বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শার্শায় তেল কম দেওয়ার অভিযোগে ৫ টি ফিলিং ষ্টেশনকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা

শার্শা ব্যুরো: =
যশোরের শার্শায় সাতটি ফিলিং ষ্টেশনে তেল কম দেওয়ার অভিযোগে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

বুধবার (১৮ ডিসেম্বর) সকাল থেকে শার্শা উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট খোরশেদ আলম চৌধুরী ও খুলনা বিএসটি আইয়ের পরিদর্শক আব্দুর রাকিবের উপস্থিতিতে ২০১৮ সালের ওজন ও পরিমাপ আইনে এসব ফিলিং স্টেশন গুলোকে জরিমানা করা হয়।আদালত পরিচালনা করা ফিলিং স্টেশনগুলো হলো,নাভারণ ফিলিং ষ্টেশন, শ্যামলাগাছির শ্যামলি ফিলিং ষ্টেশন, কাগজপুকুরের তানিমা ফিলিং ষ্টেশন, বেনাপোলের শাহাজালাল ফিলিং ষ্টেশন, তালশারির মিলন পেট্রোল পাম্প ও কাগজপুকুরের হক ফিলিং ষ্টেশন।

আদালত পরিচালনাকারী ম্যাজিস্ট্রেট খোরশেদ আলম চৌধুরী বলেন,বিভিন্ন মারফত জানা যায়,শার্শা উপজেলার বিভিন্ন ফিলিংস্টেশনে তেলের ওজনে কম দেওয়া হচ্ছে,এমন সংবাদে ফিলিং স্টেশনের উপর বিএসটিআই’র ইন্সপেক্টরের উপস্তিতিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানকালে ফিলিং স্টেশনগুলোর বিভিন্ন ধরণের অনিয়ম পরিলক্ষিত হয় ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখাতে ব্যর্থ হয় এবং কিছু ফিলিং স্টেশন সিল টেম্পারিং করে ওজনে কারচুপির প্রমাণ পাওয়া যায়। উপরোক্ত অপরাধের কারণে মেসার্স হক ফিলিং স্টেশনকে ১০০০০/-টাকা, মেসার্স শাহ জালাল ফিলিং স্টেশনকে ২০০০০/-টাকা, মেসার্স মিলন ফিলিং স্টেশনকে ১০০০০/-টাকা, মেসার্স বেনাপোল ফিলিং স্টেশনকে ২০০০০/-টাকা, মেসার্স তানিয়া ফিলিং স্টেশনকে ১০০০০/-টাকাসহ সর্বমোট ৭০০০০/-(সত্তর হাজার) টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। ফিলিং স্টেশনগুলোকে আগামী ১সপ্তাহের মধ্যে সব কিছু ঠিক করে নেওয়ার নির্দেশ প্রদান করা হয়।

ম্যাজিস্ট্রেট আরো বলেন,সকল অনিয়ম ও ভেজালের বিরুদ্ধে উপজেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

শার্শায় তেল কম দেওয়ার অভিযোগে ৫ টি ফিলিং ষ্টেশনকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা

প্রকাশের সময় : ১১:০৬:৪১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৯
শার্শা ব্যুরো: =
যশোরের শার্শায় সাতটি ফিলিং ষ্টেশনে তেল কম দেওয়ার অভিযোগে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

বুধবার (১৮ ডিসেম্বর) সকাল থেকে শার্শা উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট খোরশেদ আলম চৌধুরী ও খুলনা বিএসটি আইয়ের পরিদর্শক আব্দুর রাকিবের উপস্থিতিতে ২০১৮ সালের ওজন ও পরিমাপ আইনে এসব ফিলিং স্টেশন গুলোকে জরিমানা করা হয়।আদালত পরিচালনা করা ফিলিং স্টেশনগুলো হলো,নাভারণ ফিলিং ষ্টেশন, শ্যামলাগাছির শ্যামলি ফিলিং ষ্টেশন, কাগজপুকুরের তানিমা ফিলিং ষ্টেশন, বেনাপোলের শাহাজালাল ফিলিং ষ্টেশন, তালশারির মিলন পেট্রোল পাম্প ও কাগজপুকুরের হক ফিলিং ষ্টেশন।

আদালত পরিচালনাকারী ম্যাজিস্ট্রেট খোরশেদ আলম চৌধুরী বলেন,বিভিন্ন মারফত জানা যায়,শার্শা উপজেলার বিভিন্ন ফিলিংস্টেশনে তেলের ওজনে কম দেওয়া হচ্ছে,এমন সংবাদে ফিলিং স্টেশনের উপর বিএসটিআই’র ইন্সপেক্টরের উপস্তিতিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানকালে ফিলিং স্টেশনগুলোর বিভিন্ন ধরণের অনিয়ম পরিলক্ষিত হয় ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখাতে ব্যর্থ হয় এবং কিছু ফিলিং স্টেশন সিল টেম্পারিং করে ওজনে কারচুপির প্রমাণ পাওয়া যায়। উপরোক্ত অপরাধের কারণে মেসার্স হক ফিলিং স্টেশনকে ১০০০০/-টাকা, মেসার্স শাহ জালাল ফিলিং স্টেশনকে ২০০০০/-টাকা, মেসার্স মিলন ফিলিং স্টেশনকে ১০০০০/-টাকা, মেসার্স বেনাপোল ফিলিং স্টেশনকে ২০০০০/-টাকা, মেসার্স তানিয়া ফিলিং স্টেশনকে ১০০০০/-টাকাসহ সর্বমোট ৭০০০০/-(সত্তর হাজার) টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। ফিলিং স্টেশনগুলোকে আগামী ১সপ্তাহের মধ্যে সব কিছু ঠিক করে নেওয়ার নির্দেশ প্রদান করা হয়।

ম্যাজিস্ট্রেট আরো বলেন,সকল অনিয়ম ও ভেজালের বিরুদ্ধে উপজেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে।