রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বার্ষিকী পালন উপলক্ষে আওয়ামীলীগের দু গ্রুপের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচী পালিত

সম্রাট আকবর ।। 

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী পালন উপলক্ষে আজ শনিবার মুখোমুখি অবস্থান নেয় বেনাপোলে আওয়ামীলিগের দুই প্রতিদ্বন্দ্বী পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটন গ্রুপ এবং শার্শার সাংসদ আফিল উদ্দিন গ্রুপ একই স্থানে তারা সভা-সমাবেশের কমর্সূচী আহবান করেন।

প্রশাসনের কর্মকর্তারা বিব্রত বোধ করেন পাল্টা পাল্টি সমাবেশে। আইন শৃংখলা রক্ষায় দুই গ্রুপের মধ্যে দ্বন্দ্ব এড়াতে যশোর জেলা প্রশাসক, শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও বেনাপোল পোর্ট থানার বর্তমান ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ আলমগীর হোসেন এর সাথে কথা বলেন। পুলিশ তাদের  দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে বিষয়টিকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহন করেন পোর্ট থানার ওসি আলমগীর হোসেন। তিনি সভা-সমাবেশের ব্যাপারে দুই পক্ষের নেতাকর্মীদের সাথে জরুরী ভাবে বৈঠক করেন।

মেয়র পন্থী গ্রুপকে তাদের দলীয় কার্যালয়ে এবং সাংসদ আফিল গ্রুপকে বেনাপোল বলফিল্ড এলাকায়  সভা-সমাবেশ করার অনুমতি প্রদান করেন। অনেক দর কষাকষির পর উভয় পক্ষের নেতা -কর্মিরা ওসি’র সিদ্ধান্তের প্রতি সমর্থন জানিয়ে দুই পক্ষ স্ব-স্ব স্থানে  শান্তিপূর্ণ ভাবে  সভা-সমাবেশ করেছেন।

দুই গ্রুপের  সংঘর্ষ এড়াতে মোতায়ন করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ। বেনাপোলে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ সৃষ্টিতে ওসি আলমগীর ১৪৪ ধারা জারি না করে যে বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দিয়েছেন তা সত্যিই প্রশংসার দাবিদার বলে মন্তব্য এলাকাবাসীর।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

গ্রন্থাগার দিবসের প্রতিপাদ্য ‘স্মার্ট গ্রন্থাগার, স্মার্ট বাংলাদেশ : মতিয়া চৌধুরী

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বার্ষিকী পালন উপলক্ষে আওয়ামীলীগের দু গ্রুপের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচী পালিত

প্রকাশের সময় : ১০:৪৪:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩১ অগাস্ট ২০১৯
সম্রাট আকবর ।। 

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী পালন উপলক্ষে আজ শনিবার মুখোমুখি অবস্থান নেয় বেনাপোলে আওয়ামীলিগের দুই প্রতিদ্বন্দ্বী পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটন গ্রুপ এবং শার্শার সাংসদ আফিল উদ্দিন গ্রুপ একই স্থানে তারা সভা-সমাবেশের কমর্সূচী আহবান করেন।

প্রশাসনের কর্মকর্তারা বিব্রত বোধ করেন পাল্টা পাল্টি সমাবেশে। আইন শৃংখলা রক্ষায় দুই গ্রুপের মধ্যে দ্বন্দ্ব এড়াতে যশোর জেলা প্রশাসক, শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও বেনাপোল পোর্ট থানার বর্তমান ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ আলমগীর হোসেন এর সাথে কথা বলেন। পুলিশ তাদের  দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে বিষয়টিকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহন করেন পোর্ট থানার ওসি আলমগীর হোসেন। তিনি সভা-সমাবেশের ব্যাপারে দুই পক্ষের নেতাকর্মীদের সাথে জরুরী ভাবে বৈঠক করেন।

মেয়র পন্থী গ্রুপকে তাদের দলীয় কার্যালয়ে এবং সাংসদ আফিল গ্রুপকে বেনাপোল বলফিল্ড এলাকায়  সভা-সমাবেশ করার অনুমতি প্রদান করেন। অনেক দর কষাকষির পর উভয় পক্ষের নেতা -কর্মিরা ওসি’র সিদ্ধান্তের প্রতি সমর্থন জানিয়ে দুই পক্ষ স্ব-স্ব স্থানে  শান্তিপূর্ণ ভাবে  সভা-সমাবেশ করেছেন।

দুই গ্রুপের  সংঘর্ষ এড়াতে মোতায়ন করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ। বেনাপোলে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ সৃষ্টিতে ওসি আলমগীর ১৪৪ ধারা জারি না করে যে বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দিয়েছেন তা সত্যিই প্রশংসার দাবিদার বলে মন্তব্য এলাকাবাসীর।