• ১৬ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ২রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, দুপুর ২:৪০
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

যশোর এমএম কলেজের মাস্টার্সের ছাত্রী সোমা রায় বাঁচতে চায়

bmahedi
প্রকাশিত এপ্রিল ২৫, ২০২১, ১৩:০০ অপরাহ্ণ
যশোর এমএম কলেজের মাস্টার্সের ছাত্রী সোমা রায় বাঁচতে চায়

যশোর ব্যুরো ## যশোর সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের মাস্টার্সের মেধাবী শিক্ষার্থী সোমা রায় (২৬)। মরণব্যাধি ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত। তার চিকিৎসার জন্য ৭/৮ লাখ টাকা প্রয়োজন। কিন্তু এত টাকা জোগাড় করতে পারছেন তার দরিদ্র পরিবার। সোমার বাবা শহরের একটি সুপার শপে সামান্য বেতনে চাকুরি করেন। মা সবিতা রায় গৃহিণী। তিনিও অসুস্থ। আর একমাত্র ছোট ভাই এবার এইচএসসি পাশ করেছে। সোমার সুচিকিৎসার জন্য এত টাকা সংগ্রহ করতে না পেরে সমাজের বিত্তবান মানুষের কাছে সহযোগিতা চেয়েছে পরিবারটি। মানুষের সহযোগিতা পেলে মেধাবী এই শিক্ষার্থী জীবনটা ফিরে পাবেন। সংসারের হাল ধরতে পারবেন।

 

জানা যায়, যশোর শহরের বেজপাড়া পিয়ারী মোহন রোড এলাকার বাসিন্দা অশোক রায় ও সবিতা রায় দম্পতীর একমাত্র মেয়ে। পড়াশোনার পাশাপাশি নিয়মিত হোম টিউটর, দক্ষ কম্পিউটার প্রশিক্ষক এবং গ্রামীণ ফোন কাস্টমার কেয়ারের একজন সার্ভিস হোল্ডার হিসেবে সংসারের হাল ধরেছিলেন। সোমার ইচ্ছা ছিল একজন আদর্শবাদী শিক্ষিকা হয়ে সমাজকে বদলে দেওয়ার। কিন্তু সেই স্বপ্নভঙ্গের উপক্রম। তিনি মারণব্যাধি ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত। সংগ্রামী সোমা রোগাক্রান্ত হওয়ায় তার পরিবার, সহপাঠীদের মাঝে নেমেছে বিষাদের ছায়া। তার জন্য দোয়া ও সহযোগিতা চেয়েছেন তার স্বজন ও সহপাঠীরা। যশোর-খুলনা চিকিৎসা শেষ করে বর্তমানে বাড়িতেই ডাক্তারের পরামর্শে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। চিকিৎসকেরা বলছেন, দ্রুত অপারেশন করালে ভালো হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তার চিকিৎসার জন্য দ্রুত ভারতে নিতে চায়। এজন্য প্রয়োজন ৭ থেকে ৮ লাখ টাকা।

 

অশোক রায় জানান, নিজেরা নিরক্ষর হলেও দুই ছেলে মেয়েকে শিক্ষিত করেছি। তাদেরকে মানুষের মত মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার স্বপ্ন ছিল। সোমা পড়াশুনায় মেধাবী। সে সংসারের হাল ধরেছিল। হঠাৎ তার অসুস্থতা সব স্বপ্ন ভেঙে চুরমার হওয়ার উপক্রম হয়েছে। অসুস্থতা নিয়ে মাস্টার্স পরীক্ষা দিয়েছে। গত মাসে হঠাৎ করেই আরো বেশি অসুস্থ হয়ে পড়লে এক পর্ষায়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষায় ধরা পড়ে তার মরণব্যাধি ব্রেন টিউমার। বিভিন্ন জায়গায় তার চিকিৎসায় চিকিৎসকেরা জানিয়েছে দ্রুত অস্ত্রোপচার প্রয়োজন। এতে কমপক্ষে ৭ থেকে ৮ লক্ষ টাকা লাগবে। কিন্তু আমার কাছে এতো টাকা সংগ্রহ করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। সোমাকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবান ও সহৃদয়বান ব্যক্তিদের সহযোগিতা কামনা করছি।

যোগাযোগ: সোমার বাবা অশোক রায় ০১৯২৬৯৪৫৪৭৫। (ডাচ্ বাংলা ব্যাংক-নিজস্ব একাউন্ট- সোমা রায় ১৬৩১৫১০১৯৫৯৮৪। (বিকাশ/নগদ-০১৯৪১৩৪৬৩৪৪)। ব্যাংক-ডাচ বাংলা ব্যাংক লিমিটেড হিসাব নাম্বার ১৬৩১৫১০১৯৫৯৮৪ (ব্র্যাঞ্চ-যশোর- কোড ১৬৩) ।

Sharing is caring!