বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুড়িগ্রাম সীমান্ত হতে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করেছে বিজিবি

স্টাফ রিপোর্টার ।। লালমনিরহাট।। 

লালমনিরহাট ব্যাটালিয়ন ১৫ বিজিবি অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ আনোয়ার-উল-আলম, বিজিবিএম, পিবিজিএম সিভিল সোর্সের মাধ্যমে গত ২৭ আগস্ট ২০১৯ তারিখ সংবাদ পান যে, অদ্য ২৮ আগস্ট ২০১৯ তারিখ রাতে ভারতীয় অস্ত্র ও গুলিসহ বাংলাদেশী চোরাকারবারী সীমান্ত পিলার ৯৪৭/৪-এস এবং ৯৪৭/৫-এস এর মাঝমাঝি ফেলানীর মোড় নামক স্থান দিয়ে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করবে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে লালমনিরহাট ব্যাটালিয়ন (১৫ বিজিবি) সদর হতে অধিনায়ক এবং সুবেদার মেজর মোঃ সিরাজুল ইসলামসহ একটি টহল দল তৎক্ষনাত কাশিপুর কোম্পানী সদরে গমন করেন এবং কোম্পানী কমান্ডার নাঃ সুবেঃ মুকুল চন্দ্র রায়কে নিয়ে উল্লিখিত এলাকায় অবস্থান গ্রহণ করেন। রাত আনুমানিক ০২০০ ঘটিকায় দেখতে পান যে, একজন লোক বাংলাদেশের দিকে আসতেছে; সীমান্ত পিলার ৯৪৭/৪-এস হতে আনুমানিক ১০০ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে আসলে টহল দল তাকে ধাওয়া করলে সে বাঁশঝাড়ের মধ্যে তার হাতে থাকা একটি ব্যাগ ফেলে ভারতের দিকে দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে টহল দল ঘটনাস্থল হতে উক্ত ব্যাগ তল্লাশী করে ভারতীয় পিস্তল-০১টি, পিস্তলের ম্যাগাজিন-০১টি, স্প্রিং-০১টি এবং ০৬ রাউন্ড বুলেট ফেলে । উদ্ধারকৃত পিস্তলের মূল্য ১,০০,০০০/- এবং ০৬ টি বুলেটের মূল্য (৬ ী ২০০/-) ১,২০০/- টাকা । মোট সিজার মূল্য ১,০১,২০০/- (এক লক্ষ এক হাজার দুইশত টাকা) মাত্র।
উল্লেখ্য, উদ্ধারকৃত অস্ত্র ও গুলি ফুলবাড়ী থানায় হস্তান্তরের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন। লালমনিরহাট ব্যাটালিয়ন (১৫ বিজিবি) অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মোঃ আনোয়ার-উল-আলম, বিজিবিএম, পিবিজিএম সীমান্তে নিয়োজিত বিজিবি সদস্যদের অস্ত্র, মাদক ও চোরাচালানের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বনের জন্য নির্দেশনা প্রদান করেছেন। উক্ত নির্দেশনার আলোকে বিজিবি সদস্যগণ সীমান্তে টহল তৎপরতা জোরদারসহ যথাযথ কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করছে।
উল্লেখ্য, সীমান্তবর্তী মানুষকে অবৈধ অনুপ্রবেশ, চোরাকারবারী এবং আন্তঃ সীমান্ত অপরাধীদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে ব্যাপক গণসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছে বিজিবি। সীমান্তবাসীদের পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে গণমা

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

কুড়িগ্রাম সীমান্ত হতে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করেছে বিজিবি

প্রকাশের সময় : ০৭:৩৬:১৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ অগাস্ট ২০১৯
স্টাফ রিপোর্টার ।। লালমনিরহাট।। 

লালমনিরহাট ব্যাটালিয়ন ১৫ বিজিবি অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ আনোয়ার-উল-আলম, বিজিবিএম, পিবিজিএম সিভিল সোর্সের মাধ্যমে গত ২৭ আগস্ট ২০১৯ তারিখ সংবাদ পান যে, অদ্য ২৮ আগস্ট ২০১৯ তারিখ রাতে ভারতীয় অস্ত্র ও গুলিসহ বাংলাদেশী চোরাকারবারী সীমান্ত পিলার ৯৪৭/৪-এস এবং ৯৪৭/৫-এস এর মাঝমাঝি ফেলানীর মোড় নামক স্থান দিয়ে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করবে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে লালমনিরহাট ব্যাটালিয়ন (১৫ বিজিবি) সদর হতে অধিনায়ক এবং সুবেদার মেজর মোঃ সিরাজুল ইসলামসহ একটি টহল দল তৎক্ষনাত কাশিপুর কোম্পানী সদরে গমন করেন এবং কোম্পানী কমান্ডার নাঃ সুবেঃ মুকুল চন্দ্র রায়কে নিয়ে উল্লিখিত এলাকায় অবস্থান গ্রহণ করেন। রাত আনুমানিক ০২০০ ঘটিকায় দেখতে পান যে, একজন লোক বাংলাদেশের দিকে আসতেছে; সীমান্ত পিলার ৯৪৭/৪-এস হতে আনুমানিক ১০০ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে আসলে টহল দল তাকে ধাওয়া করলে সে বাঁশঝাড়ের মধ্যে তার হাতে থাকা একটি ব্যাগ ফেলে ভারতের দিকে দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে টহল দল ঘটনাস্থল হতে উক্ত ব্যাগ তল্লাশী করে ভারতীয় পিস্তল-০১টি, পিস্তলের ম্যাগাজিন-০১টি, স্প্রিং-০১টি এবং ০৬ রাউন্ড বুলেট ফেলে । উদ্ধারকৃত পিস্তলের মূল্য ১,০০,০০০/- এবং ০৬ টি বুলেটের মূল্য (৬ ী ২০০/-) ১,২০০/- টাকা । মোট সিজার মূল্য ১,০১,২০০/- (এক লক্ষ এক হাজার দুইশত টাকা) মাত্র।
উল্লেখ্য, উদ্ধারকৃত অস্ত্র ও গুলি ফুলবাড়ী থানায় হস্তান্তরের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন। লালমনিরহাট ব্যাটালিয়ন (১৫ বিজিবি) অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মোঃ আনোয়ার-উল-আলম, বিজিবিএম, পিবিজিএম সীমান্তে নিয়োজিত বিজিবি সদস্যদের অস্ত্র, মাদক ও চোরাচালানের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বনের জন্য নির্দেশনা প্রদান করেছেন। উক্ত নির্দেশনার আলোকে বিজিবি সদস্যগণ সীমান্তে টহল তৎপরতা জোরদারসহ যথাযথ কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করছে।
উল্লেখ্য, সীমান্তবর্তী মানুষকে অবৈধ অনুপ্রবেশ, চোরাকারবারী এবং আন্তঃ সীমান্ত অপরাধীদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে ব্যাপক গণসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছে বিজিবি। সীমান্তবাসীদের পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে গণমা