সম্পর্কে সফল হতে মেনে চলুন এই পাঁচ পরামর্শ!

101

ইমরান হোসেন আশা ## সম্পর্কে ভালো থাকতে আমরা সকলেই চাই। শ্রদ্ধা, ভালোবাসা, পারস্পরিক বোঝাপড়ার মধ্যে দিয়ে তৈরি হয় একটি সম্পর্ক। প্রথম থেকেই ‘প্রেম করব’, ‘বিয়ে করব’ এই মানসিকতা নিয়ে সম্পর্ক তৈরি না করাই ভালো। ম্যাট্রিমনিয়াল সাইট থেকে বন্ধুত্ব হলে তখন আলাদা বিষয়। সম্পর্কের প্রথম ধাপ হল বন্ধুত্ব। দুজনের মধ্যেকার বন্ধুত্ব তখনই জোরদার হয়, যখন দুজনের মধ্যে মনের মিল থাকে। দুজনের পছন্দে মিল থাকে। আর এই সব রকম মিল থাকলেই যে প্রেম আসবে তা নয়। জীবনে ভালো বন্ধুরও তো প্রয়োজন। যে কোনও সম্পর্কে জামেলা, ঝগড়া এসব থাকেই। এক একটা সমস্যা, বাধা পেরোতে পেরোতে তবেই তা জোরদার হয়। দুজনের মধ্যে তৈরি হয় স্ট্রং বন্ডিং। আমাদের চারপাশে এমন কিছু সম্পর্ক আমরা দেখি, যেগুলো দেখে মন এমনিই খুশি হয়ে ওঠে। কিছু সম্পর্কের বোঝাপড়া এত সুন্দর হয় যে মনে হয় সেখান থেকে আমাদেরও কিছু শিক্ষা নেওয়া প্রয়োজন। আর তাই পড়াশোনার মতো সম্পর্কেও সফল হতে চাইলে মেনে চলতেই হবে এই কয়েকটি টিপস-

একে অপরের প্রিয় বন্ধু হয়ে উঠুন

প্রেমিক-প্রেমিকা কিংবা স্বামী-স্ত্রী হয়ে ওঠার আগে দুজন দুজনের খুব ভালো বন্ধু হয়ে ওঠা উচিত। একে অপরের সঙ্গে সব কথা শেয়ার করে নেওয়া, মন খুলে কথা বলতে পারাটা খুব রুরি। তবেই ভালো বন্ধু হয়ে ওঠা যায়।

সম্পর্কে সহজ হওয়া প্রয়োজন

দুজনের সম্পর্ক সহজ সাবলীল হওয়া প্রয়োজন। এমন যেন না হয় খুব সতর্ক হয়ে বন্ধর সঙ্গে কতা বলতে হয়। কারণ বন্ধু হলে মেপে কথা বলা যায় না। মন খুলে সবটা বলতে না পারলে কোথাও যেন বাধো বাধো ঠেকে।

পছন্দেও থাকুক মিল

একজন পাহাড় আর অন্যজন সমুদ্র পছন্দ করতেই পারেন। কিন্তু ছোট খাটো বিষয়েও মিল থাকা দরকার। হঠাৎ বাইরে থেকে এলে জড়িয়ে ধরা, পছন্দের খাওয়া, একসঙ্গে সময় কাটানো এগুলো কিন্তু জরুরি। যদি দুজনের মানসিকতায় মিল না থাকে তবে সারাজীবন একসঙ্গে কাটানো দায়।

টিমওয়ার্ক

সম্পর্কটা যখন দুজনের তখন দুজনকেই হাতে হাত মিলিয়ে সবটা করতে হবে। যে কোনও সিদ্ধান্ত, বাড়ির কাজ সব একসঙ্গেই করা দরকার। আমি থাকে আমরা হয়ে উঠলে তবেই সেই সম্পর্কের স্থায়িত্ব বেশিদিন হয়। নিজেদের জীবন কীভাবে চালাবেন সেই সিদ্ধান্ত নিজেদেরই নিতে হবে।

শক্তির আস্ফালন নয়

সম্পর্কে দুজনেই সমান। কেউ বড় কিংবা কেউ ছোট নয়। দুজনেই প্রাপ্তবয়স্ক। ফলে নিজের ভালোটুকু বুঝে নেওয়ার মতো ক্ষমতা সবারই থাকা দরকার। আর তাই কেউ কাউকে ক্ষমতা দেখাবেন না, কিংবা কোনও বিষয়ে বাধ্য করবেন না। এতে সমস্যা বাড়ে। এর চেয়ে দুজনে একসঙ্গে বসে সিদ্ধান্ত নিন। গায়ের জোরে কিন্তু সম্পর্ক টেকানো চাপের।