রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চলচ্চিত্র শিল্পকে বেগবান করতে চায় নতুন তারকা

জহিরুল ইসলাম রিপন ।। 

ছয় বছর আগে জাকির হোসেন রাজু যখন মনের মতো মানুষ পাইলাম না ছবির কাজ শুরু করেন তখন এ ছবির তারকা জুটি ছিলো শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস। কিন্তু ছয় বছর পর যখন ছবির গল্পটি সমকালীন করে রাজু শুরু করেছেন তখন অপুর স্থানে চলে এসেছেন শাকিব খানের হালের জুটি বুবলী। শাকিব খান এখন নায়িকা হিসেবে কেবল বুবলীকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন। আর কারো সঙ্গে তিনি ভরসা পাচ্ছেন না। নোলক ছবিটিতে তিনি অভিনয় করেছেন ববির সঙ্গে।

ছবিটি ফ্লপ করার পর নায়িকার ব্যাপারে শাকিব একটু নড়েছড়ে বসেছেন। পাসওয়ার্ড ছবিটি ব্যবসা সফল হওয়ার পর তিনি একসঙ্গে চারটি ছবির নাম ঘোষণা করেছেন এবং এসব ছবির সবগুলোতেই তিনি বুবলীকে নায়িকা নিয়েছেন। শাকিব খানের সন্তানের জননী হওয়ার আগে অপু বিশ্বাসকে নিয়েই তিনি জুটি বাঁধতেন, যদিও অপু তেমন ভালো অভিনেত্রী নন। তিনি ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন শাবনূরের বান্ধবী হিসেবে কাল সকালে ছবি দিয়ে। পরে এফআই মানিক ও ডিপজলের সুবাদে শাকিব খান জুটি বাঁধেন অপুর সঙ্গে। জুটি থেকে গৃহিণী। তারপর সন্তানের জননী। এখন অপুর স্থানে নায়িকা হিসেবে এসেছেন বুবলী। তাকে সব ছবিতেই শাকিবের বিপরীতে নেয়া হচ্ছে।

কিন্তু নির্মাতারা বুবলীকে আলাদাভাবে নিয়ে ছবি নির্মাণ করতে পারছেন না। বুবলীও মনে হয় শাকিবকে বাদ দিয়ে অন্য কোনো নায়কের সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী নন। ক’দিন আগে বুবলীর সঙ্গে যখন এই রিপোর্টারের কথা হয় তখন বুবলী বলেছিলেন, ছবি কোথায়? কার সঙ্গে কাজ করবো? চলচ্চিত্র শিল্প যখন দিশেহারা তখন শিল্পীদের দিশা থাকে কীভাবে? প্রশ্ন হচ্ছে একের পর এক শাকিবের বিপরীতে কাজ করতে গিয়ে বুবলী কি অপুর মতোই শাকিবনির্ভর হয়ে পড়ছেন না? তাতে কি তার তারকা মূল্য প্রতিষ্ঠিত হবে? হতে পারে, নাও হতে পারে। অপু বিশ্বাস অনেক ছবিতে কাজ করে অর্থ উপার্জন করেছেন ঠিকই, কিন্তু শাকিবনির্ভরতা এড়িয়ে অপু বিশ্বাস কখনোই নিজেকে প্রমাণ করতে পারেননি যে, তারও তারকা মূল্য আছে।

এই পরিস্থিতিতেই চলচ্চিত্র শিল্পকে বেগবান করার প্রশ্ন আসছে। চলচ্চিত্র শিল্পকে বেগবান করার জন্য নির্মাতারা বাজার কাটতি তারকা তৈরিতেও উদ্যোগী হয়েছেন। প্রযোজক পরিবেশক সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ার পর নতুন নেতৃত্ব এলে চলচ্চিত্র শিল্পে ব্যাপক একটা পরিবর্তন আসবে বলে অনেকেই মনে করছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

