মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিরক্ত হয়ে অসুস্থ স্ত্রীকে জ্যান্ত কবর দিল স্বামী

মামুন বাবু :=

শয্যাশায়ী স্ত্রীর অসুস্থতায় বিরক্ত হয়ে রাতের অন্ধকারে তাকে জীবন্ত কবর দিয়ে দিলেন স্বামী। ভারতের গোয়ায় এই ঘটনা ঘটেছে।টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, পুলিশের জেরার মুখে স্ত্রীকে জ্যান্ত কবর দেয়ার ঘটনা স্বীকার করেন ৪৬ বছর বয়সী তুকারাম শেটগাঁওকর। তিনি গোয়ার নারভেম এলাকার বাসিন্দা।

পুলিশ জানায়, বুধবার রাতে তিল্লারি সেচ প্রকল্পের খাল খননের জায়গায় স্ত্রীকে জীবন্ত অবস্থায় কবর দেন তুকারাম।বৃহস্পতিবার সকালে খাল খননের কর্মীরা মেশিনের সাহায্যে জায়গাটির মাটি সমান করতে গেলে ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসে।এসময় কাজ শুরু করতে কর্মীদের বাধা দেন তুকারাম। তার কথা না-শুনে কাজ চালিয়ে যায় কর্মীরা।

প্রথমে এক বস্তা মাটি তুলে আনে মেশিন। পরের ধাপে সেই কাজ করতে গিয়েই চমকে যায় কর্মীরা। এক নারীর দেহ দেখতে পায় তারা। সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থল ছেড়ে পালান তুকারাম।পুলিশকে খবর দেওয়া হলে তারা গিয়ে দেহটি উদ্ধার করে গোয়া মেডিকেল কলেজে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়।সন্দেহ হওয়ায় তুকারামকে থানায় ডেকে পাঠানো হয়। পুলিশি জেরার মুখে ভেঙে পড়ে দোষ স্বীকার করে নেন তুকারাম।

স্বীকারোক্তিতে পুলিশকে তুকারাম জানান, দেহটি তার ৪৪ বছর বয়সী স্ত্রী তানভীরের। অসুস্থ হয়ে দীর্ঘদিন ধরে শয্যাশায়ী ছিলেন তিনি। অভাব ও হতাশাগ্রস্ত হয়ে এক পর্যায়ে স্ত্রীকে জ্যান্ত কবর দেন তুকারাম।তিনি জানান, স্ত্রীর অসুস্থতায় তাদের পরিবারে আর্থিক টানাপোড়েন শুরু হয়। এমনকি তাদের ১৪ বছরের ছেলের স্কুলে যাওয়াও বন্ধ হয়ে যায়।এদিকে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে পুলিশ তুকারামকে গ্রেপ্তার করেছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

বিরক্ত হয়ে অসুস্থ স্ত্রীকে জ্যান্ত কবর দিল স্বামী

প্রকাশের সময় : ০৪:৪৩:২৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯
মামুন বাবু :=

শয্যাশায়ী স্ত্রীর অসুস্থতায় বিরক্ত হয়ে রাতের অন্ধকারে তাকে জীবন্ত কবর দিয়ে দিলেন স্বামী। ভারতের গোয়ায় এই ঘটনা ঘটেছে।টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, পুলিশের জেরার মুখে স্ত্রীকে জ্যান্ত কবর দেয়ার ঘটনা স্বীকার করেন ৪৬ বছর বয়সী তুকারাম শেটগাঁওকর। তিনি গোয়ার নারভেম এলাকার বাসিন্দা।

পুলিশ জানায়, বুধবার রাতে তিল্লারি সেচ প্রকল্পের খাল খননের জায়গায় স্ত্রীকে জীবন্ত অবস্থায় কবর দেন তুকারাম।বৃহস্পতিবার সকালে খাল খননের কর্মীরা মেশিনের সাহায্যে জায়গাটির মাটি সমান করতে গেলে ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসে।এসময় কাজ শুরু করতে কর্মীদের বাধা দেন তুকারাম। তার কথা না-শুনে কাজ চালিয়ে যায় কর্মীরা।

প্রথমে এক বস্তা মাটি তুলে আনে মেশিন। পরের ধাপে সেই কাজ করতে গিয়েই চমকে যায় কর্মীরা। এক নারীর দেহ দেখতে পায় তারা। সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থল ছেড়ে পালান তুকারাম।পুলিশকে খবর দেওয়া হলে তারা গিয়ে দেহটি উদ্ধার করে গোয়া মেডিকেল কলেজে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়।সন্দেহ হওয়ায় তুকারামকে থানায় ডেকে পাঠানো হয়। পুলিশি জেরার মুখে ভেঙে পড়ে দোষ স্বীকার করে নেন তুকারাম।

স্বীকারোক্তিতে পুলিশকে তুকারাম জানান, দেহটি তার ৪৪ বছর বয়সী স্ত্রী তানভীরের। অসুস্থ হয়ে দীর্ঘদিন ধরে শয্যাশায়ী ছিলেন তিনি। অভাব ও হতাশাগ্রস্ত হয়ে এক পর্যায়ে স্ত্রীকে জ্যান্ত কবর দেন তুকারাম।তিনি জানান, স্ত্রীর অসুস্থতায় তাদের পরিবারে আর্থিক টানাপোড়েন শুরু হয়। এমনকি তাদের ১৪ বছরের ছেলের স্কুলে যাওয়াও বন্ধ হয়ে যায়।এদিকে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে পুলিশ তুকারামকে গ্রেপ্তার করেছে।