রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সমাজ বাস্তবতার ছবি ‘মায়া: দ্য লস্ট মাদার’

ফারুক হাসান :=

বীরঙ্গনা নারীদের নিয়ে দেশের প্রথম চলচ্চিত্র ‘মায়া: দ্য লস্ট মাদার’। জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত নির্মাতা মাসুদ পথিক পরিচালিত এ ছবিটি শুক্রবার সারা দেশের আটটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে। সেগুলো হচ্ছে ঢাকার বলাকা, শ্যামলী সিনেমা, যমুনা ব্লকবাস্টার, নারায়ণগঞ্জের সিনেস্কোপ, সিলেটের বিজিপি সিনেমা হল, খুলনার লিবার্টি, বগুড়ার সোনিয়া ও চট্টগ্রামের সিলভার স্ক্রিন।

শিল্পী শাহাবুদ্দিন আহমেদের চিত্রকর্ম ‘ওমেন’এবং কবি কামাল চৌধুরীর ‘যুদ্ধশিশু’ কবিতা অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে ‘মায়া: দ্য লস্ট মাদার’। মুক্তির প্রথম দিনে নিউ মার্কেটের বলাকা সিনেমা হলে বিকালে হয় ছবিটির প্রিমিয়ার। সেখানে ছবির পরিচালক, সকল কলাকুশলী, সাংবাদিক ও আমন্ত্রিত অতিথিরা উপস্থিত ছিলেন। সবার সঙ্গে বসে ‘মায়া: দ্য লস্ট মাদার’ দেখেন এটির কেন্দ্রীয় চরিত্র জ্যোতিকা জ্যোতি।

ছবির গল্পে যায়, মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানি সেনারা বাংলাদেশের নারীদের ওপর যে পাশবিক চালায়, তা একটি বীরাঙ্গনা চরিত্রের মধ্য দিয়ে নির্মাতা মাসুদ পথিক তুলে ধরেছেন। একজন বীরাঙ্গনার জীবন, সংসার  এবং তার অতীতের বিভিন্ন দিক উঠে এসেছে ছবিতে। বীরাঙ্গনার বড় সন্তান একজন যুদ্ধশিশু, যে নিঁখোজ মাকে খুঁজে বেড়ায়। তার ছোট মেয়ে মায়া। মা বীরাঙ্গনা হওয়ায় সংসার ভেঙ্গে যায় মায়ার। মায়ের সংসারই মায়া ও তার দুই সন্তানের ঠাঁই। বাড়িতে আশ্রিত থাকে আরেক যুদ্ধশিশু, যার সঙ্গে মায়ার প্রেম।

এদিকে গ্রামের চেয়ারম্যান, ইমাম সকলের নজর মায়ার শরীরে। এসবের মধ্যেই চলতে থাকে মায়ার জীবন সংগ্রাম। কৃষিকাজ করে সংসার চালায় মায়া। হালচাষ, পশুপালন থেকে শুরু করে ঘরের কাজ সবই সামলায় সে।  সমাজের কোনো অন্যায়কে প্রশ্রয় না দিয়ে আত্মসম্মান নিয়ে বাঁচে আর নিজের যুদ্ধ চালিয়ে যায়। তবুও একদিন সমাজের অন্যায়-নিপীড়নের শিকার হয়ে প্রাণ হারায় সন্তানসম্ভবা মায়া।

এককথায়, একজন বীরাঙ্গনার জীবনের করুণ গল্পের মধ্য দিয়ে বাংলার রূপবৈচিত্র্য, প্রেম ও সমাজ বাস্তবতার চালচিত্র তুলে ধরা হয়েছে ‘মায়া’তে। সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত এ ছবিতে জ্যোতিকা জ্যোতি ছাড়াও অভিনয় করেছেন মুমতাজ সরকার (ভারত), প্রাণ রায়, জ্যোতিকা জ্যোতি, দেবাশিষ কায়সার, সৈয়দ হাসান ইমাম, ঝুনা চৌধুরী, নারগিস আক্তার, লীনা ফেরদৌসী, ড. শাহাদাত হোসেন নিপু, আসলাম সানী ও মজিদ।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

