বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

থার্টিফাস্টে রাস্তায় থাকবে বিপুল পুলিশ ও সোয়াত

আলহাজ্ব মতিয়ার রহমান :=

ইংরেজি নববর্ষ উপলক্ষে থার্টিফার্স্ট নাইটে ঢাকাবাসীর নিরাপত্তার জন্য সড়কে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিপুল সদস্য মোতায়েন থাকবে বলে জানিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে মোতায়েন থাকবে বিপুল পুলিশ। এছাড়া থাকবে সোয়াট ও বোম ডিসপোজাল ইউনিট। সোমবার ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন ডিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‘স্বতঃস্ফূর্তভাবে উৎসব পালনে রাজধানীর নিরাপত্তা ও আইনশৃঙ্খলার স্বার্থে রাস্তার মোড়, ফ্লাইওভার, ভবনের ছাদে এবং প্রকাশ্যে কোনো ধরনের জমায়েত কিংবা উৎসব করা যাবে না। আনন্দ উৎসব উদযাপনের নামে কিছু উচ্ছৃঙ্খল ব্যক্তি নিজস্ব সংস্কৃতি, মূল্যবোধ ঐতিহ্য বিরোধী কর্মকাণ্ডে লিপ্ত হয়ে থাকে। এছাড়া আতশবাজি, অশোভন আচরণ, বেপরোয়া গাড়ি ও মোটরসাইকেল চালানোর মাধ্যমে রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা বা দুর্ঘটনা ঘটিয়ে অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতির সৃষ্টি করে।’

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘থার্টিফার্স্ট উপলক্ষে রাজধানীজুড়ে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েনের পাশাপাশি সোয়াত সদস্যরা মোতায়েন থাকবে। থাকবে টহল চৌকি। থার্টিফার্স্ট উৎসব ঘিরে নাশকতার কোনো শঙ্কা নেই। গোয়েন্দা সংস্থা কাজ করছে। নাশকতার চেষ্টা করা হলে কঠিন ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘কূটনীতিক জোনগুলোতে বিদেশি অতিথিরা তাদের কালচার উদযাপন করতে পারবে। এছাড়া রাজধানীর গুলশান, বারিধারা ও হাতিরঝিল এলাকায় ৩১ ডিসেম্বর রাত ৮টার পর কাউকে ঢুকতে দেওয়া হবে না। এছাড়া রাত ৮টার পর হাতিরঝিল এলাকায় কাউকে অবস্থান করতে দেওয়া হবে না।’এ সময় সুস্থ বিনোদনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সহযোগিতা দেবে বলে জানান ডিএমপি কমিশনার।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

অবশেষে জল্পনা সত্যি! মা হচ্ছেন দীপিকা

থার্টিফাস্টে রাস্তায় থাকবে বিপুল পুলিশ ও সোয়াত

প্রকাশের সময় : ১০:১৪:০৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০১৯
আলহাজ্ব মতিয়ার রহমান :=

ইংরেজি নববর্ষ উপলক্ষে থার্টিফার্স্ট নাইটে ঢাকাবাসীর নিরাপত্তার জন্য সড়কে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিপুল সদস্য মোতায়েন থাকবে বলে জানিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে মোতায়েন থাকবে বিপুল পুলিশ। এছাড়া থাকবে সোয়াট ও বোম ডিসপোজাল ইউনিট। সোমবার ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন ডিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‘স্বতঃস্ফূর্তভাবে উৎসব পালনে রাজধানীর নিরাপত্তা ও আইনশৃঙ্খলার স্বার্থে রাস্তার মোড়, ফ্লাইওভার, ভবনের ছাদে এবং প্রকাশ্যে কোনো ধরনের জমায়েত কিংবা উৎসব করা যাবে না। আনন্দ উৎসব উদযাপনের নামে কিছু উচ্ছৃঙ্খল ব্যক্তি নিজস্ব সংস্কৃতি, মূল্যবোধ ঐতিহ্য বিরোধী কর্মকাণ্ডে লিপ্ত হয়ে থাকে। এছাড়া আতশবাজি, অশোভন আচরণ, বেপরোয়া গাড়ি ও মোটরসাইকেল চালানোর মাধ্যমে রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা বা দুর্ঘটনা ঘটিয়ে অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতির সৃষ্টি করে।’

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘থার্টিফার্স্ট উপলক্ষে রাজধানীজুড়ে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েনের পাশাপাশি সোয়াত সদস্যরা মোতায়েন থাকবে। থাকবে টহল চৌকি। থার্টিফার্স্ট উৎসব ঘিরে নাশকতার কোনো শঙ্কা নেই। গোয়েন্দা সংস্থা কাজ করছে। নাশকতার চেষ্টা করা হলে কঠিন ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘কূটনীতিক জোনগুলোতে বিদেশি অতিথিরা তাদের কালচার উদযাপন করতে পারবে। এছাড়া রাজধানীর গুলশান, বারিধারা ও হাতিরঝিল এলাকায় ৩১ ডিসেম্বর রাত ৮টার পর কাউকে ঢুকতে দেওয়া হবে না। এছাড়া রাত ৮টার পর হাতিরঝিল এলাকায় কাউকে অবস্থান করতে দেওয়া হবে না।’এ সময় সুস্থ বিনোদনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সহযোগিতা দেবে বলে জানান ডিএমপি কমিশনার।