• ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৫:০০
  • রেজিস্ট্রেশন ৪৬১

হবিগঞ্জে ভারতীয় ক্রাইম পেট্রোল দেখে শিশু অপহরণ, গ্রেফতার – ১ 

বার্তাকন্ঠ
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২১, ১১:৪০ পূর্বাহ্ণ
হবিগঞ্জে ভারতীয় ক্রাইম পেট্রোল দেখে শিশু অপহরণ, গ্রেফতার – ১ 
মীর দুলাল, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি।। 
হবিগঞ্জের সদর থানা পুলিশের অভিযানে অপহরনের তিন ঘন্টার মধ্যে  শিশু উদ্ধার করেছে পুলিশ!
মঙ্গলবার (১৪সেপ্টেম্বর) ২১ ইং  ২ বছরের শিশুকে অপহরণের ৩ ঘন্টার মধ্যে উদ্ধার করা হয়েছে!
স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, হবিগঞ্জ সদর উপজেলার আছিরপুর গ্রাম থেকে বাড়ীর মালিকের ২ বছরের শিশুকে অপহরণের ৩ ঘন্টার মধ্যে পুলিশের অভিযানে বাহুবল থেকে উদ্ধার করেছে ও অপহরনকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
অপহরনকারী থেকে জানা যায়, প্রায় এক মাস পূর্বে হবিগঞ্জের আছিপুর গ্রামের শেখ আব্দাল মিয়ার বাড়িতে কৃষি কাজের চাকুরী নেয় নবীগঞ্জ উপজেলার দীঘলবাক ইউনিয়নের বোয়ালজুর গ্রামের ছুরাব উল্লার পুত্র জসিম মিয়া (২৫)।
জসিম ভারতীয় সিরিয়াল ক্রাইম পেট্রোল দেখে দেখে আব্দাল মিয়ার ২ বছরের শিশু পুত্র ফারাবি আহমদকে অপহরণ করার চিন্তা মাথায় আসে।
কিছু দিন চিন্তা ভাবনার পর এক পর্যায়ে গত রবিবার ১২ সেপ্টেম্বর দুপুর ২টার দিকে দোকান থেকে বিস্কুট এনে দেয়ার কথা বলে শিশু ফারাবিকে জসিম কোলে করে নিয়ে যায়।
এরপর থেকে সে ঐ শিশুকে নিয়ে আত্মগোপন করে!
পরে ঘন্টা খানেক পর শিশুর বাবার কাছে মোবাইলে কল দিয়ে মুক্তিপণ দাবী করে জসিম।
এমন কি মুক্তিপণ না দিলে শিশুকে হত্যা করে গুম করে ফেলবে বলেও হুমকি প্রদান করে।
বিষয়টি আব্দাল মিয়া  হবিগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাসুক আলীকে জানালে তিনি থানার এসআই ও মিডিয়া অফিসার মোঃ সজিব মিয়াকে  শিশু উদ্ধারের  দায়িত্ব প্রদান করেন।
দায়িত্ব পাওয়ার পরে  দ্রুত তম সময়ের মধ্যে অপহৃত শিশু উদ্ধারের জন্য তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে এস. আই সজিব নিশ্চিত হন অপহরণকারী জসিম ওই শিশুকে নিয়ে বাহুবল উপজেলার ঘড়িকান্দি নামের একটি বাগানে অবস্থান করছে।
এসআই সজিব, এসআই শুভ দাশ এবং এএসআই হাবিবুর রহমানসহ একদল পুলিশ সেখানে অভিযান চালিয়ে অপহরণকারী জসিমকে আটক করে।
জসিমের স্বীকাররোক্তি অনুযায়ী একই স্থান থেকে শিশু ফারাবিকে উদ্ধার করা হয়!
সোমবার ১৩ সেপ্টেম্বর  বিকালে জসিমকে হবিগঞ্জ আদালতে প্রেরণ করলে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে জসিম তার দোষ স্বীকার করে।
এ ঘটনায় ওই শিশুর পিতা বাদী হয়ে সংশ্লিষ্ট ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন।
এ ব্যাপারে সদর থানার ওসি মাসুক আলী জানান, জসিমকে আটক করার পর আদালতে প্রেরণ করলে সে তার দোষ স্বীকার করে এবং বিজ্ঞ আদালত  জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে   প্রেরণ করেন।

Sharing is caring!