রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রাজস্ব আদায়ের প্রবৃদ্ধিতে দেশসেরা যশোর কাস্টমস

রোকনুজ্জামান রিপন ।। 

রাজস্ব আদায়ের প্রবৃদ্ধিতে এবার দেশসেরা হয়েছে যশোর কাস্টমস এক্সাইজ এ- ভ্যাট কমিশনারেট। বিদায়ী ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে যশোর কাস্টমসের রাজস্ব আয়ের প্রবৃদ্ধি হার দাঁড়িয়েছে ২৯ দশমিক ০১ শতাংশ। অথচ সারাদেশ মিলিয়ে সার্বিক প্রবৃদ্ধির এই হার মাত্র ১১ শতাংশ।
যশোর কাস্টমস সূত্র জানায়, বিগত তিন অর্থ বছরে যশোর কাস্টমসের রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ বেড়েছে। এরমধ্যে ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে রাজস্ব আয় হয় এক হাজার ৩৫০ কোটি ৩৯ লাখ টাকা ও প্রবৃদ্ধির হার ২৩ শতাংশ। ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে রাজস্ব আয় ও প্রবৃদ্ধি হয় যথাক্রমে এক হাজার ৫৮৭ কোটি ৭৬ লাখ টাকা ও ১৮ শতাংশ। সর্বশেষ অর্থ বছর অর্থাৎ ২০১৮-১৯ তে রাজস্ব আয়ের পরিমাণ দুই হাজার ৪৮ কোটি ৩৪ লাখ টাকা এবং প্রবৃদ্ধির হার দাঁড়িয়েছে ২৯ দশমিক ০১ শতাংশে। গত পাঁচ বছরের মধ্যে যশোর কাস্টমসে প্রবৃদ্ধির এই হার সর্বোচ্চ।

যশোর কাস্টমস এক্সাইজ এ- ভ্যাট কমিশনার মো. শওকাত হোসেন বলেন, টিম ওয়ার্ক, দক্ষ ও যোগ্য কর্মকর্তাদের যথাযথ স্থানে পদায়ন এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্যের (বাস্তবায়ন) সার্বক্ষণিক সহায়তা মনভাবাপন্ন মনিটরিংয়ের ফলেই তার কমিশনারেটের এই সফলতা অর্জন সম্ভব হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, এনবিআর কর্তৃপক্ষ যশোরে নিটল মোটরসকে রাজস্বমুক্ত ঘোষণা করায় এ বছর প্রতিষ্ঠানটি থেকে কোন রাজস্ব পাওয়া যায়নি। অথচ সেখান থেকে রাজস্ব আদায়ের টার্গেট ছিল ৪৬ কোটি টাকা। এছাড়া বেনাপোল বন্দর দিয়ে এবার আমদানি কম হওয়ায় অ্যাডভাঞ্চ ট্রেড ভ্যাট (এটিভি) প্রাপ্তির পরিমাণও কমেছে। যশোর কাস্টমসে জনবলেরও ঘাটতি রয়েছে। তারপরও নিয়মিত রেভিনিউ মিটিংসহ কর্মকর্তা-কর্মচারিদের তিনি নানাভাবে কাউন্সিলিং করায় সকলে কারো চাপে বা ভয়ে নয়; বরং দায়িত্ববোধের তাগিদে কাজ করেছেন। সফলতার পেছনে এটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে।
উল্লেখ্য, যশোর কাস্টমস এক্সাইজ এ- ভ্যাট কমিশনার মো. শওকাত হোসেন ২০১৭ সালে যশোরে যোগ দেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

জাপার চেয়ারম্যান হিসেবে জি এম কাদেরের দায়িত্ব পালনে বাধা নেই

রাজস্ব আদায়ের প্রবৃদ্ধিতে দেশসেরা যশোর কাস্টমস

প্রকাশের সময় : ১০:১২:২৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯
রোকনুজ্জামান রিপন ।। 

রাজস্ব আদায়ের প্রবৃদ্ধিতে এবার দেশসেরা হয়েছে যশোর কাস্টমস এক্সাইজ এ- ভ্যাট কমিশনারেট। বিদায়ী ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে যশোর কাস্টমসের রাজস্ব আয়ের প্রবৃদ্ধি হার দাঁড়িয়েছে ২৯ দশমিক ০১ শতাংশ। অথচ সারাদেশ মিলিয়ে সার্বিক প্রবৃদ্ধির এই হার মাত্র ১১ শতাংশ।
যশোর কাস্টমস সূত্র জানায়, বিগত তিন অর্থ বছরে যশোর কাস্টমসের রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ বেড়েছে। এরমধ্যে ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে রাজস্ব আয় হয় এক হাজার ৩৫০ কোটি ৩৯ লাখ টাকা ও প্রবৃদ্ধির হার ২৩ শতাংশ। ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে রাজস্ব আয় ও প্রবৃদ্ধি হয় যথাক্রমে এক হাজার ৫৮৭ কোটি ৭৬ লাখ টাকা ও ১৮ শতাংশ। সর্বশেষ অর্থ বছর অর্থাৎ ২০১৮-১৯ তে রাজস্ব আয়ের পরিমাণ দুই হাজার ৪৮ কোটি ৩৪ লাখ টাকা এবং প্রবৃদ্ধির হার দাঁড়িয়েছে ২৯ দশমিক ০১ শতাংশে। গত পাঁচ বছরের মধ্যে যশোর কাস্টমসে প্রবৃদ্ধির এই হার সর্বোচ্চ।

যশোর কাস্টমস এক্সাইজ এ- ভ্যাট কমিশনার মো. শওকাত হোসেন বলেন, টিম ওয়ার্ক, দক্ষ ও যোগ্য কর্মকর্তাদের যথাযথ স্থানে পদায়ন এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্যের (বাস্তবায়ন) সার্বক্ষণিক সহায়তা মনভাবাপন্ন মনিটরিংয়ের ফলেই তার কমিশনারেটের এই সফলতা অর্জন সম্ভব হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, এনবিআর কর্তৃপক্ষ যশোরে নিটল মোটরসকে রাজস্বমুক্ত ঘোষণা করায় এ বছর প্রতিষ্ঠানটি থেকে কোন রাজস্ব পাওয়া যায়নি। অথচ সেখান থেকে রাজস্ব আদায়ের টার্গেট ছিল ৪৬ কোটি টাকা। এছাড়া বেনাপোল বন্দর দিয়ে এবার আমদানি কম হওয়ায় অ্যাডভাঞ্চ ট্রেড ভ্যাট (এটিভি) প্রাপ্তির পরিমাণও কমেছে। যশোর কাস্টমসে জনবলেরও ঘাটতি রয়েছে। তারপরও নিয়মিত রেভিনিউ মিটিংসহ কর্মকর্তা-কর্মচারিদের তিনি নানাভাবে কাউন্সিলিং করায় সকলে কারো চাপে বা ভয়ে নয়; বরং দায়িত্ববোধের তাগিদে কাজ করেছেন। সফলতার পেছনে এটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে।
উল্লেখ্য, যশোর কাস্টমস এক্সাইজ এ- ভ্যাট কমিশনার মো. শওকাত হোসেন ২০১৭ সালে যশোরে যোগ দেন।