সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ১৭ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পদ্মা সেতু যারা চায়নি তারাই ছেলেধরা গুজবের হোতা: তথ্যমন্ত্রী

মনিরুল আলম মিশর ।।

মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, পদ্মা সেতু যারা চায়নি এবং যারা দেশের উন্নয়ন চায় না তারাই ছেলেধরা গুজবের মূল হোতা। বুধবার সচিবালয়ের নিজ দফতরে সাংবাদিকদের কাছে এ মন্তব্য করেন তিনি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা জানি, গত কয়েকদিন ধরে সমগ্র বাংলাদেশে ছেলেধরা গুজব ছড়িয়ে অনেক নিরীহ মানুষকে গণপিটুনি দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এগুলো সবই হত্যাকাণ্ড। যারা এই কাজগুলো করছে, তারা সবাই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত। যারা ছেলেধরা গুজবের সাথে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। ইতোমধ্যে আইন-শৃংখলা বাহিনী ৪৪ জনকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে এসেছে। একইসঙ্গে এ ধরনের গুজব যাতে না ছড়াতে পারে, তার জন্য নানাবিধ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আপনারা জানেন যে, ঘটনার সত্যতা হচ্ছে— পদ্মা সেতুতে শিশুবলি দিতে হবে বলে গুজব ছড়ানো হয়েছে। সেটির পরিপ্রেক্ষিতেই কিছু ডালপালা ছড়িয়ে এই হত্যাকাণ্ড হয়।’

এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সংবাদপত্র শিল্পে কর্মরত সাংবাদিক কর্মচারিদের জন্য নবম ওয়েজবোর্ড সম্পর্কিত একটি মিটিং বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে। ওই মিটিংয়ের পর তা মন্ত্রিপরিষদ বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

আট রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন

পদ্মা সেতু যারা চায়নি তারাই ছেলেধরা গুজবের হোতা: তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশের সময় : ০৭:১২:১৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯
মনিরুল আলম মিশর ।।

মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, পদ্মা সেতু যারা চায়নি এবং যারা দেশের উন্নয়ন চায় না তারাই ছেলেধরা গুজবের মূল হোতা। বুধবার সচিবালয়ের নিজ দফতরে সাংবাদিকদের কাছে এ মন্তব্য করেন তিনি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা জানি, গত কয়েকদিন ধরে সমগ্র বাংলাদেশে ছেলেধরা গুজব ছড়িয়ে অনেক নিরীহ মানুষকে গণপিটুনি দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এগুলো সবই হত্যাকাণ্ড। যারা এই কাজগুলো করছে, তারা সবাই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত। যারা ছেলেধরা গুজবের সাথে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। ইতোমধ্যে আইন-শৃংখলা বাহিনী ৪৪ জনকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে এসেছে। একইসঙ্গে এ ধরনের গুজব যাতে না ছড়াতে পারে, তার জন্য নানাবিধ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আপনারা জানেন যে, ঘটনার সত্যতা হচ্ছে— পদ্মা সেতুতে শিশুবলি দিতে হবে বলে গুজব ছড়ানো হয়েছে। সেটির পরিপ্রেক্ষিতেই কিছু ডালপালা ছড়িয়ে এই হত্যাকাণ্ড হয়।’

এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সংবাদপত্র শিল্পে কর্মরত সাংবাদিক কর্মচারিদের জন্য নবম ওয়েজবোর্ড সম্পর্কিত একটি মিটিং বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে। ওই মিটিংয়ের পর তা মন্ত্রিপরিষদ বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে।