সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি- রফতানি শুরু ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে —-

সাজেদুর রহমান : সিনিয়র রিপোর্টার :=
ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে ইন্টারনেট সার্ভারে প্রিন্টার ত্র“টির কারনে তৃতীয় দিনের মাথায় আজ সোমবার সকাল থেকে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে শুরু হয়েছে দু’ দেশের মধ্যে আমদানি বাণিজ্য। গত ২ দিনে আমদানী বানিজ্য বন্ধ থাকায় স্থবির হয়ে পড়েছে বেনাপোল বন্দর। তবে বন্দরে লোড আনলোড সহ পণ্য ডেলিভারি প্রক্রিয়া সচল রয়েছে। তবে এ পথে পাসপোর্ট যাত্রীর যাতায়াত স্বাভাবিক রয়েছে।
বেনাপোল স্থলবন্দরের উপ-পরিচালক (ট্রাফিক) আব্দুল জলিল জানান, আগে পেট্রাপোল বন্দরে হাতে কলমে কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা সম্পূর্ণ হতো। বর্তমানে সেখনকার বন্দরে অটোমেশন প্রক্রিয়া চালু হওয়ায় আমদানি রফতানি বানিজ্য চলছে অনলাইনে সম্পন্ন হয়। শনিবার ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে অনলাইনে ইন্টারনেট সার্ভারের প্রিন্টারে ত্র“টি দেখা দেয়ায় গত তিন ধরে এ বন্দর দিয়ে আমদানী রফতানী কার্য্রক্রম বন্ধ রয়েছে। তবে ভারতের কাষ্টমসের আšতরিকতায় ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে বাংলাদেশ থেকে কিছু পন্য ভারতে রফতানী হচ্ছে।
বেনাপোল কাষ্টমসের সহকারী কমিশনার দ্বীপা রানী হালদার বলেন, দু’দেশের মধ্যে আমদানী রফতানি বন্ধ থাকলেও আমাদের কমিশনার মহোদয়ের আšতরিকতায় ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে রফতানী সচল করা হয়েছে এবং কিছু পচনশীল পন্য আমদানী হচ্ছে একই পদ্ধতিতে। আমরা সার্বনিক ভারতীয় কাষ্টমস কর্তৃপরে সাথে যোগাযোগ রাখছি। তবে তারা জানিয়েছেন, অনলাইন সিষ্টেম সচল কারার জন্য কাজ চলছে। দু একদিনের মধ্যে অনলাইন সিষ্টেম সচল হবে বলে ভারতীয় কাস্টমস কর্তৃপক্ষ জানান।
আমদানী বন্ধ থাকার কারনে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে আটকা পড়েছে কয়েক হাজার পন্য বাহী ট্রাক। যার অধিকাংশই বাংলাদেশের শতভাগ রফতানী মুখি গার্মেন্টস শিল্পের কাচামাল রয়েছে। আমদানী বন্ধ থাকলেও বেনাপোল বন্দরে লোড আনলোড প্রক্রিয়া স্বাভাবিক গতিতে চলছে। বিকেল পর্যন্ত ৬৫ ট্রাক মালামাল আমদানি হয়েছে। লপতানি হয়েছে ৫০ ট্রাক মালামাল।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

ঠাকুরগাঁওয়ে কুয়াশায় ঢাকা চারপাশ, কমেছে তাপমাত্রা

বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি- রফতানি শুরু ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে —-

প্রকাশের সময় : ০৫:৪৭:০৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ নভেম্বর ২০১৯
সাজেদুর রহমান : সিনিয়র রিপোর্টার :=
ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে ইন্টারনেট সার্ভারে প্রিন্টার ত্র“টির কারনে তৃতীয় দিনের মাথায় আজ সোমবার সকাল থেকে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে শুরু হয়েছে দু’ দেশের মধ্যে আমদানি বাণিজ্য। গত ২ দিনে আমদানী বানিজ্য বন্ধ থাকায় স্থবির হয়ে পড়েছে বেনাপোল বন্দর। তবে বন্দরে লোড আনলোড সহ পণ্য ডেলিভারি প্রক্রিয়া সচল রয়েছে। তবে এ পথে পাসপোর্ট যাত্রীর যাতায়াত স্বাভাবিক রয়েছে।
বেনাপোল স্থলবন্দরের উপ-পরিচালক (ট্রাফিক) আব্দুল জলিল জানান, আগে পেট্রাপোল বন্দরে হাতে কলমে কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা সম্পূর্ণ হতো। বর্তমানে সেখনকার বন্দরে অটোমেশন প্রক্রিয়া চালু হওয়ায় আমদানি রফতানি বানিজ্য চলছে অনলাইনে সম্পন্ন হয়। শনিবার ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে অনলাইনে ইন্টারনেট সার্ভারের প্রিন্টারে ত্র“টি দেখা দেয়ায় গত তিন ধরে এ বন্দর দিয়ে আমদানী রফতানী কার্য্রক্রম বন্ধ রয়েছে। তবে ভারতের কাষ্টমসের আšতরিকতায় ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে বাংলাদেশ থেকে কিছু পন্য ভারতে রফতানী হচ্ছে।
বেনাপোল কাষ্টমসের সহকারী কমিশনার দ্বীপা রানী হালদার বলেন, দু’দেশের মধ্যে আমদানী রফতানি বন্ধ থাকলেও আমাদের কমিশনার মহোদয়ের আšতরিকতায় ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে রফতানী সচল করা হয়েছে এবং কিছু পচনশীল পন্য আমদানী হচ্ছে একই পদ্ধতিতে। আমরা সার্বনিক ভারতীয় কাষ্টমস কর্তৃপরে সাথে যোগাযোগ রাখছি। তবে তারা জানিয়েছেন, অনলাইন সিষ্টেম সচল কারার জন্য কাজ চলছে। দু একদিনের মধ্যে অনলাইন সিষ্টেম সচল হবে বলে ভারতীয় কাস্টমস কর্তৃপক্ষ জানান।
আমদানী বন্ধ থাকার কারনে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে আটকা পড়েছে কয়েক হাজার পন্য বাহী ট্রাক। যার অধিকাংশই বাংলাদেশের শতভাগ রফতানী মুখি গার্মেন্টস শিল্পের কাচামাল রয়েছে। আমদানী বন্ধ থাকলেও বেনাপোল বন্দরে লোড আনলোড প্রক্রিয়া স্বাভাবিক গতিতে চলছে। বিকেল পর্যন্ত ৬৫ ট্রাক মালামাল আমদানি হয়েছে। লপতানি হয়েছে ৫০ ট্রাক মালামাল।