Barta Kontho
নিবন্ধন নম্বর: ৪৬১মঙ্গলবার , ২০ আগস্ট ২০১৯
  1. 1st Lead
  2. 2nd Lead
  3. অপরাধ
  4. আইটি বিশ্ব
  5. আইন ও আদালত
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আবহাওয়া
  8. ইসলাম
  9. খেলাধুলা
  10. চাকুরি
  11. ছবি ঘর
  12. জাতীয়
  13. জেলার খবর
  14. ট্রাভেল
  15. নির্বাচন

অবরুদ্ধ গণতন্ত্রকে মুক্ত করতে গণতন্ত্রেরনেত্রী খালেদা জিয়াকে আগে মুক্ত করতে হবে—-অধ্যাপক নাির্গস বেগম

বার্তাকন্ঠ
আগস্ট ২০, ২০১৯ ৭:১২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

মামুন বাবু ।। 

যশোর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক নাির্গস বেগম বলেছেন, দেশে আজ গণতন্ত্র লেশমাত্র নেই। ফ্যাসিস্ট সরকার নিজ হাতেই গণতন্ত্রকে অবরুদ্ধ করেছে। তাই দেশে কেউ স্বস্তিতে নেই। সরকার রয়েছে চরম অস্বস্তির মধ্যে। কারণ, নির্যাতিত নিপীড়িত জনগণ কখন জানি অবৈধ সরকারের ক্ষমতার মসনদ ধ্বংস করে দেয়। এই ভয়ে সরকার একের পর এক নিরীহ জনগণের ওপর একের পর এক নির্যাতনের স্টিম রোলার চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি গতকাল সোমবার জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শহরের লালদিঘিপাড়স্থ জেলা বিএনপির কার্যালয়ে এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। সমাবেশে অধ্যাপক নার্গিস বেগম আরও বলেন, ফ্যাসিস্ট সরকার একটি মিথ্যা মামলায় বিএনপির চেয়ারপার্সন ‘ফরমায়েসি রায়ে’ সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে দীর্ঘদিন কারাবন্দি করে রেখেছে। আজ এই সরকারের যত ভয় বেগম খালেদা জিয়াকে নিয়ে। কারণ, তিনি দেশের একমাত্র গণতন্ত্রকামী নেত্রী। তিনি দেশের অবরুদ্ধ গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে একমাত্র আশার প্রতীক। তার দিকে চেয়ে আছে দেশের সকল নির্যাতিত-নিপীড়িত জনগণ। তিনি মুক্ত হলে রাজপথে জনতার ঢল নামবে। তার নেতৃত্বে জনতার আন্দোলনে মুক্ত হবে দেশের অবরুদ্ধ গণতন্ত্র। এ জন্যে সরকার বিচার বিভাগের ওপর হস্তক্ষেপ করার মাধ্যমে তাকে অবৈধভাবে কারাবন্দি করে রেখেছে। বেগম খালেদা জিয়া আপোষহীন নেত্রী। তিনি মাথানত করতে জানেন না।
অধ্যাপক নার্গিস বেগম বলেন, রাষ্ট্র পরিচালনায় সর্বক্ষেত্রে ব্যর্থ এই সরকার দেশের শেয়ার বাজার, ব্যাংকসহ অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান যেমনি নিজ হাতে ধ্বংস করেছে তেমনি দেশের চামড়া খাতকে পুরোপুরি ধ্বংস করেছে। এবারের ঈদুল আজহায় চামড়া বাজারের অস্বাভাবিক দরপতন তারই উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। বাজারে কোন চামড়া বেচাকেনা নেই। ব্যবসায়ীরা লাখ লাখ চামড়া কিনে সড়কে ফেলে প্রতিবাদ জানিয়েছে। সরকার চামড়া ব্যবসায়ীদের মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। এসব ঘটনার প্রকৃত কারণ যাতে উদ্ঘাটন না হয় সে জন্যে সরকার বিভিন্ন কথাবার্তা বলে এটি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করছে। এ অবস্থায় দেশের অবরুদ্ধ গণতন্ত্রকে মুক্ত করতে হলে গণতন্ত্রের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে আগে মুক্ত করতে হবে। তাকে মুক্ত করার জন্যে যশোর থেকে দুর্বার আন্দোলনের সূচনা করতে হবে। তিনি সেই আন্দোলনে দলের সকল স্তরের নেতা-কর্মীকে একাট্টা হয়ে অংশ নেয়ার আহ্বান জানান। সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকন। এছাড়া সমাবেশে জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি রবিউল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা আমির ফয়সালের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আব্দুস সালাম আজাদ, সদর উপজেলা বিএনপির সাদারণ সম্পাদক কাজী আজম, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আনসারুল হক রানা, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি নির্মল কুমার বিট, যুগ্ম সম্পাদক রেজোয়ানুল ইসলাম খান রিয়েল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আলী হায়দার রানা, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি রাজিদুর রহমান সাগর, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান মিলন, যুগ্ম সম্পাদক রাজু আহমেদ, শামীম রেজা অর্নব, দপ্তর সম্পাদক সাইফুল বাশার সুজন, প্রচার সম্পাদক ইমরান হোসেন রনি, অভয়নগর উপজেলার যুগ্ম আহ্বায়ক মোল্লা হাবিবুর রহমান প্রমুখ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন- সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি নূর-উন-নবী, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সিরাজুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম চৌধুরী মুল্লুক চাঁদ, চুড়ামনকাটি ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আব্দুস সাত্তার, জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি এহসানুল হক মুন্না, বর্তমান যুগ্ম সম্পাদক নাজমুল হোসেন বাবুল, জেলা মহিলা দলের সাংগঠনিক সম্পাদক রাশিদা রহমান, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান বাপ্পি, সদর উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি তানভীর রায়হান তুহিন প্রমুখ।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।