বিদ্যুৎ গ্যাস ও তেলের মূল্যবৃদ্ধির ক্ষমতা পেল সরকার, বিল পাস

সমাজ বাস্তবতার ছবি ‘মায়া: দ্য লস্ট মাদার’

প্রকাশের সময় : ০৬:৩৭:৪৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৯
ফারুক হাসান :=

বীরঙ্গনা নারীদের নিয়ে দেশের প্রথম চলচ্চিত্র ‘মায়া: দ্য লস্ট মাদার’। জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত নির্মাতা মাসুদ পথিক পরিচালিত এ ছবিটি শুক্রবার সারা দেশের আটটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে। সেগুলো হচ্ছে ঢাকার বলাকা, শ্যামলী সিনেমা, যমুনা ব্লকবাস্টার, নারায়ণগঞ্জের সিনেস্কোপ, সিলেটের বিজিপি সিনেমা হল, খুলনার লিবার্টি, বগুড়ার সোনিয়া ও চট্টগ্রামের সিলভার স্ক্রিন।

শিল্পী শাহাবুদ্দিন আহমেদের চিত্রকর্ম ‘ওমেন’এবং কবি কামাল চৌধুরীর ‘যুদ্ধশিশু’ কবিতা অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে ‘মায়া: দ্য লস্ট মাদার’। মুক্তির প্রথম দিনে নিউ মার্কেটের বলাকা সিনেমা হলে বিকালে হয় ছবিটির প্রিমিয়ার। সেখানে ছবির পরিচালক, সকল কলাকুশলী, সাংবাদিক ও আমন্ত্রিত অতিথিরা উপস্থিত ছিলেন। সবার সঙ্গে বসে ‘মায়া: দ্য লস্ট মাদার’ দেখেন এটির কেন্দ্রীয় চরিত্র জ্যোতিকা জ্যোতি।

ছবির গল্পে যায়, মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানি সেনারা বাংলাদেশের নারীদের ওপর যে পাশবিক চালায়, তা একটি বীরাঙ্গনা চরিত্রের মধ্য দিয়ে নির্মাতা মাসুদ পথিক তুলে ধরেছেন। একজন বীরাঙ্গনার জীবন, সংসার  এবং তার অতীতের বিভিন্ন দিক উঠে এসেছে ছবিতে। বীরাঙ্গনার বড় সন্তান একজন যুদ্ধশিশু, যে নিঁখোজ মাকে খুঁজে বেড়ায়। তার ছোট মেয়ে মায়া। মা বীরাঙ্গনা হওয়ায় সংসার ভেঙ্গে যায় মায়ার। মায়ের সংসারই মায়া ও তার দুই সন্তানের ঠাঁই। বাড়িতে আশ্রিত থাকে আরেক যুদ্ধশিশু, যার সঙ্গে মায়ার প্রেম।

এদিকে গ্রামের চেয়ারম্যান, ইমাম সকলের নজর মায়ার শরীরে। এসবের মধ্যেই চলতে থাকে মায়ার জীবন সংগ্রাম। কৃষিকাজ করে সংসার চালায় মায়া। হালচাষ, পশুপালন থেকে শুরু করে ঘরের কাজ সবই সামলায় সে।  সমাজের কোনো অন্যায়কে প্রশ্রয় না দিয়ে আত্মসম্মান নিয়ে বাঁচে আর নিজের যুদ্ধ চালিয়ে যায়। তবুও একদিন সমাজের অন্যায়-নিপীড়নের শিকার হয়ে প্রাণ হারায় সন্তানসম্ভবা মায়া।

এককথায়, একজন বীরাঙ্গনার জীবনের করুণ গল্পের মধ্য দিয়ে বাংলার রূপবৈচিত্র্য, প্রেম ও সমাজ বাস্তবতার চালচিত্র তুলে ধরা হয়েছে ‘মায়া’তে। সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত এ ছবিতে জ্যোতিকা জ্যোতি ছাড়াও অভিনয় করেছেন মুমতাজ সরকার (ভারত), প্রাণ রায়, জ্যোতিকা জ্যোতি, দেবাশিষ কায়সার, সৈয়দ হাসান ইমাম, ঝুনা চৌধুরী, নারগিস আক্তার, লীনা ফেরদৌসী, ড. শাহাদাত হোসেন নিপু, আসলাম সানী ও মজিদ।