বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বৃস্টিতে তলিয়ে গেছে রাজধানীর বড় অংশ

সম্রাট আকবর ।।

আজ দুপুর থেকে থেমে থেমে কয়েক ঘণ্টার বৃষ্টিতে রাজধানীর একটি বড় অংশ তলিয়ে গেছে পানিতে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন বিভিন্ন এলাকার মানুষ। আজ ১২ জুলাই শুক্রবার দুপুর থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টিতে কোথাও কোথাও পানি ঢুকে পড়েছে বসতবাড়িতেই।

এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলছে, এই বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে। আর সে ক্ষেত্রে দুর্বল পানি নিষ্কাষণ ব্যবস্থার এই নগরে পরিস্থিতি আরো খারাপ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।
এদিকে অধিদপ্তরের হিসাবে আজ দুপুর পর্যন্ত বৃষ্টি হয়েছে ৫০ মিলিমিটার। ভারী এই বর্ষণে তলিয়ে গেছে রাজধানীর মিরপুরের বেশ কিছু এলাকা, বাড্ডার পূর্বাংশ, মোহাম্মদপুর, রামপুরা, কারওয়ানবাজার, বাংলামোটর, শান্তিনগর, ইস্কাটন, রামচন্দ্রপুর খালের নবোদয় হাউজিং, আদাবর, শেকেরটেক, পান্থপথ, বঙ্গভবন, মগবাজারসহ অনেক এলাকা।
এছাড়া মহাখালীর আজরতপাড়া, নাখালপাড়া, গ্রিন রোড, মালিবাগ, চৌধুরিপাড়া, ডিআইটি রোড সড়কে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে।এ ব্যাপারে আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান জানান, সকাল ছয়টা থেকে বেলা ১২ টা পর্যন্ত ১ মিলিমিটার আর বেলা ১২টা থেকে ২টা পর্যন্ত আরো ৪৮ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। যা এ বর্ষা মৌসুমের রেকর্ড বলা চলে। আগামী এক থেকে দুই দিন বৃষ্টি অব্যাহত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। এরপর বৃষ্টি কিছুটা কমে আসবে।
এদিকে জলাবদ্ধতার কারণে ছুটির দিনে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা। বৃষ্টির কারণে দোকান বন্ধ করে বাড়ি ফিরতে হয়েছে জলে ডুবে থাকা এলাকার ব্যবসায়ীদের একটি অংশকে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

বৃস্টিতে তলিয়ে গেছে রাজধানীর বড় অংশ

প্রকাশের সময় : ০৬:৪০:১০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০১৯

সম্রাট আকবর ।।

আজ দুপুর থেকে থেমে থেমে কয়েক ঘণ্টার বৃষ্টিতে রাজধানীর একটি বড় অংশ তলিয়ে গেছে পানিতে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন বিভিন্ন এলাকার মানুষ। আজ ১২ জুলাই শুক্রবার দুপুর থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টিতে কোথাও কোথাও পানি ঢুকে পড়েছে বসতবাড়িতেই।

এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলছে, এই বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে। আর সে ক্ষেত্রে দুর্বল পানি নিষ্কাষণ ব্যবস্থার এই নগরে পরিস্থিতি আরো খারাপ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।
এদিকে অধিদপ্তরের হিসাবে আজ দুপুর পর্যন্ত বৃষ্টি হয়েছে ৫০ মিলিমিটার। ভারী এই বর্ষণে তলিয়ে গেছে রাজধানীর মিরপুরের বেশ কিছু এলাকা, বাড্ডার পূর্বাংশ, মোহাম্মদপুর, রামপুরা, কারওয়ানবাজার, বাংলামোটর, শান্তিনগর, ইস্কাটন, রামচন্দ্রপুর খালের নবোদয় হাউজিং, আদাবর, শেকেরটেক, পান্থপথ, বঙ্গভবন, মগবাজারসহ অনেক এলাকা।
এছাড়া মহাখালীর আজরতপাড়া, নাখালপাড়া, গ্রিন রোড, মালিবাগ, চৌধুরিপাড়া, ডিআইটি রোড সড়কে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে।এ ব্যাপারে আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান জানান, সকাল ছয়টা থেকে বেলা ১২ টা পর্যন্ত ১ মিলিমিটার আর বেলা ১২টা থেকে ২টা পর্যন্ত আরো ৪৮ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। যা এ বর্ষা মৌসুমের রেকর্ড বলা চলে। আগামী এক থেকে দুই দিন বৃষ্টি অব্যাহত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। এরপর বৃষ্টি কিছুটা কমে আসবে।
এদিকে জলাবদ্ধতার কারণে ছুটির দিনে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা। বৃষ্টির কারণে দোকান বন্ধ করে বাড়ি ফিরতে হয়েছে জলে ডুবে থাকা এলাকার ব্যবসায়ীদের একটি অংশকে।