মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শার্শায় প্রাথমিক শিক্ষকদের মুখে কালোকাপড় বেঁধে প্রতিবাদ

এম ওসমান : স্টাফ রিপোর্টার := প্রাথিমিক শিক্ষকদের  মহাসমাবেশে নির্যাতনের প্রতিবাদে মুখে কালোকাপড় বেঁধে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেছেন শার্শা উপজেলার শিক্ষকদের ।
যশোরের শার্শা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক ওসমান গনি মুকুল বলেন, শনিবার উপজেলার ১২৬টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের  তাদের বিদ্যালয়ের সামনে সকাল ১১টা থেকে ১১টা ১০মিনিট পর্যন্ত— এই কর্মসূচি পালন করেন। একযোগে দেশের সব বিদ্যালয়ের শিক্ষক রা এ কর্মসূচি পালন করেছেন।
মুকুল আরো বলেন, গত বুধবার মহাসমাবেশে শিক্ষকদের  ওপর নির্যাতনের প্রতিবাদে শিক্ষকদের শিক্ষা  প্রতিষ্ঠানে শনিবার সকাল ১১টা থেকে ১১টা ১০মিনিট পর্যন্ত— একযোগে মুখে কালোকাপড় বেঁধে এ কর্মসূচি পালন করতে নির্দেশনা দেন শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় নেতারা।
উলে­খ্য, গত বুধবার গ্রেড পরিবর্তন ও বেতন বৃদ্ধির দাবিতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শিক্ষকদের  পূর্বঘোষিত মহা সমাবেশে বাধা দেয় পুলিশ। শিক্ষকরা শহীদ মিনারের সামনে থেকে সরে গিয়ে পাশেই অবস্থান নেন। এ সময় পুলিশের দুই দফায় লাঠিচার্জে ১০ জন আহত হন বলে শিক্ষক নেতারা দাবি করেছেন। আগামী ১৩ নভেম্বরে মধ্যে ১০ম গ্রেড ও সহকারীদের ১১তম গ্রেড না দিলে আসন্ন প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা  এবং পরে বার্ষিক পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক রা।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

শার্শায় প্রাথমিক শিক্ষকদের মুখে কালোকাপড় বেঁধে প্রতিবাদ

প্রকাশের সময় : ০৯:২৬:৩১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ অক্টোবর ২০১৯

এম ওসমান : স্টাফ রিপোর্টার := প্রাথিমিক শিক্ষকদের  মহাসমাবেশে নির্যাতনের প্রতিবাদে মুখে কালোকাপড় বেঁধে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেছেন শার্শা উপজেলার শিক্ষকদের ।
যশোরের শার্শা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক ওসমান গনি মুকুল বলেন, শনিবার উপজেলার ১২৬টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের  তাদের বিদ্যালয়ের সামনে সকাল ১১টা থেকে ১১টা ১০মিনিট পর্যন্ত— এই কর্মসূচি পালন করেন। একযোগে দেশের সব বিদ্যালয়ের শিক্ষক রা এ কর্মসূচি পালন করেছেন।
মুকুল আরো বলেন, গত বুধবার মহাসমাবেশে শিক্ষকদের  ওপর নির্যাতনের প্রতিবাদে শিক্ষকদের শিক্ষা  প্রতিষ্ঠানে শনিবার সকাল ১১টা থেকে ১১টা ১০মিনিট পর্যন্ত— একযোগে মুখে কালোকাপড় বেঁধে এ কর্মসূচি পালন করতে নির্দেশনা দেন শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় নেতারা।
উলে­খ্য, গত বুধবার গ্রেড পরিবর্তন ও বেতন বৃদ্ধির দাবিতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শিক্ষকদের  পূর্বঘোষিত মহা সমাবেশে বাধা দেয় পুলিশ। শিক্ষকরা শহীদ মিনারের সামনে থেকে সরে গিয়ে পাশেই অবস্থান নেন। এ সময় পুলিশের দুই দফায় লাঠিচার্জে ১০ জন আহত হন বলে শিক্ষক নেতারা দাবি করেছেন। আগামী ১৩ নভেম্বরে মধ্যে ১০ম গ্রেড ও সহকারীদের ১১তম গ্রেড না দিলে আসন্ন প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা  এবং পরে বার্ষিক পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক রা।