জাপার চেয়ারম্যান হিসেবে জি এম কাদেরের দায়িত্ব পালনে বাধা নেই

চলচ্চিত্র শিল্পকে বেগবান করতে চায় নতুন তারকা

প্রকাশের সময় : ০১:৩৫:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০১৯

জহিরুল ইসলাম রিপন ।। 

ছয় বছর আগে জাকির হোসেন রাজু যখন মনের মতো মানুষ পাইলাম না ছবির কাজ শুরু করেন তখন এ ছবির তারকা জুটি ছিলো শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস। কিন্তু ছয় বছর পর যখন ছবির গল্পটি সমকালীন করে রাজু শুরু করেছেন তখন অপুর স্থানে চলে এসেছেন শাকিব খানের হালের জুটি বুবলী। শাকিব খান এখন নায়িকা হিসেবে কেবল বুবলীকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন। আর কারো সঙ্গে তিনি ভরসা পাচ্ছেন না। নোলক ছবিটিতে তিনি অভিনয় করেছেন ববির সঙ্গে।

ছবিটি ফ্লপ করার পর নায়িকার ব্যাপারে শাকিব একটু নড়েছড়ে বসেছেন। পাসওয়ার্ড ছবিটি ব্যবসা সফল হওয়ার পর তিনি একসঙ্গে চারটি ছবির নাম ঘোষণা করেছেন এবং এসব ছবির সবগুলোতেই তিনি বুবলীকে নায়িকা নিয়েছেন। শাকিব খানের সন্তানের জননী হওয়ার আগে অপু বিশ্বাসকে নিয়েই তিনি জুটি বাঁধতেন, যদিও অপু তেমন ভালো অভিনেত্রী নন। তিনি ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন শাবনূরের বান্ধবী হিসেবে কাল সকালে ছবি দিয়ে। পরে এফআই মানিক ও ডিপজলের সুবাদে শাকিব খান জুটি বাঁধেন অপুর সঙ্গে। জুটি থেকে গৃহিণী। তারপর সন্তানের জননী। এখন অপুর স্থানে নায়িকা হিসেবে এসেছেন বুবলী। তাকে সব ছবিতেই শাকিবের বিপরীতে নেয়া হচ্ছে।

কিন্তু নির্মাতারা বুবলীকে আলাদাভাবে নিয়ে ছবি নির্মাণ করতে পারছেন না। বুবলীও মনে হয় শাকিবকে বাদ দিয়ে অন্য কোনো নায়কের সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী নন। ক’দিন আগে বুবলীর সঙ্গে যখন এই রিপোর্টারের কথা হয় তখন বুবলী বলেছিলেন, ছবি কোথায়? কার সঙ্গে কাজ করবো? চলচ্চিত্র শিল্প যখন দিশেহারা তখন শিল্পীদের দিশা থাকে কীভাবে? প্রশ্ন হচ্ছে একের পর এক শাকিবের বিপরীতে কাজ করতে গিয়ে বুবলী কি অপুর মতোই শাকিবনির্ভর হয়ে পড়ছেন না? তাতে কি তার তারকা মূল্য প্রতিষ্ঠিত হবে? হতে পারে, নাও হতে পারে। অপু বিশ্বাস অনেক ছবিতে কাজ করে অর্থ উপার্জন করেছেন ঠিকই, কিন্তু শাকিবনির্ভরতা এড়িয়ে অপু বিশ্বাস কখনোই নিজেকে প্রমাণ করতে পারেননি যে, তারও তারকা মূল্য আছে।

এই পরিস্থিতিতেই চলচ্চিত্র শিল্পকে বেগবান করার প্রশ্ন আসছে। চলচ্চিত্র শিল্পকে বেগবান করার জন্য নির্মাতারা বাজার কাটতি তারকা তৈরিতেও উদ্যোগী হয়েছেন। প্রযোজক পরিবেশক সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ার পর নতুন নেতৃত্ব এলে চলচ্চিত্র শিল্পে ব্যাপক একটা পরিবর্তন আসবে বলে অনেকেই মনে করছেন।