• ২১শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৭ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১২:১৯
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

শার্শার ধর্ষিত হীরা বেগমের পাশে বিএনপি নেতারা

bmahedi
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ৬, ২০১৯, ২০:৫৫ অপরাহ্ণ
মিলন হোসেন বেনাপোল
শার্শার লক্ষনপুর গ্রামে পুলিশ ও তার সোর্স কর্তৃক ধর্ষিত নারী হীরা বেগমকে দেখতে আসেন বিএনপির কেন্দ্রিয় নেতারা। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১ টার সময় নির্যাতিত ওই গৃহবধুর বাড়িতে আসে বিএনপি কেন্দ্রীয় ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল হক ও নির্বাহী কমিটির সদস্য এ্যাডভোকেট নিপুণ রায়ের নেতৃত্বে একটি টিম।এ সময় বিএনপির নারী ও শিশু রক্ষায় কমিটিও ওই নির্যাতিত নারীর পাশে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার ব্যাক্ত করেন।
উপস্থিত বিএনপির নেতারা নির্যাতিত গৃহবধুকে আর্থিক সহয়তা করেন এবং আইনি সহযোগিতা করার পূর্ন আশ্বাস দেন। তারা বলেন, এই জঘন্য ঘটনার সঙ্গে জড়িত গোড়পাড়া পুলিশ ফাঁড়ির এস আই খায়রুলকে আইনের আওতায় এনে বিচার করতে হবে। তা না হলে নারীর অধিকার রক্ষার জন্য আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।
গত ২ সেপ্টম্বর রাতে শার্শার লক্ষনপুর গ্রামের ওই গৃহবধু নিজের ঘরেই ধর্ষনের শিকার হয়। তার অভিযোগ এসআই খায়রুল সহ ৪ জন ওই দিন মধ্যেরাতে তার কাছে গিয়ে ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন। টাকা দিলে তার স্বামীর বিরুদ্ধে দেয়া ফেনসিডিলের মামলা ৫৪ ধারয় দেখিয়ে শিথিল করা হবে। ফেনিসিডিল মামলায় কারাগারে থাকা তার স্বামীকে কিভাবে ৫৪ ধারা দিবেন এ নিয়ে ওই এস আইর সঙ্গে চলে তর্ক বিতর্ক। এক পর্যায় খায়রুল ও কামরুল ওই নারীকে ঘরে নিয়ে ধর্ষন করেন। এর পরদিন ওই নারী যশোর জেনারেল হাসপাতালে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য গেলে বিষয়টি জানাজানি হয়।  ৫ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার তার স্বাস্থ্য পরীক্ষার প্রতিবেদনে ধর্ষনের আলামত পাওয়া যায়। ধর্ষকারী  কারা ছিলেন তা ডিএনএ পরীক্ষার প্রতিবেদনের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে বলে কর্মকর্তারা জানান। এ জন্য ডিএনএ পরীক্ষার নমুনা পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) ঢাকার পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছে।
বিএনপির কেন্দ্রিয় নেতাদের নির্দেশে নারী ও শিশু রক্ষা কমিটির নেতারা যশোর এর শার্শায় ছুটে আসেন। তারা নির্যাতিত নারীর পাশে থেকে আইনি সহায়তা সহ সকল সাহায্যার অঙ্গীকার করেন। এ বিষয়ে  বিএনপির কেন্দ্রীয় ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল হক  দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের নির্দেশে তারা সরাদেশে নির্যাতিত নারী ও শিশুদের রক্ষায় কাজ করছেনে। তারই অংশ হিসাবে তারা যশোর এর শার্শায় এসেছেন। তারা নির্যাতিত নারী এবং তার পরিবারকে সকল প্রকার ভয়ভীতির উর্দ্ধে থাকার সাহস জুগিয়েছেন।
এ্যাডভোকেট নিপুণ রায় বলেছেন জনগনের ভোটে নির্বাচিত না হলে এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়। সরকার মধ্যে রাতে ভোট ডাকাতি করে ক্ষমতায় এসেছে তাই আজ পুলিশ এর দ্বারা এমন অপকর্ম ঘটছে। এর থেকে পরিত্রান পেতে দেশে গনতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে।

Sharing is caring!