মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বেনাপোল বন্দরের কেমিক্যাল শেডে আগুন লেগে কোটি টাকার আমদানী পণ্য পুড়ে ছাঁই : ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন 

রোকনুজ্জামান রিপন ।।

বেনাপোল বন্দরের ৩৫ নম্বর কেমিক্যাল শেডে আজ মঙ্গলবার সকালে অগ্নিকান্ডে কোটি টাকার আমদানি পণ্য পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল ৯ টার দিকে কেমিক্যালের বিক্রিয়ায় বন্দরের ৩৫ নাম্বার শেডে হঠাৎ করে আগুন ধরে যায়। পরে বন্দর কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষনিকভাবে বেনাপোল ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের এক ঘন্টা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়। তবে কেমিক্যালের বিক্রিয়ায় আগুন লেগেছে বলে ধারনা করছেনা বন্দর কর্তৃপ। এ ব্যাপারে বন্দর কর্তৃপ বন্দরের ডেপুটি ডাইরেক্টর আব্দুল জলিলের নেতৃত্বে  ৭ সদস্যের একটি তদন্ত— টিম গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে  আগামী ১৫ দিনের মধ্যে রিপোর্ট প্রদানের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

গোডাউন ইনচার্জ মনির হোসেন জানান, সকালে গোডাউন খুলেই ভিতরে আগুন দেখতে পেয়ে বন্দর পরিচালক ও ফায়ার সার্ভিসকে  জানানো হয়। আনসার সদস্যরা পাশের গোডাউন থেকে আগুন নির্বাপক গ্যাস এনে আগুন নেভানোর চেস্টা করে। পরে ফায়ার সার্ভিসের ১টি ইউনিট এক ঘন্টা চেস্টা করে আগুন পরোপুরি নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হন। তবে তিনি জানান, বন্দরের নিজস্ব ফায়ার ইউনিটের লোকবল কম থাকায় আগুন তাৎক্ষনিক নেভানো সম্ভব হয়নি। ফায়রা ইউনিটের সক্ষমতা বাড়ানোর জন্য তিনি বলেন।

বেনাপোল বন্দর পরিচালক প্রদোষ কান্তি দাস জানান, সকালে কেমিক্যালের ৩৫ নাম্বার শেডে হঠাৎ করে কেমিক্যালের বিক্রিয়ায় আগুন লেগে আমদানিকৃত বেশ কিছু মালামাল পুড়ে গেছে। তবে তদন্ত  কমিটি রিপোর্ট দিলে বিষয়টি পরিস্কার হয়ে যাবে। বর্তমানে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রনে আছে।

 

 

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

বেনাপোল বন্দরের কেমিক্যাল শেডে আগুন লেগে কোটি টাকার আমদানী পণ্য পুড়ে ছাঁই : ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন 

প্রকাশের সময় : ০১:৫২:১৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ অগাস্ট ২০১৯

রোকনুজ্জামান রিপন ।।

বেনাপোল বন্দরের ৩৫ নম্বর কেমিক্যাল শেডে আজ মঙ্গলবার সকালে অগ্নিকান্ডে কোটি টাকার আমদানি পণ্য পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল ৯ টার দিকে কেমিক্যালের বিক্রিয়ায় বন্দরের ৩৫ নাম্বার শেডে হঠাৎ করে আগুন ধরে যায়। পরে বন্দর কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষনিকভাবে বেনাপোল ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের এক ঘন্টা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়। তবে কেমিক্যালের বিক্রিয়ায় আগুন লেগেছে বলে ধারনা করছেনা বন্দর কর্তৃপ। এ ব্যাপারে বন্দর কর্তৃপ বন্দরের ডেপুটি ডাইরেক্টর আব্দুল জলিলের নেতৃত্বে  ৭ সদস্যের একটি তদন্ত— টিম গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে  আগামী ১৫ দিনের মধ্যে রিপোর্ট প্রদানের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

গোডাউন ইনচার্জ মনির হোসেন জানান, সকালে গোডাউন খুলেই ভিতরে আগুন দেখতে পেয়ে বন্দর পরিচালক ও ফায়ার সার্ভিসকে  জানানো হয়। আনসার সদস্যরা পাশের গোডাউন থেকে আগুন নির্বাপক গ্যাস এনে আগুন নেভানোর চেস্টা করে। পরে ফায়ার সার্ভিসের ১টি ইউনিট এক ঘন্টা চেস্টা করে আগুন পরোপুরি নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হন। তবে তিনি জানান, বন্দরের নিজস্ব ফায়ার ইউনিটের লোকবল কম থাকায় আগুন তাৎক্ষনিক নেভানো সম্ভব হয়নি। ফায়রা ইউনিটের সক্ষমতা বাড়ানোর জন্য তিনি বলেন।

বেনাপোল বন্দর পরিচালক প্রদোষ কান্তি দাস জানান, সকালে কেমিক্যালের ৩৫ নাম্বার শেডে হঠাৎ করে কেমিক্যালের বিক্রিয়ায় আগুন লেগে আমদানিকৃত বেশ কিছু মালামাল পুড়ে গেছে। তবে তদন্ত  কমিটি রিপোর্ট দিলে বিষয়টি পরিস্কার হয়ে যাবে। বর্তমানে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রনে আছে।