সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ১৭ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

১৪০টি টিভি চ্যানেলের আবেদন জমা পড়েছে : তথ্যমন্ত্রী

কামাল হোসেন।।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহামুদ বলেছেন, `৩৪টি টেলিভিশন অনএয়ারে আছে, ৪০টি চ্যানেলের অনুমোদন আছে এবং আরো ১৪০টি নতুন চ্যানেল অনুমোদনের আবেদন পড়ে আছে। আমি নিজেও সেটাই ভাবি, যে চ্যানেলগুলো আছে তারাই হিমশিম খাচ্ছে এবং কর্মীদের বেতন দিতে পারছে না সেখানে নতুন চ্যানালের প্রয়োজনীয়তা কতোটুকো।’

বাংলাদেশের টেলিভিশন চ্যানেলগুলোর বিজ্ঞাপন বিড়ম্বনা ও টেলিভিশন চ্যানলগুলোর কর্মী ছাঁটাই প্রসঙ্গে লন্ডন প্রেসক্লাবের আয়োজনে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক প্রশ্নত্তোর পর্বে ব্রিটেনে সফররত তথ্যমন্ত্রী এই তথ্য জানান।

অন্য এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী জানান, নীতিমালা ও আইনের কারণেই প্রবাসে বাংলাদেশের সরকারের বিজ্ঞাপন দেওয়া সম্ভব নয়। তাই প্রবাসী বাংলা সংবাদমাধ্যমে প্রণোদনার বিষয়টি চিন্তা করা যেতে পারে।

তথ্যমন্ত্রী সাংবাদিক সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের বিচার, ডিজিটাল নিরাপত্তা, বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড নিয়ে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এমাদাদুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের আহামেদের পরিচালনায় প্রেসক্লাবের পক্ষে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাবের ট্রেজারার আ স ম মাসুম।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

পাকিস্তানে মসজিদে বিস্ফোরণে নিহত ২৫

১৪০টি টিভি চ্যানেলের আবেদন জমা পড়েছে : তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশের সময় : ০৭:৪৭:১৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৫ জুলাই ২০১৯

কামাল হোসেন।।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহামুদ বলেছেন, `৩৪টি টেলিভিশন অনএয়ারে আছে, ৪০টি চ্যানেলের অনুমোদন আছে এবং আরো ১৪০টি নতুন চ্যানেল অনুমোদনের আবেদন পড়ে আছে। আমি নিজেও সেটাই ভাবি, যে চ্যানেলগুলো আছে তারাই হিমশিম খাচ্ছে এবং কর্মীদের বেতন দিতে পারছে না সেখানে নতুন চ্যানালের প্রয়োজনীয়তা কতোটুকো।’

বাংলাদেশের টেলিভিশন চ্যানেলগুলোর বিজ্ঞাপন বিড়ম্বনা ও টেলিভিশন চ্যানলগুলোর কর্মী ছাঁটাই প্রসঙ্গে লন্ডন প্রেসক্লাবের আয়োজনে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক প্রশ্নত্তোর পর্বে ব্রিটেনে সফররত তথ্যমন্ত্রী এই তথ্য জানান।

অন্য এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী জানান, নীতিমালা ও আইনের কারণেই প্রবাসে বাংলাদেশের সরকারের বিজ্ঞাপন দেওয়া সম্ভব নয়। তাই প্রবাসী বাংলা সংবাদমাধ্যমে প্রণোদনার বিষয়টি চিন্তা করা যেতে পারে।

তথ্যমন্ত্রী সাংবাদিক সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের বিচার, ডিজিটাল নিরাপত্তা, বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড নিয়ে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এমাদাদুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের আহামেদের পরিচালনায় প্রেসক্লাবের পক্ষে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাবের ট্রেজারার আ স ম মাসুম।