শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মুসলিমদের পাশে থাকার অঙ্গীকারে শপথ নিলেন মমতা-সোনিয়া ও রাহুল

মাহবুবুল আলম টুটুল :=

এবার মুসলিমদের অধিকার আদায়ে সব সময় পাশে থাকার অঙ্গীকার নিয়ে হাতে হাত রাখলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সোনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধী । তাদের মতে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জির (এনআরসি) নামে

বিভাজনের কৌশল নিয়েছে মোদি সরকার। তাই সব বিরোধী দল তাদের সাধ্যমতো আন্দোলন চালিয়ে যাবে, এই অঙ্গীকারই উঠে এল ঝাড়খণ্ডের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সরেনের শপথ

অনুষ্ঠানের অবসরে। রাঁচীতে ওই শপথ-মঞ্চে রাহুল গান্ধীদের পাশাপাশি অন্যতম মুখ্য চরিত্র ছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বিভাজনের কৌশল নিয়েছে মোদি সরকার। তাই সব বিরোধী দল তাদের সাধ্যমতো আন্দোলন চালিয়ে যাবে, এই অঙ্গীকারই উঠে এল ঝাড়খণ্ডের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সরেনের শপথ

অনুষ্ঠানের অবসরে। রাঁচীতে ওই শপথ-মঞ্চে রাহুল গান্ধীদের পাশাপাশি অন্যতম মুখ্য চরিত্র ছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।বিভাজনের কৌশল নিয়েছে মোদি সরকার। তাই সব বিরোধী দল তাদের সাধ্যমতো আন্দোলন চালিয়ে যাবে, এই অঙ্গীকারই উঠে এল ঝাড়খণ্ডের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সরেনের শপথ

অনুষ্ঠানের অবসরে। রাঁচীতে ওই শপথ-মঞ্চে রাহুল গান্ধীদের পাশাপাশি অন্যতম মুখ্য চরিত্র ছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা (জেএমএম) এবং কংগ্রেসের জোট সরকারের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে হেমন্তের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে এ দিন হাজির ছিলেন দেশের প্রায় সব অ-বিজেপি দলের প্রতিনিধিরা। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতার পাশেই ছিলেন ছত্তীশগঢ়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেন্দ্র বঘেল,রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌত, তামিলনাড়ুর ডিএমকে-র সভাপতি এম কে স্ট্যালিন ও তাঁর সাংসদ-বোন কানিমোঝি।নরেন্দ্র মোদী সরকারের সাম্প্রতিক পদক্ষেপের বিরুদ্ধে সব বিরোধী দলকে এক সুরে প্রতিবাদ করার আহ্বান জানিয়েসম্প্রতি চিঠি দিয়েছিলেন মমতা, তার জবাব দিয়ে তৃণমূল নেত্রীর সঙ্গেই একমত হয়েছেন কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী

 

 

 

সম্প্রতি চিঠি দিয়েছিলেন মমতা, তার জবাব দিয়ে তৃণমূল নেত্রীর সঙ্গেই একমত হয়েছেন কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

মুসলিমদের পাশে থাকার অঙ্গীকারে শপথ নিলেন মমতা-সোনিয়া ও রাহুল

প্রকাশের সময় : ০৬:৪৬:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৯
মাহবুবুল আলম টুটুল :=

এবার মুসলিমদের অধিকার আদায়ে সব সময় পাশে থাকার অঙ্গীকার নিয়ে হাতে হাত রাখলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সোনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধী । তাদের মতে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জির (এনআরসি) নামে

বিভাজনের কৌশল নিয়েছে মোদি সরকার। তাই সব বিরোধী দল তাদের সাধ্যমতো আন্দোলন চালিয়ে যাবে, এই অঙ্গীকারই উঠে এল ঝাড়খণ্ডের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সরেনের শপথ

অনুষ্ঠানের অবসরে। রাঁচীতে ওই শপথ-মঞ্চে রাহুল গান্ধীদের পাশাপাশি অন্যতম মুখ্য চরিত্র ছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বিভাজনের কৌশল নিয়েছে মোদি সরকার। তাই সব বিরোধী দল তাদের সাধ্যমতো আন্দোলন চালিয়ে যাবে, এই অঙ্গীকারই উঠে এল ঝাড়খণ্ডের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সরেনের শপথ

অনুষ্ঠানের অবসরে। রাঁচীতে ওই শপথ-মঞ্চে রাহুল গান্ধীদের পাশাপাশি অন্যতম মুখ্য চরিত্র ছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।বিভাজনের কৌশল নিয়েছে মোদি সরকার। তাই সব বিরোধী দল তাদের সাধ্যমতো আন্দোলন চালিয়ে যাবে, এই অঙ্গীকারই উঠে এল ঝাড়খণ্ডের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সরেনের শপথ

অনুষ্ঠানের অবসরে। রাঁচীতে ওই শপথ-মঞ্চে রাহুল গান্ধীদের পাশাপাশি অন্যতম মুখ্য চরিত্র ছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা (জেএমএম) এবং কংগ্রেসের জোট সরকারের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে হেমন্তের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে এ দিন হাজির ছিলেন দেশের প্রায় সব অ-বিজেপি দলের প্রতিনিধিরা। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতার পাশেই ছিলেন ছত্তীশগঢ়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেন্দ্র বঘেল,রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌত, তামিলনাড়ুর ডিএমকে-র সভাপতি এম কে স্ট্যালিন ও তাঁর সাংসদ-বোন কানিমোঝি।নরেন্দ্র মোদী সরকারের সাম্প্রতিক পদক্ষেপের বিরুদ্ধে সব বিরোধী দলকে এক সুরে প্রতিবাদ করার আহ্বান জানিয়েসম্প্রতি চিঠি দিয়েছিলেন মমতা, তার জবাব দিয়ে তৃণমূল নেত্রীর সঙ্গেই একমত হয়েছেন কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী

 

 

 

সম্প্রতি চিঠি দিয়েছিলেন মমতা, তার জবাব দিয়ে তৃণমূল নেত্রীর সঙ্গেই একমত হয়েছেন কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী