• ২৭শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৩:০৩
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

মামলা করে মেয়র পদ দখল করে রাখার দিন শেষ -প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য

বার্তাকন্ঠ
প্রকাশিত নভেম্বর ২৫, ২০২১, ২১:১২ অপরাহ্ণ
মামলা করে মেয়র পদ দখল করে রাখার দিন শেষ -প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য
যশোর ব্যুরো।। স্থাণীয় সরকার, সমবায় ও পল্লী উন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেছেন, সারাদেশের অনেক পৌরসভার মেয়রই মামলা করে পদ দখল করে আছেন। যা রীতিমতো দেশের রাজনীতিতে বেমানান। এ নিয়ে সরকার কঠোর সিদ্ধান্তে যাচ্ছে, যাতে এ ধরনের মামলা করে আর কেউ পদ দখল করে রাখতে না পারেন। পৌরসভা সার্ভিস এসোসিয়েশন খুলনা বিভাগীয় ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।
যশোর জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে বৃহস্পতিবার আয়োজিত এ সম্মেলেন সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের খুলনা বিভাগীয় আহ্বায়ক মুস্তাক আহমেদ।
সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, পৌরসভার কর্মকর্তাদের জন্য যে আইন হতে যাচ্ছে, তাতে সর্বোচ্চ ১১ মাস বেতন বাকি রাখা যাবে। কিন্তু এ ধরনের আইন পৌরসভা কেন, কোনো দপ্তরের জন্যই সমীচীন নয়। তিনি খুব শিগগির সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর সাথে বৈঠক করে সমাধানের চেষ্টা করবেন বলে মন্তব্য করেন। একইসাথে পৌরসভার নানান সমস্যা নিয়েও কথা বলবেন বলে উল্লেখ করেন মন্ত্রী।
সম্মেলনে প্রধান বক্তা ছিলেন পৌরসভা সার্ভিস এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী আব্দুস সাত্তার।
বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন ঝিনাইদহ পৌরসভার মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু, নড়াইল পৌরসভার মেয়র আঞ্জুমান আরা, কেশবপুরের মেয়র রফিকুল ইসলাম,ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের মেয়র আশরাফুল আলম, নড়াইলের কালিয়ার মেয়র ওয়াহিদুজ্জামান হীরা ও খুলনার পাইকগাছার মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর।
সম্মেলনের উদ্বোধন করেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি আব্দুল আলীম মোল্লা।
এ সময় আরও বক্তৃতা করেন সংগঠনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সহিদুল ইসলাম ও সিনিয়র সহসভাপতি আখতার হোসেন।
সঞ্চালনায় ছিলেন যশোর পৌরসভার সচিব আজমল হোসেন ও সংগঠনের খুলনা বিভাগীয় কমিটির সদস্য তাসমিন আলী লিলি।
এ সময় বক্তারা বলেন, সারাদেশের তিনশ’ ২৮টি পৌরসভার মধ্যে খুলনা বিভাগেই রয়েছে ৩৭টি। এর গুলোর মধ্যে অধিকাংশ পৌরসভার কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা বেতন-ভাতা ঠিকমতো পান না। সরকার যে আইন করছে, ১১ মাস পর্যন্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন বাকি রাখা যাবে তা তারা মেনে নেবেন না বলে উল্লেখ করেন। একইসাথে এ ধরনের আইন বাতিল করতে তারা রাজপথে নামতেও দ্বিধা করবেন না বলে জানান। অচিরেই এ সমস্যার সমাধান চান তারা।
এদিকে, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে যশোরে শুরু হওয়া তিনদিনব্যাপী গণসংগীত উৎসবের উদ্বোধনী পর্বে প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য। পুনশ্চ যশোর এ উৎসবের আয়োজন করেছে। টাউনহল ময়দানের রওশন আলী মঞ্চে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্বালনের মাধ্যমে উৎসবের সূচনা হয়। উদ্বোধনী পর্ব শেষে ঢাকা ও খুলনা বিভাগের সাতটি দল নিজেদের পরিবেশনা উপস্থাপন করে।
উদ্বোধনী পর্বে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আকাশ সংস্কৃতির কারণে লোকসংস্কৃতি থেকে আজ আমরা বিচ্ছিন্ন৷ কিন্তু নিজের শেকড়কে না জানলে কোনো জাতিরই উন্নয়ন সম্ভব না৷ আমাদের শেকড় লুকিয়ে আছে লোকগান, হস্তশিল্প ও সাহিত্যে৷তাই এগুলোকে টিকিয়ে রাখতে প্রয়োজন সমন্বিত উদ্যোগ৷
এসময় সম্মানিত অতিথির বক্তৃতা করেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের কেন্দ্রীয় সভাপতি গোলাম কুদ্দুস, যশোরের জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান, পুলিশসুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার, রাজারবাগ পুলিশ লাইন স্কুল এন্ড কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক লিয়াকত আলী, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় সদস্য হাবিবা শেফা ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট যশোরের সাধারণ সম্পাদক সানোয়ার আলম খান দুলু। পুনশ্চের সহসভাপতি শহিদুল হক বাদলের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উৎসব উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক পান্না লাল দে।

Sharing is caring!