• ২১শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৫ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, রাত ৪:২৫
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

যশোরের ঐতিহ্যবাহী  ২৫০ শয্যা হাসপাতালে সেন্ট্রাল ক্যাশ কাউন্টার’র উদ্বোধন

bmahedi
প্রকাশিত জুলাই ৫, ২০১৯, ০৭:০১ পূর্বাহ্ণ

প্রফেসর জিন্নাত আলী  ॥

যশোরের ঐতিহ্যবাহী  ২৫০ শয্যা হাসপাতালে সেন্ট্রাল ক্যাশ কাউন্টার উদ্বোধন করা হয়েছে। এ সময় ডিজিটাল এক্স-রে মেশিন, কালার ড্রপলার আলট্রাসনো মেশিন ও দর্শনার্থীদের গেট পাশের উদ্বোধন করা হয়। পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য জেলা হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি হিসেবে গতকাল এর  উদ্বোধন করেন।
উদ্বোধনকালে প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য বলেন, বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা দেশকে দুর্নীতিমুক্ত ও স্বাস্থ্যসেবাসহ সবক্ষেত্রে ডিজিটাইলেশন পদ্ধতি চালু করেছেন। যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে সেন্ট্রাল ক্যাশ কাউন্টার চালু করা তারই অংশ। মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে হাসপাতালগুলোর মধ্যে এই প্রথম যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে মডেল হিসেবে ক্যাশ কাউন্টার উদ্বোধন করা হলো। এতে জনগণের ভোগান্তি ও দুর্নীতি কমে যাবে। এর সুফল পাওয়া গেলে দেশের সকল হাসপাতালে এ সেন্ট্রাল ক্যাশ কাউন্টার চালু করা হবে। মন্ত্রী এ সময় ক্যাশ কাউন্টারে ২টি কম্পিউটার, ৪টি এসিসহ ৬ লাখ টাকা দেয়ার ঘোষণা দেন। উদ্বোধন শেষে হাসপাতালের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত জেলা হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় যোগ দেন মন্ত্রী। সভায় যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালকে দেশের মডেল হাসপাতাল করার জন্য তাগাদা দেন প্রতিমন্ত্রী। এর অংশ হিসেবে হাসপাতালে দালালমুক্ত পরিবেশ, অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, আইসিইউ চালু করা, করোনারী কেয়ার ইউনিট চালু করতে ৭৮ জন জনবল নিয়োগের কার্যক্রমমসহ সকল কাজে সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি। সভায় জানানো হয়, হাসপাতালে পরিত্যক্ত ওয়ার্ডের রোগীদের জন্য মূল ভবনের ৪র্থতলা সম্প্রসারণের কাজ চলতি জুলাই মাসে শুরু হবে। জেলা হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সহ-সভাপতি যশোরের জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ শফিউল আরিফ, যশোর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. মো. গিয়াস উদ্দিন, পুলিশ সুপার মো. মঈনুল হক, কমিটির সদস্য সচিব ডা. মো. আবুল কালাম আজাদ, সিভিল সার্জন ডা. দিলীপ কুমার রায়, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক ডা. মুন্সী মনোয়ার হোসেন, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. ইয়াকুব আলী মোল্লা প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। খুলনা বিভাগীয় সহকারী স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. মো. মঞ্জুর মোর্শেদ, জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক মো. আজাদুল কবীর আরজুসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কমকর্তা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!