বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ইরানের হুমকির পর পারস্য উপসাগরে যুদ্ধজাহাজ পাঠাল ব্রিটেন

মনিরুল আলম মিশর ।। 

ইরানের হুমকির পর নিজ দেশের তেলের ট্যাংকারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারস্য উপসাগরে আরও একটি যুদ্ধজাহাজ পাঠিয়েছে ব্রিটেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হোয়াইট হাউসে দেয়া এক ভাষণে ইরানে হামলার হুমকি দেয়ার পর গত ১২ জুলাই দ্বিতীয় ওই যুদ্ধজাহাজটি পাঠানো হয়।

৪ জুলাই ইরানের একটি তেলবাহী ট্যাংকার জিব্রাল্টার প্রণালিতে যুক্তরাজ্যের নৌবাহিনী আটক করলে দুদেশের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি পায়।তারই ধারাবাহিকতায় হরমুজ প্রণালিতে গত ৯ জুলাই একটি ব্রিটিশ জাহাজকে ধাওয়া করে ইরানের তিনটি গানবোট।

ইরান অবশ্য এ ঘটনা অস্বীকার করেছে। এর পর থেকেই পারস্য উপসাগরে শক্তি বৃদ্ধির পরিকল্পনা করে ব্রিটেন।

ইরানের তেল ট্যাংকারটি আটক করার পর থেকে ইরান ও ব্রিটেনের মধ্যে কূটনৈতিক অচলাবস্থা দেখা দিয়েছে। ব্রিটেন দাবি করছে- অপরিশোধিত তেল নিয়ে সিরিয়ার উদ্দেশে যাওয়ার সময় জাহাজটি আটক করা হয়।

তবে ইরান বলছে- জাহাজটি সিরিয়ায় যাচ্ছিল না এবং সিরিয়ার কোনো বন্দরেই এ ধরনের জাহাজ ভিড়তে পারে না।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

দেশ ধ্বংসের মাস্টারপ্ল্যান বাস্তবায়নে তৎপর বিএনপি: কাদের

ইরানের হুমকির পর পারস্য উপসাগরে যুদ্ধজাহাজ পাঠাল ব্রিটেন

প্রকাশের সময় : ০৮:৩৬:০৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০১৯
মনিরুল আলম মিশর ।। 

ইরানের হুমকির পর নিজ দেশের তেলের ট্যাংকারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারস্য উপসাগরে আরও একটি যুদ্ধজাহাজ পাঠিয়েছে ব্রিটেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হোয়াইট হাউসে দেয়া এক ভাষণে ইরানে হামলার হুমকি দেয়ার পর গত ১২ জুলাই দ্বিতীয় ওই যুদ্ধজাহাজটি পাঠানো হয়।

৪ জুলাই ইরানের একটি তেলবাহী ট্যাংকার জিব্রাল্টার প্রণালিতে যুক্তরাজ্যের নৌবাহিনী আটক করলে দুদেশের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি পায়।তারই ধারাবাহিকতায় হরমুজ প্রণালিতে গত ৯ জুলাই একটি ব্রিটিশ জাহাজকে ধাওয়া করে ইরানের তিনটি গানবোট।

ইরান অবশ্য এ ঘটনা অস্বীকার করেছে। এর পর থেকেই পারস্য উপসাগরে শক্তি বৃদ্ধির পরিকল্পনা করে ব্রিটেন।

ইরানের তেল ট্যাংকারটি আটক করার পর থেকে ইরান ও ব্রিটেনের মধ্যে কূটনৈতিক অচলাবস্থা দেখা দিয়েছে। ব্রিটেন দাবি করছে- অপরিশোধিত তেল নিয়ে সিরিয়ার উদ্দেশে যাওয়ার সময় জাহাজটি আটক করা হয়।

তবে ইরান বলছে- জাহাজটি সিরিয়ায় যাচ্ছিল না এবং সিরিয়ার কোনো বন্দরেই এ ধরনের জাহাজ ভিড়তে পারে না।