা ফুলে গেছে।
পূবাইলে শুটিঙে গিয়ে কাজ করতে পারিনি। হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে। এখন বিশ্রামে রয়েছি।
হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে বাসায় এসেছি।’
এদিকে হিরো আলমের এই গানটি নিয়ে ভারতেও বেশ ট্রল হচ্ছে। এমন একটি ভিডিও ইনস্টাগ্রামে আপলোড করেছেন কলকাতার অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ। ভিডিওটি বানানো হয়েছে যে মনে হচ্ছে ইয়োহানি ডি সিলভা গানটি কীবোর্ডে বাজিয়ে ক্লাস নিচ্ছেন হিরো আলমের। তাকে সঠিক উচ্চারণ শেখাচ্ছেন। কিন্তু এ কী!
হঠাৎই শব্দ ভুলে বাংলা গান গাইতে শুরু করলেন হিরো আলম। যা শুনে ইওহানি তার গানের ক্লাস বন্ধই করে দিলেন। ভিডিওটি পোস্ট করে ক্যাপশনে রুদ্রনীল লিখেছেন, ‘মানিকে মাগে হিথে’ সংগীত প্রশিক্ষণ কেন্দ্র।

Sharing is caring!