বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভারতে ২ বছর কারাভোগের পরে ৮ বাংলাদেশী নারীকে হ্স্তান্তর করেছে বিএসএফ

মিলন হোসেন ।। স্টাফ রিপোর্টার ।।
ভাল কাজের সন্ধানে বিভিন্ন সময় ভারতে পাচার হওয়া ৮ বাংলাদেশি নারীকে ফেরত পাঠিয়েছেন ভারতীয় বিএসএফ ।
(২০আগস্ট) মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় আনুষ্ঠানিকতা শেষে ভারতের পেট্রাপোল বিএসএফ তাদেরকে চেকপোস্ট বিজিবি ও ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে তুলে দেয়।
রাইটস যশোর নামে একটি এনজিও সংস্থা তাদেরকে পরিবারের কাছে পৌঁছে দিতে নিজেদের জিম্মায় নিয়েছেন।
ফেরত আসা বাংলাদেশিরা হলেন- ঠাকুরগাও মিম আক্তার(১৭), মনি আক্তার (১৯) রুবিনা খাতুন (১৮),রিনা বেগম(১৬),মুক্তা আক্তার (১৯ ),বরিশালের মুন্নি আক্তার (২২),ইতি খাতুন (২১)ও রেক্সোনা আক্তার (১৭)।
পাচারের শিকার মনি আক্তার জানান, ভালো কাজের কথা বলে তাঁকে সীমান্ত পথে ভারতে নিয়ে যায়। পরে দালালরা তাকে কোলকাতা রেল স্টেশনে ফেলে পালিয়ে আসে। ভারতীয় পুলিশ তাকে আটক করে জেলে পাঠায়। সাজার মেয়াদ শেষে সেখান থেকে কলকাতা হাওড়ায় অবস্থিত লিলুয়া সেলটার হোম নামে একটি এনজিও সংস্থা তাকে ছাড়িয়ে নিজেদের আশ্রয়ে রাখে। ২ বছর পর আজ বাড়ি ফিরছেন।
এনজিও সংস্থা রাইটস যশোর এর প্রতিনিধি তৌফিকুজ্জামান জানান, দুই দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যোগাযোগের মাধ্যমে তাদেরকে স্বদেশ প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ায় তাদের ফেরত আনা হয়েছে। এরা যদি পাচারকারীদের শনাক্ত করে মামলা করতে আইনি সহায়তা করা হবে।
বেনাপোল আইসিপি বিজিবি ক্যাম্পের নায়েব সুবেদার আতিয়ার রহমান জানান, কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদেরকে পোর্টথানা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

ভারতে ২ বছর কারাভোগের পরে ৮ বাংলাদেশী নারীকে হ্স্তান্তর করেছে বিএসএফ

প্রকাশের সময় : ০৭:২১:৩১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯
মিলন হোসেন ।। স্টাফ রিপোর্টার ।।
ভাল কাজের সন্ধানে বিভিন্ন সময় ভারতে পাচার হওয়া ৮ বাংলাদেশি নারীকে ফেরত পাঠিয়েছেন ভারতীয় বিএসএফ ।
(২০আগস্ট) মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় আনুষ্ঠানিকতা শেষে ভারতের পেট্রাপোল বিএসএফ তাদেরকে চেকপোস্ট বিজিবি ও ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে তুলে দেয়।
রাইটস যশোর নামে একটি এনজিও সংস্থা তাদেরকে পরিবারের কাছে পৌঁছে দিতে নিজেদের জিম্মায় নিয়েছেন।
ফেরত আসা বাংলাদেশিরা হলেন- ঠাকুরগাও মিম আক্তার(১৭), মনি আক্তার (১৯) রুবিনা খাতুন (১৮),রিনা বেগম(১৬),মুক্তা আক্তার (১৯ ),বরিশালের মুন্নি আক্তার (২২),ইতি খাতুন (২১)ও রেক্সোনা আক্তার (১৭)।
পাচারের শিকার মনি আক্তার জানান, ভালো কাজের কথা বলে তাঁকে সীমান্ত পথে ভারতে নিয়ে যায়। পরে দালালরা তাকে কোলকাতা রেল স্টেশনে ফেলে পালিয়ে আসে। ভারতীয় পুলিশ তাকে আটক করে জেলে পাঠায়। সাজার মেয়াদ শেষে সেখান থেকে কলকাতা হাওড়ায় অবস্থিত লিলুয়া সেলটার হোম নামে একটি এনজিও সংস্থা তাকে ছাড়িয়ে নিজেদের আশ্রয়ে রাখে। ২ বছর পর আজ বাড়ি ফিরছেন।
এনজিও সংস্থা রাইটস যশোর এর প্রতিনিধি তৌফিকুজ্জামান জানান, দুই দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যোগাযোগের মাধ্যমে তাদেরকে স্বদেশ প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ায় তাদের ফেরত আনা হয়েছে। এরা যদি পাচারকারীদের শনাক্ত করে মামলা করতে আইনি সহায়তা করা হবে।
বেনাপোল আইসিপি বিজিবি ক্যাম্পের নায়েব সুবেদার আতিয়ার রহমান জানান, কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদেরকে পোর্টথানা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে