• ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, রাত ৩:৪৭
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে গণঅনশন,বিক্ষোভ সারাদেশে

বার্তাকন্ঠ
প্রকাশিত অক্টোবর ২৩, ২০২১, ১৮:২১ অপরাহ্ণ
সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে গণঅনশন,বিক্ষোভ সারাদেশে

বার্তাকন্ঠ ডেস্ক।।দেশের বিভিন্ন স্থানে পূজামণ্ডপে হামলা, ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে রাজধানীর শাহবাগে গণঅনশন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। সমাবেশে যোগ দিতে শনিবার (২৩ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে মিছিল নিয়ে জড়ো হন ঐক্য পরিষদের নেতাকর্মীরা। কর্মসূচির সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন রাজনীতিবিদ, শিক্ষক, বুদ্ধিজীবীসহ বিশিষ্টজনরা।

গণ-অনশন কর্মসূচিতে সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদ জানানোর পাশাপাশি জড়িতদের শাস্তি নিশ্চিতে ১১ দফা দাবি জানানো হয়। প্রশাসনের একটি অংশের নিষ্ক্রিয়তার জন্য বার বার এমন ঘটনা ঘটছে বলেও অভিযোগ করেন তারা। ধর্মীয় সম্প্রীতি পুনরুদ্ধারে জন্য রাজনৈতিক নেতাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার রাখার আহ্বান জানানো হয় সমাবেশ থেকে। কর্মসূচী থেকে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবিও জানানো হয়।

কুমিল্লার ঘটনায় দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর হামলার প্রতিবাদে রাজধানীর বাইরেও গণঅনশন করেছে বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ।

চট্টগ্রামে সকালে আন্দরকিল্লা মোড়ে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা ছাড়াও কর্মসূচিতে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ যোগ দেন। এসময় বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত  দুর্গোৎসব চলাকালে ও এরপর দেশের বিভিন্ন জেলায় সংঘটিত সাম্প্রদায়িক সহিংসতার তদন্তে সুপ্রিম কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতির নেতৃত্বে বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিশন গঠনের জন্য সরকারের কাছে জোর দাবি জানান।

তিনি বলেন, নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক হামলাকারী ও তাদের পেছনে থাকা চক্রান্তকারীদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতার করে বিশেষ ক্ষমতা আইন ও সন্ত্রাস দমন আইনের আওতায় এনে বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠন করে দ্রুত শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে বরিশাল নগরীর অশ্বিনী কুমার টাউন হল চত্বরে গণঅনশন সমাবেশ হয়। পরে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
দুপুর ১২টার দিকে সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ প্রতিবাদকারীদের পানি পান করিয়ে গণঅনশন ভঙ্গ করেন।

পটুয়াখালীতে প্রেসক্লাবের সামনে পটুয়াখালী কৃষকলীগের উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়। এর পরপরই সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়। অপরদিকে স্থানীয় লঞ্চ ঘাট চত্বরে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ ও পুজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে প্রতীকী অনশন কর্মসূচী দুপুর ১২টা পর্যন্ত চলে। এসময় প্রতিবাদী সংগীতও পরিবেশন করা হয়। এতে বিভিন্ন ধর্মের মানুষসহ মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী মানুষরা যোগ দেন।

ঝালকাঠিতে গণঅনশন ও গণঅবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ ও পূজা উদযাপন পরিষদ। এসময় সাম্প্রদায়িক সহিংসতাকারীদের বিরুদ্ধে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণার দ্রুত বাস্তবায়ন ও সাম্প্রদায়িক মহলের চক্রান্ত প্রতিরোধে জনগনের ঐক্যবদ্ধ ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান বক্তারা। কর্মসূচি শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শহরের প্রধান সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে স্থানীয় আখড়াবাড়ি মন্দিরে গিয়ে শেষ হয়।

সাম্প্রদায়িক সহিংসতা বন্ধ ও দোষীদের গ্রেফতারসহ ১৫ দফা দাবি জানিয়ে ঝালকাঠিতে মানববন্ধন করেছে সুশাসনের জন্য নাগরিক- সুজন। শনিবার সকাল ১১টায় ঝালকাঠি শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে তারা। এতে সুজন-এর নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ অংশ নেন।

কুষ্টিয়ায় সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের প্রতিবাদ ও সম্প্রীতি রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন সমাবেশ হয়েছে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি জেলা শাখার উদ্যোগে।

কুড়িগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় শারদীয় দুর্গোৎসবে সাম্প্রদায়িক সহিংসতা ও হত্যা, মন্দির বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর ও লুটপাটের প্রতিবাদে কুড়িগ্রামে গণঅনশন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। এ সময় সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক এমপি মো. জাফর আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুন অর রশিদ লাল, আইনজীবী আব্রাহাম লিংকন, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি রবি বোস, সাধারণ সম্পাদক বাবু দুলাল চন্দ্র রায়, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ কুড়িগ্রাম জেলা শাখার সভাপতি এস এম ছানালাল বকসী, সাধারণ সম্পাদক অলক সরকার, রামকৃষ্ণ আশ্রমের সেক্রেটারি জেনারেল উদয় শংকর চক্রবর্তী, নারী নেত্রী ফাল্গুনী তরফদার প্রমুখ। বক্তারা সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান।

রংপুরের পীরগঞ্জে জেলে পল্লীতে অগ্নিসংযোগ এবং দেশের বিভিন্ন স্থানে দলিত ও হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর হামলা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে সাতক্ষীরায় মানববন্ধন কর্মসুচি পালিত হয়েছে। বাংলাদেশ দলিত ও বঞ্চিত জনগোষ্ঠী অধিকার আন্দোলন সাতক্ষীরা জেলা শাখার আয়োজনে শনিবার বেলা ১১ টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সামনে উক্ত মানববন্ধন কর্মসুচি পালিত হয়।

ধর্ম যার যার, রাষ্ট্র সবার – এই শ্লোগানকে সামনে নিয়ে সাম্প্রদায়িক সহিংসতাকারীদের বিরুদ্ধে সরকারের জিরো টলারেন্স ঘোষণার দ্রুত বাস্তবায়ন ও দেশজুড়ে সংঘটিত সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃষ্টান ঐক্য পরিষদ ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ জয়পুরহাট জেলা শাখার উদ্যোগে গণঅনশন, গণঅবস্থান ও বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচী পালিত হয়।

Sharing is caring!