সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইবির লাইব্রেরীর বইয়ের তথ্য পাওয়া যাবে অনলাইনে

ইবির লাইব্রেরীর বইয়ের তথ্য পাওয়া যাবে অনলাইনে

ইবি প্রতিনিধি:
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ‘ডিজিটাল লাইব্রেরি অ্যাকসেস সেন্টার’ চালু করা হয়েছে। এর মাধ্যমে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা কেন্দ্রীয় লাইব্রেরীর সকল বইয়ের তথ্য অনলাইনের মাধ্যমে পাবে। শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায়
বিশ্ববিদ্যালয়ের খাদেমুল হারামাইন বাদশাহ ফাহদ বিন আব্দুল আজিজ কেন্দ্রীয় গন্থাগারে ‘ডিজিটাল লাইব্রেরি অ্যাকসেস সেন্টার’র উদ্বোধন করেন ভিসি অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী।

এসময় প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান, কোষাধ্য অধ্যাপক ড. সেলিম তোহা, লাইব্রেরি অটোমেশন কমিটির আহবায়ক অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান, কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারিক আতাউর রহমান এবং খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগারিক আক্কাস পাঠান উপস্থিত ছিলেন।

কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার সূত্রে জানা যায়, ডিজিটাল লাইব্রেরি অ্যাকসেস সেন্টারের মাধ্যমে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ একাউন্টে ঢুকে শিরোনাম বইয়ের তালিকা, সংক্ষিপ্ত বর্ণনা সহ তার লোকেশন খুজে পাবে।
এছাড়া এর মাধ্যমে গ্রন্থাগারে থাকা প্রতিটি বইয়ের নির্দিষ্ট বার কোড দিয়ে অনুসন্ধান করলেও বইয়ের নাম, লেখক, প্রকাশনী, বইয়ের বিষয় এবং বইটি সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যাবে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগারিক আতাউর রহমান বলেন,“শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে ডিজিটাল লাইব্রেরি অ্যাকসেস সেন্টার চালু করা হয়েছে। এটি দেশের বিশ্ববিদ্যালয়েপর্যায়ে দ্বিতীয়। প্রাথমিকভাবে প্রায় ৫০ হাজার বইয়ের তথ্য অনলাইনের আওতায় আনা হয়েছে।”

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

বিএনপির নেতাকর্মীদের কারাগারে প্রেরণ সরকারের প্রধান কর্মসূচি -মির্জা ফখরুল

ইবির লাইব্রেরীর বইয়ের তথ্য পাওয়া যাবে অনলাইনে

প্রকাশের সময় : ০৬:৫০:৫৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০

ইবির লাইব্রেরীর বইয়ের তথ্য পাওয়া যাবে অনলাইনে

ইবি প্রতিনিধি:
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ‘ডিজিটাল লাইব্রেরি অ্যাকসেস সেন্টার’ চালু করা হয়েছে। এর মাধ্যমে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা কেন্দ্রীয় লাইব্রেরীর সকল বইয়ের তথ্য অনলাইনের মাধ্যমে পাবে। শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায়
বিশ্ববিদ্যালয়ের খাদেমুল হারামাইন বাদশাহ ফাহদ বিন আব্দুল আজিজ কেন্দ্রীয় গন্থাগারে ‘ডিজিটাল লাইব্রেরি অ্যাকসেস সেন্টার’র উদ্বোধন করেন ভিসি অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী।

এসময় প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান, কোষাধ্য অধ্যাপক ড. সেলিম তোহা, লাইব্রেরি অটোমেশন কমিটির আহবায়ক অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান, কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারিক আতাউর রহমান এবং খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগারিক আক্কাস পাঠান উপস্থিত ছিলেন।

কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার সূত্রে জানা যায়, ডিজিটাল লাইব্রেরি অ্যাকসেস সেন্টারের মাধ্যমে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ একাউন্টে ঢুকে শিরোনাম বইয়ের তালিকা, সংক্ষিপ্ত বর্ণনা সহ তার লোকেশন খুজে পাবে।
এছাড়া এর মাধ্যমে গ্রন্থাগারে থাকা প্রতিটি বইয়ের নির্দিষ্ট বার কোড দিয়ে অনুসন্ধান করলেও বইয়ের নাম, লেখক, প্রকাশনী, বইয়ের বিষয় এবং বইটি সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যাবে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগারিক আতাউর রহমান বলেন,“শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে ডিজিটাল লাইব্রেরি অ্যাকসেস সেন্টার চালু করা হয়েছে। এটি দেশের বিশ্ববিদ্যালয়েপর্যায়ে দ্বিতীয়। প্রাথমিকভাবে প্রায় ৫০ হাজার বইয়ের তথ্য অনলাইনের আওতায় আনা হয়েছে।”