• ৫ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ২১শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সকাল ১১:৫৮
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

লালমনিরহাট জেলায় পেঁয়াজের ক্ষেত পাহারা দেয়া শুরু করেছেন কৃষকরা।

bmahedi
প্রকাশিত নভেম্বর ১৭, ২০১৯, ০৯:০৫ পূর্বাহ্ণ
লালমনিরহাট জেলায় পেঁয়াজের ক্ষেত পাহারা দেয়া শুরু করেছেন কৃষকরা।
মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাফা : লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ=

পেঁয়াজের দাম প্রতিদিন হু হু করে বৃদ্ধির কারণে এখন অনেক জেলায় পেঁয়াজের ক্ষেত পাহারা দেয়া শুরু করেছেন কৃষকরা। এদিকে, লালমনিরহাটের তিস্তা নদীর চরাঞ্চল ঘুরে দেখা যায়, চুরি হওয়ার ভয়ে কৃষকরা তাদের উঠতি পেঁয়াজ ক্ষেত রাত জেগে পাহারা দিচ্ছেন । আগামী ২০ থেকে ২৫ দিনের মধ্যে নতুন পেঁয়াজ বাজারে আসবে। এ পেঁয়াজ বাজারে আসলেই দাম অনেকটা কমে যাবে বলে জানান কৃষক।লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার হলদিবাড়ী গ্রামের কৃষক সফিকুল ইসলাম, হাসান আলী, খোরশেদ আলম জানান, আগামী ২০ থেকে ২৫ দিনের মধ্যে তারা তাদের ক্ষেতের পেঁয়াজ বাজারে বিক্রির জন্য তুলতে পাববে। হঠাৎ করে পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ায় তাদের রাত জেগে উঠতি পেঁয়াজ ক্ষেত পাহারা দিতে হচ্ছে। কষৃকরা এলাকাভিত্তিক কয়েক দলে ভাগ হয়ে পালাক্রমে রাত জেগে দল বেধে তাদের ক্ষেত পাহারা দিচ্ছি।

খাইরুল ইসলাম নামে এক কৃষক বলেন, এখন পেঁয়াজের দাম অনেক বেশি থাকলেও আমরা যখন পেঁয়াজ বাজারে তুলবো তখন দাম পাবো না। এক বিঘা জমিতে পেঁয়াজ চাষে ২৫ হাজার থেকে ২৮ হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ হয়েছে। প্রতি বিঘায় ৩০ মণ থেকে ৩৫ মণ পর্যন্ত পেঁয়াজ উৎপাদন হবে। প্রতি মণ পেঁয়াজ যদি দেড় হাজার টাকা দরে বিক্রি করা যায় তাহলে আমাদের কিছু লাভ হবে। কিন্তু আমরা যখন পেঁয়াজ তুলবো তখন প্রতিমণ পেঁয়াজ ১ হাজার টাকা দরে বিক্রি হবে। ফলে অনেক কৃষক পেঁয়াজ চাষে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছে।

লালমনিরহাট কৃষি বিভাগের উপ-পরিচালক বিধূ ভুষণ রায় বলেন, আমরা আশা করছি আগামী ১৫ দিন থেকে ২০ দিনের মধ্যে নতুন পেঁয়াজ বাজারে উঠবে। নতুন পেঁয়াজ বাজারে এলেই দাম ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে চলে আসবে।

Sharing is caring!