বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

যশোরে জামিনে থাকা চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীদের আটকের দাবিতে পুলিশ সুপারের অফিসের সামনে মানববন্ধন

মাহবুবুল আলম টুটুল :=

জামিনে থাকা ছিনতাইকারী, চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষার দাবিতে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে মঙ্গলবার মানববন্ধন করেছেন যশোর সদরের দেয়াড়া ইউনিয়নের নারাঙ্গালী গ্রামবাসী। এসময় তারা পুলিশ সুপার বরারব লিখিত অভিযোগ দেন।
গ্রামবাসীর পক্ষে গোলাম রসুল বলেন, গ্রামের আবু তালেব, রাজ্জাক, ইমন, ইউসুফ, শহিদুল, মহিদুলসহ তাদের সঙ্গীয় সন্ত্রাসীরা নারাঙ্গালী ও পার্শ্ববর্তী ডুমদিয়া গ্রামে সন্ত্রাসী কর্মকা-, চাঁদাবাজি, ছিনতাই ও মাদকের কারবার করে আসছে। বিভিন্ন সময় মানুষের ওপর অত্যাচার করে টাকা আদায় করে। আর তাদের টাকা না দিলে খুন জখমের হুমকি দেয়। তাদের অত্যাচারে এলাকাবাসী অতিষ্ট হয়ে গোলাম রসুলসহ গ্রামবাসী প্রতিবাদ করেন। এতে তারা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে গত ১ অক্টোবর আমাদের উপর হামলা চালায়। এব্যাপারে থানায় মামলা হয়। এ মামলায় দুইজন আটকও হয়। কিন্তু তারা জামিনে মুক্তি পেয়ে আবার এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকা- শুরু করেছে। হত্যার হুমকি দিচ্ছে। এব্যাপারে গ্রামবাসী আইনগত ব্যবস্থার দাবি জানান। পরে পুলিশ সুপার ছিনতাইকারী, চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীদের আটকের  প্রতিশ্রুতি দিলে তারা ফিরে যায়।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

ড. ইউনূসকে ৫০ কোটি টাকা কর জমা দিয়ে আপিল করতে হবে : হাইকোর্ট রায়

যশোরে জামিনে থাকা চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীদের আটকের দাবিতে পুলিশ সুপারের অফিসের সামনে মানববন্ধন

প্রকাশের সময় : ০৭:৫৩:১৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯
মাহবুবুল আলম টুটুল :=

জামিনে থাকা ছিনতাইকারী, চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষার দাবিতে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে মঙ্গলবার মানববন্ধন করেছেন যশোর সদরের দেয়াড়া ইউনিয়নের নারাঙ্গালী গ্রামবাসী। এসময় তারা পুলিশ সুপার বরারব লিখিত অভিযোগ দেন।
গ্রামবাসীর পক্ষে গোলাম রসুল বলেন, গ্রামের আবু তালেব, রাজ্জাক, ইমন, ইউসুফ, শহিদুল, মহিদুলসহ তাদের সঙ্গীয় সন্ত্রাসীরা নারাঙ্গালী ও পার্শ্ববর্তী ডুমদিয়া গ্রামে সন্ত্রাসী কর্মকা-, চাঁদাবাজি, ছিনতাই ও মাদকের কারবার করে আসছে। বিভিন্ন সময় মানুষের ওপর অত্যাচার করে টাকা আদায় করে। আর তাদের টাকা না দিলে খুন জখমের হুমকি দেয়। তাদের অত্যাচারে এলাকাবাসী অতিষ্ট হয়ে গোলাম রসুলসহ গ্রামবাসী প্রতিবাদ করেন। এতে তারা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে গত ১ অক্টোবর আমাদের উপর হামলা চালায়। এব্যাপারে থানায় মামলা হয়। এ মামলায় দুইজন আটকও হয়। কিন্তু তারা জামিনে মুক্তি পেয়ে আবার এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকা- শুরু করেছে। হত্যার হুমকি দিচ্ছে। এব্যাপারে গ্রামবাসী আইনগত ব্যবস্থার দাবি জানান। পরে পুলিশ সুপার ছিনতাইকারী, চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীদের আটকের  প্রতিশ্রুতি দিলে তারা ফিরে যায়।